‘বাচ্চা ছেলের গল্প শুনে লাভ কী?’

সমকামীদের ম্যাগাজিন ‘রূপবান’ সম্পাদক জুলহাজ মান্নান ও তার বন্ধু মাহবুব তনয় হত্যায় জড়িত পাঁচ জনকে চিহ্নিত করার দাবি করেছে পুলিশ৷ তবে জুলহাজ মান্নানের ভাই মিনহাজ মা্ন্নান মনে করেন, পুলিশের এসব কথা আসলে ‘বাচ্চা ছেলের গল্প’৷

গত বছরের ২৫ এপ্রিল সন্ধ্যায় ঢাকার কলাবাগান এলাকায় বাড়িতে ঢুকে সমকামীদের অধিকার বিষয়ক ম্যাগাজিন ‘রূপবান’ সম্পাদক জুলহাজ মান্নান ও তার বন্ধু মাহবুব তনয়কে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা৷ এলজিবিটি অধিকার কর্মী জুলহাজ সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনির আপন খালাতো ভাই এবং তিনি ইউএসএআইডিতে কর্মরত ছিলেন৷ আর মাহবুব তনয় ছিলেন নাট্যকর্মী৷ পাশাপাশি পিটিএ নামে একটি প্রতিষ্ঠানে নাট্য প্রশিক্ষক হিসেবে কাজ করতেন৷

আপনি কী ভাবছেন?

এখানে ক্লিক করুন ও আলোচনায় যোগ দিন

অডিও শুনুন 00:34
এখন লাইভ
00:34 মিনিট
বিষয় | 25.04.2017

‘‘আমরা তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছি’’

এক বছর হয়ে গেলেও হত্যাকাণ্ডে সরাসরি জড়িতদের এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ৷ মামলার তদন্তের অগ্রগতি নিয়ে ডয়চে ভেলের সঙ্গে কথা বলতে চাননি তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবির ইন্সপেক্টর বাহাউদ্দিন ফারুকী৷ তবে ডিবি’র উপ-কমিশনার মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘আমরা এরই মধ্যে দু'জনকে গ্রেপ্তার করেছি৷ তাদের একজন রশিদুন্নবী আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে৷ আর তার জবানবন্দি ধরে হত্যাকাণ্ডে সরাসরি জড়িত পাঁচজনকে চিহ্নিত করেছি৷’’

তবে তাদের কাউকেই এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ৷ আর তারা কি দেশে, না দেশের বাইরে সে সম্পর্কেও নিশ্চিত হওয়া যায়নি৷ ডিবি'র উপ-কমিশনার বলেন, ‘‘আমরা তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছি৷ গ্রেপ্তার না এই মামলার তদন্ত শেষ করা যাবে না৷ আশা করি, গ্রেপ্তার করতে পারব৷’’

তুরস্ক

১৮৫৮ সালে অটোমান সাম্রাজ্য সমকামিতাকে বৈধতা দেয়৷ এরপর তুরস্ক স্বাধীন হলে সেই আইন বলবৎ রাখে৷ তবে সে দেশের সংবিধানে সমকামীদের জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তা বিধানের ব্যবস্থা না থাকায় সরকারের পক্ষ থেকে যেমন তেমনি সামাজিকভাবেও সমকামীদের এখনও বৈষম্যের শিকার হতে হয়৷

মালি

পশ্চিম আফ্রিকার এই দেশটির সংবিধানে সমকামী কর্মকাণ্ড নিষিদ্ধ করা হয়নি৷ তবে দেশটির প্রায় ৯০ শতাংশ মানুষ সমকামিতা পছন্দ করে না৷ তাই বৈধ হলেও মালির সমকামীরা বেশ ভালোই বৈষম্যের শিকার হন৷

জর্ডান

১৯৫১ সালে দেশটিতে সমকামিতাকে বৈধতা দেয়া হয়৷ অন্যান্য মুসলিম প্রধান দেশের তুলনায় সেখানকার সমকামীরা বেশ ভালোই আছে৷ সরকারও আইন করে সমকামীদের ‘অনার কিলিং’-এর হাত থেকে রক্ষা করেছে৷

ইন্দোনেশিয়া

বিশ্বের সবচেয়ে বেশি মুসলমানের বাস এই দেশটিতে৷ সেখানকার আইনে সমকামিতাকে অপরাধ বলে গণ্য করা হয়নি৷ ২০০৩ সালে একবার সেরকম উদ্যোগ নেয়া হলেও সেটি ব্যর্থ হয়৷

আলবেনিয়া

দক্ষিণ-পূর্ব ইউরোপের এই দেশটিতে সমকামিতা বৈধ৷ এমনকি আইন করে সমকামীদের বৈষম্যের হাত থেকে বাঁচানোর চেষ্টা করা হয়েছে৷

বাহরাইন

১৯৭৬ সালে সেখানে সমকামিতাকে আইনগত বৈধতা দেয়৷ তবে দেশটিতে এখনও প্রকাশ্যে ছেলেরা মেয়েদের, কিংবা মেয়েরা ছেলেদের পোশাক পরতে পারে না৷

ফিলিস্তিন (পশ্চিম তীর)

পশ্চিম তীরের জর্ডান অংশে ১৯৫১ সাল থেকে সমকামিতা বৈধ৷ তবে গাজাতে নয়৷ মজার ব্যাপার হচ্ছে, গাজায় যে আইনের কারণে সমকামিতা নিষিদ্ধ সেটা বলবৎ হয়েছে ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শাসনামলে৷

ইরাক

দেশটি সমকামিতাকে বৈধতা দিলেও বিষয়টি এখনও সেখানে ‘ট্যাবু’ হয়েই আছে৷

জুলহাজ ও তনয় হত্যাকাণ্ডের পরের দিন আল-কায়েদার পক্ষ থেকে ‘আনসার আল ইসলাম-৫’-এর নামে এর দায় স্বীকার করা হয়৷ এই ঘটনার তদন্তে গোয়েন্দা পুলিশ গত বছরের ১৫ মে কুষ্টিয়া থেকে শরীফুল ইসলাম শিহাব নামে আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের এক সদস্যকে গ্রেপ্তার করে৷ ১৭ অক্টোবর সায়েদাবাদ এলাকা থেকে রশিদুন্নবী ভুঁইয়া টিপু ওরফে রায়হান ওরফে রাসেলকে গ্রেপ্তার করা হয়৷

তদন্ত সূত্র জানায়, দু'জনের মধ্যে রশিদুন্নবী আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে৷ সে নিজে আরেক ব্লগার নাজিমুদ্দিন সামাদ হত্যাকাণ্ডে সরাসরি অংশ নিলেও জুলহাজ-তনয় হত্যার সঙ্গে সরাসরি অংশ নেয়নি৷ তবে হত্যাকারীদের প্রশিক্ষণ দিয়েছিল৷ আর গ্রেপ্তার হওয়া শিহাব অস্ত্রের যোগানদাতা ছিল বলে জানিয়েছেন তদন্ত সংশ্লিষ্ট গোয়েন্দা পুলিশের একজন কর্মকর্তা৷

তদন্ত সংস্থার দাবি, তাদের কাছ থেকেই জুলহাজ-তনয় হত্যাকাণ্ডে সরাসরি জড়িত পাঁচ জনের নাম জানা গেছে৷ কিন্তু ওই পাঁচজন আটক না হওয়া পর্যন্ত তদন্তের নতুন আর কোনো অগ্রগতি আশা করা যায় না৷

অডিও শুনুন 01:43
এখন লাইভ
01:43 মিনিট
বিষয় | 25.04.2017

‘‘রাস্তা থেকে দু'জন ধরলেই হয় না, প্রমাণ করতে হয়’’

নিহত জুলহাজ মান্নানের ভাই মিনহাজ মান্নান অবশ্য পুলিশের এই তদন্তে হতাশা প্রকাশ করেছেন৷ তিনি ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘আমরা পুরোপুরি হতাশ৷ এখনো হত্যাকণ্ডে জড়িত কাউকে পুলিশ গ্রেপ্তার করতে পারেনি৷ আমাদের তদন্তের কোনো অগ্রগতিও জানায়নি পুলিশ৷’’

পাঁচজন চিহ্নিত হওয়া প্রসঙ্গে তাঁর মন্তব্য, ‘‘আমাদের বাচ্চা ছেলের গল্প বলে কী লাভ! এই গল্প শুনে আমাদের কী লাভ হবে৷ আমরা তো বাচ্চা না৷ রাস্তা থেকে দু'জন ধরলেই হয় না৷ প্রমাণ করতে হয়৷ এটা এত সহজ নয় যে, বলে দিলেই হলো৷ কারা জড়িত, কিভাবে জড়িত তা তো প্রমাণ করতে হবে৷ কাউকে এক বছরে ধরতেই পারলো না!’’

পুলিশের ধীর গতিতে তদন্তের কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘‘এত জটিল বিষয়ে কথা বলে আমি কি আমার নিজের প্রাণ হারাব নাকি?’’

ভিডিও দেখুন 02:24
এখন লাইভ
02:24 মিনিট
মিডিয়া সেন্টার | 25.04.2017

চেচনিয়ায় সমকামীদের নির্যাতন কেন্দ্র

এদিকে নানা পর্যায়ে কথা বলে জানা গেছে, জুলহাজ-তনয় হত্যাকাণ্ডের পর বাংলাদেশে এলজিবিটি অধিকার সংক্রান্ত তৎপরতা থমকে গেছে৷ যারা সক্রিয় ছিলেন তাদের একাংশ দেশের বাইরে চলে গেছেন৷ যারা আছেন তারা এখন আর প্রকাশ্য কোনো তৎপরতা চালাচ্ছেন না৷

প্রিয় পাঠক, এই বিষয়ে আপনি কিছু বলতে চাইলে জানান নীচে মন্তব্যের ঘরে...

ধী-এর গল্প

কার্টুন চরিত্রের নাম ধী৷ মফস্বলের এক তরুণী যে কিনা অন্য এক নারীর প্রেমে পড়েছেন, তাকে নিয়েই মূলত সাজানো হয়েছে চরিত্রটি৷ বাংলাদেশে সমকামিতা নিষিদ্ধ৷ আর এধরনের কমিকও এই প্রথম প্রকাশ করা হলো৷

সহায়তায় ‘বয়েজ অফ বাংলাদেশ’

সমকামী পুরুষদের গ্রুপ ‘বয়েজ অফ বাংলাদেশ’ ‘ধী-এর গল্প’ নিয়ে ফেসবুকে প্রচারণা চালাচ্ছে৷ ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে আগতদের মধ্যে কমিকটির ফ্রি কপিও বিতরণ করা হয়৷

টুইটারে প্রজেক্ট ধী

সমকামীদের অধিকারের বিষয়ে জনসচেতনতা তৈরিতে ধী প্রকল্পের উল্লেখযোগ্য অনলাইন উপস্থিতি রয়েছে৷ ফেসবুক, টুইটার এবং ইন্সটাগ্রামে তাদের প্রোফাইল রয়েছে৷ টুইটার অ্যাকাউন্টটি অবশ্য তেমন সক্রিয় নয়৷

সমকামীদের যেভাবে দেখা হয়

বাংলাদেশে সমকামীদের সম্পর্কে সাধারণ মানুষের অবস্থান তুলে ধরা হয়েছে কার্টুনটিতে৷

সচেতনতা সৃষ্টির উদ্যোগ

চলতি বছরের এপ্রিলে ধী প্রকল্পের উদ্যোগে ‘টিম বিল্ডিং’ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়৷ এই টুইটটিতে সেই কর্মসূচির কিছু ছবি দেখা যাচ্ছে৷

ইন্সটাগ্রামে ধী

ধী প্রকল্পের ইন্সটাগ্রাম পাতাটির অবস্থাও টুইটারের মতো৷ এখন পর্যন্ত মাত্র পাঁচটি ছবি শেয়ার করা হয়েছে সেখানে৷

শাস্তিযোগ্য অপরাধ

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে সমকামিতা শাস্তিযোগ্য অপরাধ৷ সমলিঙ্গের সঙ্গে যৌনকর্মে লিপ্ত হলে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড পর্যন্ত দেয়ার বিধান রয়েছে৷