শরণার্থীদের ইউরোপে আসা বন্ধ হবে?

ব্রাসেলসের বৈঠক কি ইউরোপের শরণার্থী সংকট নিরসনের পথের সন্ধান দেবে? আঙ্গেলা ম্যার্কেল পারবেন ইইউ দেশগুলোর সম্মিলিত প্রয়াসে সাফল্য আনার কৌশলে সফল হতে? শরণার্থীদের ইউরোপে প্রবেশ কি বন্ধ হতে চলেছে?

সোমবার ব্রাসেলসে ইউরোপীয় ইউনিয়নের বৈঠক শুরুর আগে থেকেই জমে উঠেছে এ সব নিয়ে আলোচনা৷ বৈঠকে ইইউ-র ২৮টি দেশের প্রতিনিধি ছাড়াও থাকছেন তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী আহমেদ দাভুতোগলু৷

আপনি কী ভাবছেন?

এখানে ক্লিক করুন ও আলোচনায় যোগ দিন

বৈঠক শুরুর আগে জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের সঙ্গে শরণার্থী সংকট এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছেন ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টুস্ক৷

ইইউ নেতাদের শরণার্থী সংকট নিয়ে আলোচনায় বসার আগেই অবশ্য আসন্ন বৈঠকের কর্মসূচি এবং সম্ভাব্য সিদ্ধান্ত নিয়ে আলোচনা-পর্যালোচনা শুরু হয়ে গেছে৷ বার্তাসংস্থাগুলো জানাচ্ছে, সোমবারের বৈঠকে বলকান অঞ্চল দিয়ে শরণার্থীদের ইউরোপে প্রবেশ করার পথগুলো বন্ধ করার ঘোষণা আসতে পারে৷

মূলত তুরস্ক থেকে সাগর পথে গ্রিস হয়ে জার্মানি ও অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ স্ক্যানডিনেভিয়ান দেশগুলোতে প্রবেশ করতে গিয়ে অভিবাসনপ্রত্যাশীর মৃত্যু থামাতেই এই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানা গেছে৷ সোমবারের বৈঠকের আগেও ২৫ জন অভিবাসনপ্রত্যাশীর করুণ মৃত্যু হয়েছে৷ নৌকা ডুবে মারা যাওয়া ২৫ জনের মধ্যে ১০ জনই শিশু৷

ইইউ-এর পক্ষ থেকে বলকান অঞ্চল হয়ে ইউরোপের ধনী দেশগুলোতে প্রবেশের পথ বন্ধ করার বিষয়ে অবশ্য ইইউ-র পক্ষ থেকে এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানানো হয়নি৷ তবে এএফপি-কে দু'জন কূটনীতিক জানিয়েছেন, এমন সিদ্ধান্ত মোটামুটি চূড়ান্ত৷

এদিকে গ্রিসের প্রধানমন্ত্রী আলেক্সিস সিপ্রাস তাঁর দেশ থেকে দ্রুত অভিবাসনপ্রত্যাশীদের সরিয়ে নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন৷ রবিবার তিনি ইইউ-র প্রতি এ বিষয়ে জরুরি পদক্ষেপ নেয়ার অনুরোধ জানান৷

গত সেপ্টেম্বরেই গ্রিসে আশ্রয় নেয়া অভিবাসনপ্রত্যাশীদের বড় একটা অংশকে তাদের দেশে ফিরিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিলেও গত পাঁচমাসে মাত্র ৭০০ অভিবাসনপ্রত্যাশীকে ফেরানো সম্ভব হয়েছে৷ অথচ প্রতিদিন সিরিয়া ও অন্যান্য দেশ থেকে গড়ে অন্তত দু'হাজার নতুন অভিবাসনপ্রত্যাশী আসছে৷

শরণার্থীদের জন্য নিত্যদিনের বিল পরিশোধ অনেক সমস্যার মধ্যে একটি সমস্যা৷ তারা তাদের বেকার জীবনের অধিকাংশ সময় কাটান ক্যাফেতে বসে৷ অনেকেই সাধারণ স্বাস্থ্য সেবাও পান না৷ জার্মান মেডিক্যাল শিক্ষার্থী লিয়া ভিল্মসেন সেখানে অনেক শরণার্থীকে বিনা খরচায় চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন৷

শরণার্থীদের জন্য কমিউনিটি সেন্টার তৈরির লক্ষ্যে একটি পরিত্যাক্ত ভবন সংস্কার করছেন ইউনিয়ন আয়োজক ইয়ালচিন ইয়ানিক৷ তিনি বলনে, ‘‘আমি শরণার্থীদের সেভাবে সহায়তা করছি, যেভাবে একসময় শ্রমিকদের সহায়তা করতাম৷’’

সোমবার ব্রাসেলসে ইউরোপীয় ইউনিয়নের বৈঠক শুরুর আগে থেকেই জমে উঠেছে এ সব নিয়ে আলোচনা৷ বৈঠকে ইইউ-র ২৮টি দেশের প্রতিনিধি ছাড়াও থাকছেন তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী আহমেদ দাভুতোগলু৷

বৈঠক শুরুর আগে জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের সঙ্গে শরণার্থী সংকট এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছেন ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টুস্ক৷

ইইউ নেতাদের শরণার্থী সংকট নিয়ে আলোচনায় বসার আগেই অবশ্য আসন্ন বৈঠকের কর্মসূচি এবং সম্ভাব্য সিদ্ধান্ত নিয়ে আলোচনা-পর্যালোচনা শুরু হয়ে গেছে৷ বার্তাসংস্থাগুলো জানাচ্ছে, সোমবারের বৈঠকে বলকান অঞ্চল দিয়ে শরণার্থীদের ইউরোপে প্রবেশ করার পথগুলো বন্ধ করার ঘোষণা আসতে পারে৷

মূলত তুরস্ক থেকে সাগর পথে গ্রিস হয়ে জার্মানি ও অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ স্ক্যানডিনেভিয়ান দেশগুলোতে প্রবেশ করতে গিয়ে অভিবাসনপ্রত্যাশীর মৃত্যু থামাতেই এই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানা গেছে৷ সোমবারের বৈঠকের আগেও ২৫ জন অভিবাসনপ্রত্যাশীর করুণ মৃত্যু হয়েছে৷ নৌকা ডুবে মারা যাওয়া ২৫ জনের মধ্যে ১০ জনই শিশু৷

ইইউ-এর পক্ষ থেকে বলকান অঞ্চল হয়ে ইউরোপের ধনী দেশগুলোতে প্রবেশের পথ বন্ধ করার বিষয়ে অবশ্য ইইউ-র পক্ষ থেকে এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানানো হয়নি৷ তবে এএফপি-কে দু'জন কূটনীতিক জানিয়েছেন, এমন সিদ্ধান্ত মোটামুটি চূড়ান্ত৷

এদিকে গ্রিসের প্রধানমন্ত্রী আলেক্সিস সিপ্রাস তাঁর দেশ থেকে দ্রুত অভিবাসনপ্রত্যাশীদের সরিয়ে নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন৷ রবিবার তিনি ইইউ-র প্রতি এ বিষয়ে জরুরি পদক্ষেপ নেয়ার অনুরোধ জানান৷

গত সেপ্টেম্বরেই গ্রিসে আশ্রয় নেয়া অভিবাসনপ্রত্যাশীদের বড় একটা অংশকে তাদের দেশে ফিরিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিলেও গত পাঁচমাসে মাত্র ৭০০ অভিবাসনপ্রত্যাশীকে ফেরানো সম্ভব হয়েছে৷ অথচ প্রতিদিন সিরিয়া ও অন্যান্য দেশ থেকে গড়ে অন্তত দু'হাজার নতুন অভিবাসনপ্রত্যাশী আসছে৷

অভিবাসনপ্রত্যাশীদের ফিরিয়ে দেয়ার বিষয়ে তুরস্কের সহযোগিতা চেয়ে আসছে ইইউ৷ অভিবাসীপ্রত্যাবাসন প্রকল্প বাস্তবায়নে তুরস্ককে ৩ বিলিয়ন ইউরো অনুদানের আশ্বাসও দিয়েছে ইউরোপীয় জোট৷

শরণার্থীদের দোকান, রেস্তোরাঁ

ইজমিরের বাসমানি জেলা মানব পাচারকারীদের বিরুদ্ধে অভিযানের এলাকা হিসেবে পরিচিত৷ সাম্প্রতিক সময়ে সেখানে শরণার্থীদের দোকান-পাটের সংখ্যা অনেক বেড়ে গেছে৷ অনেক সিরীয় এখানে বসবাস করেন৷ এদের অনেকে আবার তুর্কী বন্ধুদের নামে দোকান খোলেন, জানান রিলিফ সোসাইটির এক সদস্য৷

বেকার এবং অবহেলিত

শরণার্থীদের জন্য নিত্যদিনের বিল পরিশোধ অনেক সমস্যার মধ্যে একটি সমস্যা৷ তারা তাদের বেকার জীবনের অধিকাংশ সময় কাটান ক্যাফেতে বসে৷ অনেকেই সাধারণ স্বাস্থ্য সেবাও পান না৷ জার্মান মেডিক্যাল শিক্ষার্থী লিয়া ভিল্মসেন সেখানে অনেক শরণার্থীকে বিনা খরচায় চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন৷

দোভাষীর সহায়তা

দোভাষীর সহায়তায় শরণার্থীদের সঙ্গে কথা বলেন ভিল্মসেন৷ তাদের বাড়িতে গিয়ে চিকিৎসা করেন তিনি৷ ছবির শিশুটির শ্বাসপ্রশ্বাসে সমস্যা দেখা দিয়েছে৷ ভিল্মসেন মনে করেন, দু’টি ছোট্ট রুমে ১৪ জন মানুষ বসবাস করছেন৷ ফলে এই সমস্যা৷

পথশিশুরা

লাইফ জ্যাকেটের দোকানের পাশে খেলছে এক শিশু৷ ইজমিরে থাকা অধিকাংশ শরণার্থী শিশু কিশোর নিয়মিত স্কুলে যায় না৷ তারা বরং বাড়িভাড়া জোটাতে ছোটখাট কাজ করে৷

শরণার্থী শিবির তৈরি

শরণার্থীদের জন্য কমিউনিটি সেন্টার তৈরির লক্ষ্যে একটি পরিত্যাক্ত ভবন সংস্কার করছেন ইউনিয়ন আয়োজক ইয়ালচিন ইয়ানিক৷ তিনি বলনে, ‘‘আমি শরণার্থীদের সেভাবে সহায়তা করছি, যেভাবে একসময় শ্রমিকদের সহায়তা করতাম৷’’

নির্ভরশীল করা নয়

আরেক স্বেচ্ছাসেবী ক্রিস ডাউলিং জানান, শরণার্থীদের এমনভাবে সাহায্য করা হয় যাতে তারা সাহায্যের উপর পুরোপুরি নির্ভরশীল হয়ে না যান৷ তিনি বলেন, ‘‘আমাদের উদ্দেশ্য হচ্ছে তাদের সমাজের সঙ্গে একীভূত করা, তাদের অধিকার সম্পর্কে সচেতন করা এবং কাজে পেতে কিংবা নিজের মতো কিছু করতে সাহায্য করা৷’’

গৃহায়ন সমস্যা

মানবিক সাহায্য সংস্থা মার্সি কর্পস ইউরোপীয় অনুদানে চলে৷ সংস্থাটি সম্প্রতি ইজমিরে কাজ শুরু করেছে৷ মূলত শরণার্থীদের গৃহায়ন সমস্যা সমাধানে কাজ করে তারা৷

এসিবি/ ডিজি (এএফপি)

অভিবাসনপ্রত্যাশীদের জার্মানি ও স্ক্যানডিনেভিয়ার ধনী দেশগুলোতে প্রবেশের পথ বন্ধ করা কি উচিত হবে? প্রিয় পাঠক, নীচে আপনার মতামত জানান৷

সংশ্লিষ্ট বিষয়