সাব্বির ও মুশফিকের অর্ধশতকে ঘুরে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ

দ্বিতীয় টেস্টের প্রথমদিনে সাব্বির ও মুশফিকের অর্ধশতকে ভর করে ৬ উইকেটে ২৫৩ রান করেছে বাংলাদেশ৷ সাব্বির আউট হয়েছেন ৬৬ রানে৷ মুশফিক ৬২ ও নাসির ১৯ রানে অপরাজিত আছেন৷

ন্যাথান লায়নের স্পিনে ৮৫ রানে প্রথম চার ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে দিশেহারা পড়েছিল বাংলাদেশ দল৷ ৭৯ বছরের মধ্যে প্রথমবারের মতো অস্ট্রেলিয়া স্পিনারকে দিয়ে ম্যাচের প্রথম ইনিংসে বোলিং উদ্বোধন করেছে তারা৷ এর ফল বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ চারটি উইকেটের পতন৷ তামিম, ইমরুল, মুমিনুল, সৌম্যকে স্পিন ফাঁদে ফেলে আউট করেন লায়ন৷ তাঁর প্রথম শিকার বাংলাদেশের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল, যিনি ৯ রানে আউট হন৷ এরপর সৌম্য সরকার ৩৩ রানে লায়নের এলবিডাব্লিউ-এর ফাঁদে পা দেন৷ ইমরুল কায়েস মাত্র চার রান যোগ করে ফিরে যান৷ মুমিনুল হকের সংগ্রহ ৩৩ রান৷ এরপর অ্যাগারের বলে আউট হন সাকিব আল-হাসান৷ তাঁর সংগ্রহ ২৪ রান৷

Bangladesch Cricket | Bangladesch vs. Australien

সাব্বির আউট হন ৬৬ রানে

এরপরই দলের হাল ধরেন সাব্বির রহমান৷ তাঁকে সঙ্গ দিয়ে গেছেন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম৷ ইনিংসে বাংলাদেশকে প্রথম শত রানের জুটি এনে দিয়েছেন মুশফিকুর রহিম ও সাব্বির রহমান৷ তাদের ব্যাটে প্রথম ইনিংসে দুইশ ছাড়িয়ে যায় বাংলাদেশ৷ সিরিজে নিজের প্রথম অর্ধশতকে পৌঁছাতে পাঁচটি চার ও একটি ছক্কা হাঁকান মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান সাব্বির৷ দ্বিতীয় নতুন বলে বাংলাদেশের প্রতিরোধ ভাঙে অস্ট্রেলিয়া৷ বোলিংয়ে ফিরেই সাব্বির রহমানের উইকেটটি নেন বাংলাদেশের আতংক ন্যাথান লায়ন৷

সাব্বির আউট হওয়ার পর মুশফিককে সঙ্গ দিতে আসেন নাসির হোসেন৷ নাসির দিন শেষে ১৯ রানে অপরাজিত আছেন৷ সেইসঙ্গে বাংলাদেশের চতুর্দশ ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্টে হাজার রানের তালিকায় যোগ হল তাঁর নাম৷ ৭৭ রানে ৫ উইকেট নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার সেরা বোলার অফ স্পিনার লায়ন৷

Bangladesch Cricket | Bangladesch vs. Australien

অ্যাগারের বলে আউট হন সাকিব আল-হাসান

ঢাকা টেস্ট জিতে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে বাংলাদেশ৷ চট্টগ্রামে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে ২-০ ব্যবধানে সিরিজ জিততে চায় মুশফিকুর রহিমের দল৷ এমন আত্মবিশ্বাস নিয়েই আজ মাঠে নেমেছিল সাকিব-তামিমরা৷ টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় তারা৷

বাংলাদেশ দলে যোগ দিয়েছেন মুমিনুল হক, বাদ পড়েছেন শফিউল৷ দু'টি পরিবর্তন এসেছে অস্ট্রেলিয়া দলে৷ অজিরা খেলছে এক বিশেষজ্ঞ পেসার আর তিন স্পিনার নিয়ে৷ চোট পেয়ে দেশে ফিরে যাওয়া পেসার জশ হেইজেলউডের জায়গায় একাদশে এসেছেন বাঁহাতি স্পিনার স্টিভ ও'কিফ৷

খেলাধুলা

জানুয়ারি ৬-১০, ২০০৫, প্রতিপক্ষ জিম্বাবোয়ে: বাংলাদেশ ২২৬ রানে জয়ী

টাইগাররা প্রথমবারের মতো টেস্ট জয়ের স্বাদ পায় চট্টগ্রামে৷ ২০০৫ সালের জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত সেই ম্যাচে প্রথম ইনিংসে ৪৮৮ রান তোলে স্বাগতিকরা৷ আর দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে ৯ উইকেটে ২০৪ রান করে৷ প্রথম ইনিংসে জিম্বাবোয়ের স্কোর ছিল ৩১২ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ১৫৪ রান৷

খেলাধুলা

জুলাই ৯-১৩, ২০০৯, প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ: বাংলাদেশ ৯৫ রানে জয়ী

দেশের বাইরে বাংলাদেশ প্রথম টেস্ট জয়ের দেখা পায় ২০০৯ সালের ১৩ জুলাই৷ কিংসটাউনে সেই টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৯৫ রানে হারায় টাইগাররা৷

খেলাধুলা

জুলাই ১৭-২০, ২০০৯, প্রতিপক্ষ ওয়েস্টইন্ডিজ: বাংলাদেশ চার উইকেটে জয়ী

সেবার ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর ছিল সাফল্যে ঠাসা৷ দ্বিতীয় টেস্টে সেন্ট জর্জেসে স্বাগতিকদের হারায় টাইগাররা, সেবার জিতেছিল চার উইকেটে৷

খেলাধুলা

এপ্রিল ২৫-২৯, ২০১৩, প্রতিপক্ষ জিম্বাবোয়ে: বাংলাদেশ ১৪৩ রানে জয়ী

জিম্বাবোয়ের হারারেতে স্বাগতিকদের আবার ‘বধ’ করে টাইগাররা৷ প্রথম ইনিংসে ৩৯১ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৯ উইকেটে ২৯১ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশ৷ জবাবে প্রথম ইনিংসে ২৮২ আর দ্বিতীয় ইনিংসে ২৫৭ রানেই গুটিয়ে যায় জিম্বাবোয়ে৷

খেলাধুলা

অক্টোবর ২৫-২৭, ২০১৪, প্রতিপক্ষ জিম্বাবোয়ে: বাংলাদেশ তিন উইকেটে জয়ী

ঢাকায় বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট জয়৷ তিন দিনে শেষ হওয়া সেই টেস্টে শুরুতে ব্যাট করতে গিয়ে প্রথম ইনিংসে ২৪০ রান করে জিম্বাবোয়ে৷ আর দ্বিতীয় ইনিংসে তাদের সংগ্রহ ছিল ১১৪৷ অন্যদিকে, প্রথম ইনিংসে ২৫৪ আর দ্বিতীয় ইনংসে ৭ উইকেটে ১০৭ রান তুলে জিতে যায় স্বাগতিকরা৷

খেলাধুলা

নভেম্বর ৩-৭, ২০১৪, প্রতিপক্ষ জিম্বাবোয়ে: বাংলাদেশ ১৬২ রানে জয়ী

খুলনায় জিম্বাবোয়েকে হারায় বাংলাদেশ৷ সেই টেস্ট পাঁচ দিন পর্যন্ত গড়ালেও শেষমেশ তেমন একটা সুবিধা করতে পারেনি জিম্বাবোয়ে৷ ফলাফল স্বাগতিকদের ১৬২ রানের জয়৷

খেলাধুলা

নভেম্বর ১২-১৬, ২০১৪, প্রতিপক্ষ জিম্বাবোয়ে: বাংলাদেশ ১৮৬ রানে জয়ী

আবারো চট্টগ্রামে জিম্বাবোয়েকে হারায় টাইগাররা৷ সেবার ব্যবধান ছিল ১৮৬ রানের৷

খেলাধুলা

অক্টোবর ২৮-৩০, ২০১৬, প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ড: বাংলাদেশ ১০৮ রানে জয়ী

এখন পর্যন্ত বড় কোনো ক্রিকেট শক্তির বিরুদ্ধে বাংলাদেশের একমাত্র টেস্ট জয় এটি৷ ঢাকায় ইংল্যান্ডকে নাস্তানাবুদ করে টাইগাররা৷

খেলাধুলা

মার্চ ১৫-১৯, ২০১৭, প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা: বাংলাদেশ ৪ উইকেটে জয়ী

একদিকে টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের শততম ম্যাচে জয়, অন্যদিকে প্রথমবারের মত শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে জয়-দুই দিক দিয়েই ঐতিহাসিক বাংলাদেশের এই টেস্ট ম্যাচটি৷ পঞ্চম দিনে ৪ উইকেটে জয় নিশ্চিত করে টাইগাররা৷ ম্যাচ সেরা হয়েছেন তামিম ইকবাল৷

খেলাধুলা

আগস্ট ২৭-৩০, ২০১৭, প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া: বাংলাদেশ ২০ রানে জয়ী

প্রথমবারের মত অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে বাংলাদেশ ইতিহাস গড়ে৷ এটা ছিল সাকিব ও তামিমের ৫০তম টেস্ট। সাকিব মোট ১০ উইকেট নিয়ে এবং তামিম দুই ইনিংসেই অর্ধশত করে স্মরণীয় করে রাখলেন এই টেস্টকে৷ ম্যাচ সেরা সাকিব আল হাসান৷ দ্রষ্টব্য: ইএসপিএন ক্রিকইনফো থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী ছবিঘরটি তৈরি করা হয়েছে৷

এপিবি/এসিবি