ব্লগ

কেন আমি বাংলাদেশ বিমানে চড়ি না?

প্রশ্নটা নিজের কাছেই নিজে করি বেশি৷ পক্ষে, বিপক্ষে যুক্তি খুঁজি৷ বাংলাদেশের জাতীয় বিমানসংস্থায় না চড়ার পক্ষে যুক্তির অভাব নেই, পক্ষে শুধু দেশপ্রেম ছাড়া আর কিছু পাই না৷

জিএমজি এয়ারলাইন্স

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সে চড়ার প্রথম অভিজ্ঞতা হয়েছিল ২০০৬ সালে৷ কাঠমান্ডু গিয়েছিলাম একটি প্রশিক্ষণে অংশ নিতে৷ ঢাকা থেকে ঠিকঠাকই ছেড়েছিল বিমান৷ খাবারও বেশ ভালো ছিল৷ গোল বাধঁলো ফিরতে ফ্লাইটে৷ টানা কয়েকদিন প্রশিক্ষণে ক্লান্ত ছিলাম৷ কাঠমান্ডু বিমানবন্দরে তাড়াহুড়ায় পৌঁছাতে গিয়ে ঠিকভাবে খাওয়া হয়নি৷ কিন্তু বিমানবন্দরে ‘চেক ইন' করে বহির্গমন বিভাগে পৌঁছে দেখি বিমান তিনঘণ্টা ‘লেট'৷ কোনোমতে ক্ষুধার্ত পেটে অপেক্ষা করে বিমানে উঠলাম৷ আশা ছিল, অন্তত দুপুরের খাবারটা পাবো৷ ও মা, ছোট্ট একটা স্যান্ডউইচ আর কোমল পানীয় মিললো৷ অন্য কোনো খাবার আছে কিনা জানতে চাইলে একজন ‘কেবিন ক্রু' সাফ বলে দিলেন, নেই৷ বিমান ছোট, তাই খাবার যা আনা হয়েছিল তা নাকি আগের ফ্লাইটে শেষ হয়ে গেছে! এক টুকরো পেস্ট্রি সম্ভবত মিলেছিল পরে৷ কিন্তু তাতে কি আর ক্ষুধা মেটে!

ফ্লাইটে পয়সা দিয়েও খাবার কেনার জো ছিলে না তখন৷ তাই ঢাকা ফিরতে হয়েছে খালি পেটেই৷ বাংলাদেশ বিমানে প্রথম যাত্রাটার খাবারের কষ্টের অভিজ্ঞতা ভুলতে পারি না৷ সম্ভবত সেবছরই আরেক সম্মেলনে যাই আগ্রাতে৷ ফিরতি ফ্লাইট ছিল বিমানে, নতুন দিল্লি থেকে ঢাকা৷ সেবারও বিমান ছেড়েছিল অন্তত আড়াই ঘণ্টা পরে৷ আর ফিরতে পথে পেপসির বড় বোতল হাতে একজনকে দেখেছিলাম যাত্রীদের কোমল পানীয় সরবরাহ করতে৷ তিনি বেশ ক্লান্ত ছিলেন, ঘামার্ত শরীরে কোনোরকম কাজ চালিয়ে যাচ্ছিলেন শাড়ি পরা বয়স্ক ভদ্রমহিলা৷ এরকম কেবিনক্রু আমি অন্য কোনো বিমানসংস্থায় দেখিনি৷ তাই আজও তাঁর কথা মনে পড়ে৷

গত একযুগে এশিয়া, ইউরোপ আর মধ্যপ্রাচ্যের অনেক দেশে গেছি৷ এ পর্যন্ত বেশ কয়েকটি বিমান সংস্থার সেবা নেয়ার সুযোগ হয়েছে৷ ক্রমশ পছন্দের তালিকায় সবার উপরে উঠে গেছে এমিরেটস এয়ারলাইন্স৷ এর কয়েকটি কারণ আছে৷

প্রথমত, এমিরেটস-এর ‘ফ্লাইট সিডিউল' পুরোপুরি ঠিক রাখে৷ এখন অবধি একবার তীব্র তুষারপাতের কারণে ফ্লাইট বাতিল হওয়া ছাড়া কোনো ফ্লাইটই ‘ডিলে' হয়নি, অন্তত আমার সঙ্গে৷

দ্বিতীয়ত, এমিরেটস ‘কমিটমেন্ট' ঠিক রাখে৷ তাদের কোনো ভুল হলে যাত্রীদের কাছে ক্ষমা চেয়ে তা সংশোধনের চেষ্টা করে৷

তৃতীয়ত, এমিরেটস-এর ‘ইনফ্লাইট এন্টারটেইনমেন্ট' ব্যবস্থা এক কথায় সবার চেয়ে সেরা৷

চতুর্থত, এমিরেটস-এর খাবারের মান অসাধারণ৷

পঞ্চমত, বিমানগুলো অপেক্ষাকৃত নতুন এবং ভালোভাবে সেগুলোর রক্ষণাবেক্ষণ করা হয়৷

আরাফাতুল ইসলাম

আরাফাতুল ইসলাম, ডয়চে ভেলে

বলাবাহুল্য, ওপরের এই কারণগুলোর কোনোটিই বাংলাদেশ বিমানের ক্ষেত্রে এখন আর প্রযোজ্য নয়৷ অথচ এই বিমানের প্রশংসা শুনেছিলাম আমার একজন বর্ষীয়ান জার্মান সহকর্মীর কাছে৷ নব্বইয়ের দশকে এশিয়ায় অনেকবার ভ্রমণ করেছেন তিনি৷ সেসময় বিমানে চড়েছিলেন কয়েকবার৷ তিনি জানান, বাংলাদেশ বিমান তাঁর খুব ভালো লাগতো৷

তাঁকে আমি আমার অভিজ্ঞতার কথা অবশ্য বলিনি৷ দেশের কোনো কিছুর সুনাম শুনলে বরং ভালোই লাগে৷ গতবছর ফ্রাংকফুর্ট থেকে ঢাকা বিমানের ফ্লাইট চালু হওয়ায় তাই নতুন করে বিমান যাত্রা করতে চেয়েছিলাম৷ দেশপ্রমের কারণেই আগ্রহটা জেগেছিল৷ কিন্তু আমার সেই আশা ভঙ্গ হলো অচিরেই৷ জানলাম, বিমানের ফ্লাইটটি বন্ধ হয়ে গেছে অল্প কিছুদিনের মধ্যেই৷ আর যে কয়মাস চলেছিল, তাতে খুব একটা সুখ্যাতিও কুড়াতে পারেনি বিমান৷

শুরুতে ফলাও করে প্রচার করা নতুন বোয়িং বিমান অল্প ক'দিন সেবা দিয়েই হাওয়া হয়ে গেছে৷ তার বদলে মিশরের এক ভাড়া বিমান দিয়ে ফ্রাংকফুর্ট টু ঢাকা ফ্লাইট চালু রাখা হয়েছিল কিছুদিন৷ যাঁরা সেই বিমানে চড়েছেন, তাঁরা মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন৷ আশ্চর্যের বিষয় ছিল, অন্যান্য বিমানের তুলনায় অর্ধেক ভাড়া নিয়েও, ফ্লাইটের দুই-তৃতীয়াংশের বেশি আসন খালি থাকতো রুটটিতে৷ সম্ভবত, মার্কেটিংয়ে ঘাটতি ছিল৷

এখন যেভাবে বিমান চলছে, সেভাবে চলতে থাকলে এর কোনো ভবিষ্যত আছে বলে আমার মনে হয় না৷ তবে ভৌগোলিক অবস্থানের কারণে বিমান সেবায় বাংলাদেশের ভালো করার একটা সুযোগ এখনো আছে৷ তাই প্রয়োজন বিমানের সেবার মান অনেক ভালো করা, ‘ফ্লাইট সিডিউল' ঠিক রাখা আর অবশ্যই নিজেদের ‘রিপুটেশন' ভালো করতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করা৷ দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতি আর রাজনৈতিক প্রভাবের বাইরে গিয়ে বিমান আদৌ সেটা পারবে কিনা, সেটা অবশ্য ভালো প্রশ্ন৷

বাংলাদেশ বিমানে কখনো ভ্রমণ করেছেন? জানান আপনার অভিজ্ঞতা৷ 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

Albanian Shqip

Amharic አማርኛ

Arabic العربية

Bengali বাংলা

Bosnian B/H/S

Bulgarian Български

Chinese (Simplified) 简

Chinese (Traditional) 繁

Croatian Hrvatski

Dari دری

English English

French Français

German Deutsch

Greek Ελληνικά

Hausa Hausa

Hindi हिन्दी

Indonesian Bahasa Indonesia

Kiswahili Kiswahili

Macedonian Македонски

Pashto پښتو

Persian فارسی

Polish Polski

Portuguese Português para África

Portuguese Português do Brasil

Romanian Română

Russian Русский

Serbian Српски/Srpski

Spanish Español

Turkish Türkçe

Ukrainian Українська

Urdu اردو