ক্ষতিপূরণের ১৫ শতাংশ দাবি করেছে বাংলাদেশ

৩০ বিলিয়ন ডলার ক্ষতিপূরণ তহবিলের ১৫ ভাগ দাবি করেছে বাংলাদেশ৷ পরিবেশ প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বাংলাদেশই সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে৷

পরিবেশ প্রতিমন্ত্রী বলেন, কোপেনহেগেন সম্মেলন নিয়ে বাংলাদেশ সন্তুষ্ট না৷ তবে এই সম্মেলন পরবর্তী পদক্ষেপের জন্য সহায়ক৷ সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ভিক্ষার ঝুলি পূর্ণ করতে নয় জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতির দিকটি বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরতেই প্রধানমন্ত্রী সেখানে গিয়েছিলেন৷

প্রতিবেদক: হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

তিনি জানিয়েছেন, মেক্সিকোতে সমঝোতাচুক্তিকে আইনগত ভিত্তি দেয়ার চেষ্টা করা হবে৷

কোপেনহেগেন জলবায়ু সম্মেলন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে ফেরার পর মঙ্গলবার সরকারের পক্ষে আনুষ্ঠানিক বক্তব্য দেয়া হল৷ প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী পরিবেশ প্রতিমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ মঙ্গলবার এক প্রেসব্রিফিংয়ে বলেন, জলবায়ু সম্মেলনে বাংলাদেশ ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর নেতৃত্ব দিতে সক্ষম হয়েছে৷ বাংলাদেশ ক্ষতির পরিমাণ তুলে ধরতে পেরেছে৷ উন্নত বিশ্বের নেতারা বাংলাদেশী নেতার কথা গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছেন৷ তারা বুঝতে পেরেছেন জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতির কথা৷ যা একটি বড় অর্জন৷

হাছান মাহমুদ জানান, জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতি পোষাতে ৩০ বিলিয়ন ডলারের তহবিলের প্রস্তাব করা হয়েছে৷ বাংলাদেশ তা থেকে ১৫ শতাংশ দাবি করেছে৷ কারণ বাংলাদেশই জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে৷ তিনি জানান, মেক্সিকো সম্মেলনে কোপেনহেগেন সমঝোতার একটি আইনগত ভিত্তি দেয়ার চেষ্টা হবে৷

পরিবেশ প্রতিমন্ত্রী বলেন, কোপেনহেগেন সম্মেলন নিয়ে বাংলাদেশ সন্তুষ্ট না৷ তবে এই সম্মেলন পরবর্তী পদক্ষেপের জন্য সহায়ক৷ সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ভিক্ষার ঝুলি পূর্ণ করতে নয় জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতির দিকটি বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরতেই প্রধানমন্ত্রী সেখানে গিয়েছিলেন৷

প্রতিবেদক: হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

তিনি জানিয়েছেন, মেক্সিকোতে সমঝোতাচুক্তিকে আইনগত ভিত্তি দেয়ার চেষ্টা করা হবে৷

কোপেনহেগেন জলবায়ু সম্মেলন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে ফেরার পর মঙ্গলবার সরকারের পক্ষে আনুষ্ঠানিক বক্তব্য দেয়া হল৷ প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী পরিবেশ প্রতিমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ মঙ্গলবার এক প্রেসব্রিফিংয়ে বলেন, জলবায়ু সম্মেলনে বাংলাদেশ ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর নেতৃত্ব দিতে সক্ষম হয়েছে৷ বাংলাদেশ ক্ষতির পরিমাণ তুলে ধরতে পেরেছে৷ উন্নত বিশ্বের নেতারা বাংলাদেশী নেতার কথা গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছেন৷ তারা বুঝতে পেরেছেন জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতির কথা৷ যা একটি বড় অর্জন৷

হাছান মাহমুদ জানান, জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতি পোষাতে ৩০ বিলিয়ন ডলারের তহবিলের প্রস্তাব করা হয়েছে৷ বাংলাদেশ তা থেকে ১৫ শতাংশ দাবি করেছে৷ কারণ বাংলাদেশই জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে৷ তিনি জানান, মেক্সিকো সম্মেলনে কোপেনহেগেন সমঝোতার একটি আইনগত ভিত্তি দেয়ার চেষ্টা হবে৷

পরিবেশ প্রতিমন্ত্রী বলেন, কোপেনহেগেন সম্মেলন নিয়ে বাংলাদেশ সন্তুষ্ট না৷ তবে এই সম্মেলন পরবর্তী পদক্ষেপের জন্য সহায়ক৷ সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ভিক্ষার ঝুলি পূর্ণ করতে নয় জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতির দিকটি বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরতেই প্রধানমন্ত্রী সেখানে গিয়েছিলেন৷

প্রতিবেদক: হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়

6 ছবি
মিডিয়া সেন্টার | 28 মিনিট আগে

শরণার্থী শিল্পীরা

6 ছবি
মিডিয়া সেন্টার | 28 মিনিট আগে

পপ সঙ্গীতের অদ্ভুত কিছু যুগলবন্দী