জার্মানির অস্ত্র রপ্তানি বেড়েই চলেছে

২০১৫ সালে দ্বিগুণ হয়েছিল জার্মানির অস্ত্র রপ্তানি৷ জার্মান এক দৈনিকের খবর অনুযায়ী, ২০১৬ সালের প্রথম ছয় মাসেও এ খাতে রপ্তানি বেড়েছে৷ তবে জার্মানির অর্থমন্ত্রী বলেছেন, এসব চালানের বেশিরভাগই অনুমোদন পেয়েছিল আগে৷

মঙ্গলবার জার্মানির ‘ডি ভেল্ট' পত্রিকার একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৬ সালের প্রথম ছয় মাসে জার্মানির অস্ত্র রপ্তানি বেশ বেড়েছে৷ প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৫ সালের প্রথম ছয় মাসে যেখানে তিন দশমিক ৪৬ বিলিয়ন ইউরোর অস্ত্র রপ্তানি হয়েছিল, এ বছর একই সময়ে সেখানে চার দশমিক তিন বিলিয়ন ইউরোর অস্ত্র রপ্তানি করেছে জার্মানি৷

এর দু'দিন আগে ‘ডি ভেল্ট' আরেক প্রতিবেদনে জার্মানির অর্থ মন্ত্রণালয়কে উদ্ধৃত করে জানিয়েছিল, ২০১৫ সালে দেশটি আগের বছরের চেয়ে প্রায় দ্বিগুণ অস্ত্র রপ্তানি করেছে৷ জনপ্রিয় সংবাদপত্রটি আরো দাবি করে, গত বছর অস্ত্র রপ্তানিতে চলতি শতাব্দীর সর্বোচ্চ সীমা ছাড়িয়েছে জার্মানি৷

জার্মান অর্থমন্ত্রী সিগমার গাব্রিয়েল অবশ্য দাবি করেছেন, অস্ত্র রপ্তানির বিষয়ে জার্মান সরকার সতর্ক৷ তিনি এ-ও জানান, এখন যে চালানগুলো যাচ্ছে সেগুলোর অনুমোদন দিয়েছিল সাবেক সরকার৷

Infografik Waffenexport Deutschland 2014 2015 Englisch

তবে ‘ডি ভেল্ট'-এর দেয়া তথ্য অনুযায়ী, ২০১৬ সালের প্রথমার্ধে ছয় হাজার চারশ'টি অস্ত্রের চালান অনুমোদন পেয়েছে, যার মধ্যে চার হাজার পাঁচশ'টিই ইইউ, ন্যাটো বা ন্যাটোর মিত্রদেশসংশ্লিষ্ট৷

জার্মানি ইউরোপ | 22.08.2014

জার্মানির জণপ্রিয় দৈনিকটি আরো জানায়, সার্বিকভাবে অস্ত্র রপ্তানি বাড়লেও চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসে ক্ষুদ্র অস্ত্রের রপ্তানি কমেছে৷ গত বছরের প্রথম ছয় মাসে যেখানে ১৬ দশমিক ৪ মিলিয়ন ইউরোর এমন অস্ত্র রপ্তানি হয়েছিল, সেখানে এ বছর তা কমে হয়েছে ১২ দশমিক ৪ মিলিয়ন ইউরো৷

এর মধ্যে আট দশমিক দুই মিলিয়ন ইউরোর ক্ষুদ্র অস্ত্রই গিয়েছে জার্মানির রাজনৈতিক ও সামরিক মিত্র দেশ, তৃতীয় বিশ্বের অস্ত্র রপ্তানিকারক দেশ এবং ইরাকের কুর্দি শাসিত অঞ্চলে৷

০১. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র

বিশ্বের সবচেয়ে বেশি অস্ত্র রপ্তানি করা দেশটি হচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র৷ গত পাঁচ বছরে বিক্রি হওয়ায় অস্ত্রের ৩৩ শতাংশ সরবরাহ করেছে সেদেশ৷ গত কয়েক বছরে দেশটির অস্ত্র বিক্রির পরিমাণ বেড়েছে৷ সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং তুরস্ক এ সব অস্ত্রের মূল ক্রেতা৷

০২. রাশিয়া

বিশ্বের অপর পরাশক্তি রাশিয়ার দখলে আছে আন্তর্জাতিক অস্ত্র বাজারের ২৫ শতাংশ৷ দেশটিতে উৎপাদিত অস্ত্রের মূল ক্রেতা ভারত৷ চীন এবং ভিয়েতনামও রাশিয়ার কাছ থেকে অস্ত্র কিনছে নিয়মিত৷

০৩. চীন

পরিমাণের দিক থেকে যুক্তরাষ্ট্র এবং রাশিয়ার কাছাকাছি না হলেও তিন নম্বরে অবস্থান করছে চীন৷ বিশ্বের অস্ত্র বাজারের ৫ দশমিক নয় শতাংশ তাদের দখলে৷ ক্রেতা পাকিস্তান, বাংলাদেশ এবং মিয়ানমার৷

০৪. ফ্রান্স

চীনের পরেই ফ্রান্সের অবস্থান, গত কয়েক বছরে বিক্রি হওয়া অস্ত্রের ৫ দশমিক ছয় শতাংশ তৈরি করেছে সেদেশে৷ তবে লক্ষণীয় হলো, ফ্রান্সের অস্ত্র রপ্তানির পরিমান আগের চেয়ে কিছুটা কমেছে৷ মূলত মরক্কো, চীন এবং মিশর সেদেশ থেকে অস্ত্র আমদানি করে৷

০৫. জার্মানি

জার্মানির অস্ত্র রপ্তানির পরিমাণ সিপ্রির হিসেবে গত দশকের তুলনায় অনেক কমেছে৷ বর্তমানে আন্তর্জাতিক বাজারের ৪ দশমিক সাত শতাংশ তাদের দখলে আছে৷ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইসরায়েল এবং গ্রিস জার্মানির মূল ক্রেতা৷

০৬. যুক্তরাজ্য

অস্ত্র বিক্রির বাজারে যুক্তরাজ্যের অবস্থান ষষ্ঠ, সংখ্যার হিসেবে ৪ দশকিম পাঁচ শতাংশ৷ মূলত সৌদি আরব, ভারত এবং ইন্দোনেশিয়া যুক্তরাজ্য থেকে অস্ত্র আমদানি করে৷

০৭. স্পেন

স্পেনের দখলে আছে অস্ত্র বাণিজ্যের ৩ দশমিক পাঁচ শতাংশ৷ অস্ট্রেলিয়া, সৌদি আরব এবং তুরস্ক অস্ত্র আমদানি করে স্পেন থেকে৷

পরিমাণের দিক থেকে যুক্তরাষ্ট্র এবং রাশিয়ার কাছাকাছি না হলেও তিন নম্বরে অবস্থান করছে চীন৷ বিশ্বের অস্ত্র বাজারের ৫ দশমিক নয় শতাংশ তাদের দখলে৷ ক্রেতা পাকিস্তান, বাংলাদেশ এবং মিয়ানমার৷

অস্ত্র বিক্রির বাজারে যুক্তরাজ্যের অবস্থান ষষ্ঠ, সংখ্যার হিসেবে ৪ দশকিম পাঁচ শতাংশ৷ মূলত সৌদি আরব, ভারত এবং ইন্দোনেশিয়া যুক্তরাজ্য থেকে অস্ত্র আমদানি করে৷

মঙ্গলবার জার্মানির ‘ডি ভেল্ট' পত্রিকার একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৬ সালের প্রথম ছয় মাসে জার্মানির অস্ত্র রপ্তানি বেশ বেড়েছে৷ প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৫ সালের প্রথম ছয় মাসে যেখানে তিন দশমিক ৪৬ বিলিয়ন ইউরোর অস্ত্র রপ্তানি হয়েছিল, এ বছর একই সময়ে সেখানে চার দশমিক তিন বিলিয়ন ইউরোর অস্ত্র রপ্তানি করেছে জার্মানি৷

এর দু'দিন আগে ‘ডি ভেল্ট' আরেক প্রতিবেদনে জার্মানির অর্থ মন্ত্রণালয়কে উদ্ধৃত করে জানিয়েছিল, ২০১৫ সালে দেশটি আগের বছরের চেয়ে প্রায় দ্বিগুণ অস্ত্র রপ্তানি করেছে৷ জনপ্রিয় সংবাদপত্রটি আরো দাবি করে, গত বছর অস্ত্র রপ্তানিতে চলতি শতাব্দীর সর্বোচ্চ সীমা ছাড়িয়েছে জার্মানি৷

জার্মান অর্থমন্ত্রী সিগমার গাব্রিয়েল অবশ্য দাবি করেছেন, অস্ত্র রপ্তানির বিষয়ে জার্মান সরকার সতর্ক৷ তিনি এ-ও জানান, এখন যে চালানগুলো যাচ্ছে সেগুলোর অনুমোদন দিয়েছিল সাবেক সরকার৷

Infografik Waffenexport Deutschland 2014 2015 Englisch

তবে ‘ডি ভেল্ট'-এর দেয়া তথ্য অনুযায়ী, ২০১৬ সালের প্রথমার্ধে ছয় হাজার চারশ'টি অস্ত্রের চালান অনুমোদন পেয়েছে, যার মধ্যে চার হাজার পাঁচশ'টিই ইইউ, ন্যাটো বা ন্যাটোর মিত্রদেশসংশ্লিষ্ট৷

জার্মানির জণপ্রিয় দৈনিকটি আরো জানায়, সার্বিকভাবে অস্ত্র রপ্তানি বাড়লেও চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসে ক্ষুদ্র অস্ত্রের রপ্তানি কমেছে৷ গত বছরের প্রথম ছয় মাসে যেখানে ১৬ দশমিক ৪ মিলিয়ন ইউরোর এমন অস্ত্র রপ্তানি হয়েছিল, সেখানে এ বছর তা কমে হয়েছে ১২ দশমিক ৪ মিলিয়ন ইউরো৷

এর মধ্যে আট দশমিক দুই মিলিয়ন ইউরোর ক্ষুদ্র অস্ত্রই গিয়েছে জার্মানির রাজনৈতিক ও সামরিক মিত্র দেশ, তৃতীয় বিশ্বের অস্ত্র রপ্তানিকারক দেশ এবং ইরাকের কুর্দি শাসিত অঞ্চলে৷

০১. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র

বিশ্বের সবচেয়ে বেশি অস্ত্র রপ্তানি করা দেশটি হচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র৷ গত পাঁচ বছরে বিক্রি হওয়ায় অস্ত্রের ৩৩ শতাংশ সরবরাহ করেছে সেদেশ৷ গত কয়েক বছরে দেশটির অস্ত্র বিক্রির পরিমাণ বেড়েছে৷ সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং তুরস্ক এ সব অস্ত্রের মূল ক্রেতা৷

০২. রাশিয়া

বিশ্বের অপর পরাশক্তি রাশিয়ার দখলে আছে আন্তর্জাতিক অস্ত্র বাজারের ২৫ শতাংশ৷ দেশটিতে উৎপাদিত অস্ত্রের মূল ক্রেতা ভারত৷ চীন এবং ভিয়েতনামও রাশিয়ার কাছ থেকে অস্ত্র কিনছে নিয়মিত৷

০৩. চীন

পরিমাণের দিক থেকে যুক্তরাষ্ট্র এবং রাশিয়ার কাছাকাছি না হলেও তিন নম্বরে অবস্থান করছে চীন৷ বিশ্বের অস্ত্র বাজারের ৫ দশমিক নয় শতাংশ তাদের দখলে৷ ক্রেতা পাকিস্তান, বাংলাদেশ এবং মিয়ানমার৷

০৪. ফ্রান্স

চীনের পরেই ফ্রান্সের অবস্থান, গত কয়েক বছরে বিক্রি হওয়া অস্ত্রের ৫ দশমিক ছয় শতাংশ তৈরি করেছে সেদেশে৷ তবে লক্ষণীয় হলো, ফ্রান্সের অস্ত্র রপ্তানির পরিমান আগের চেয়ে কিছুটা কমেছে৷ মূলত মরক্কো, চীন এবং মিশর সেদেশ থেকে অস্ত্র আমদানি করে৷

০৫. জার্মানি

জার্মানির অস্ত্র রপ্তানির পরিমাণ সিপ্রির হিসেবে গত দশকের তুলনায় অনেক কমেছে৷ বর্তমানে আন্তর্জাতিক বাজারের ৪ দশমিক সাত শতাংশ তাদের দখলে আছে৷ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইসরায়েল এবং গ্রিস জার্মানির মূল ক্রেতা৷

০৬. যুক্তরাজ্য

অস্ত্র বিক্রির বাজারে যুক্তরাজ্যের অবস্থান ষষ্ঠ, সংখ্যার হিসেবে ৪ দশকিম পাঁচ শতাংশ৷ মূলত সৌদি আরব, ভারত এবং ইন্দোনেশিয়া যুক্তরাজ্য থেকে অস্ত্র আমদানি করে৷

০৭. স্পেন

স্পেনের দখলে আছে অস্ত্র বাণিজ্যের ৩ দশমিক পাঁচ শতাংশ৷ অস্ট্রেলিয়া, সৌদি আরব এবং তুরস্ক অস্ত্র আমদানি করে স্পেন থেকে৷

এসিবি/ডিজি (রয়টার্স, এএফপি)