নতুন দিল্লিতে বাঙালিদের বইমেলা

সমাজ

মন্দির প্রাঙ্গনে

যেহেতু আয়তনে ছোট, দিল্লির বাংলা বইয়ের মেলা বসে নতুন দিল্লি কালীবাড়ির প্রাঙ্গনে৷

সমাজ

মনীষী স্মরণ

সুসজ্জিত মেলা প্রাঙ্গনে বাঙলার বরেণ্য লেখকদের পাশাপাশি থাকে বিধানচন্দ্র রায়, জগদীশচন্দ্র বসুর মতো বিখ্যাত বাঙালিদের প্রতিকৃতি৷

সমাজ

ছোট পরিসরে

জায়গা কম, তাই খুব বড় বইয়ের স্টলের অবকাশ নেই৷ কিন্তু ছোট পরিসরেই সুন্দর করে সাজানো থাকে বইয়ের পশরা৷

সমাজ

বাংলাদেশের বই

বাঙালি বইয়ের মেলা, সেখানে বাংলাদেশের বই থাকবে না, তাও কী হয়!‌ দিল্লি বইমেলাতেও থাকে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব৷‌

সমাজ

সামাজিক দায়িত্ব

বই বিক্রির পাশাপাশি সামাজিক দায়িত্বও পালন করে দিল্লি বইমেলা৷ সারগাছির রামকৃষ্ণ মিশন আশ্রমের স্বনির্ভর গোষ্ঠীর তৈরি হাতের কাজের পশরা৷

সমাজ

ছবির পশরা

হাতে আঁকা জলরঙের ছবি৷ কলকাতা থেকে দুই নবীন শিল্পী দিল্লি বইমেলায় গিয়েছিলেন নিজেদের ছবির পশরা নিয়ে৷

সমাজ

এবং বিরিয়ানি

বই তো থাকবেই, কিন্তু উদরপূর্তিরও ব্যবস্থা থাকতে হবে বাঙালির বইমেলায়৷ তাই কলকাতা থেকে বিরিয়ানিও!‌

সমাজ

বিচিত্রানুষ্ঠান

বইমেলার লাগোয়া মঞ্চে বিকেল থেকেই জমে ওঠে সাহিত্য বিষয়ক আলোচনা, তর্ক-বিতর্কের আসর, যার শেষ হয় গানের অনুষ্ঠানে৷

সমাজ

বিক্রি কম

কিন্তু এত উদ্যোগ সত্ত্বেও বাংলা বইয়ের বিক্রি কমছে, বলছেন মেলায় উপস্থিত প্রকাশকরা৷

ভারতের রাজধানী নতুন দিল্লিতে আন্তর্জাতিক বইমেলা হয় প্রতি বছর৷ কিন্তু আরও একটি বইমেলা হয় প্রবাসী বাঙালিদের উদ্যোগে, মূলত বাংলা বইয়ের সম্ভার নিয়ে৷ দেখুন ছবিঘরে...৷