অপ্রাপ্তবয়স্ক উদ্বাস্তুদের বয়স নির্ধারণের মেডিকেল পরীক্ষা

জার্মানিতে উদ্বাস্তুদের বয়স নির্ধারণের জন্য সাধারণত যুবকল্যাণ কর্মকর্তাদের মতের উপর নির্ভর করা হয়ে থাকে৷ এক জার্মান আদালত শীঘ্রই কর্তৃপক্ষকে বাধ্যতামূলক মেডিকেল টেস্টের নির্দেশ দিতে পারেন৷

বৃহস্পতিবার জার্মানির ফেডারাল প্রশাসনিক আদালত সিদ্ধান্ত নেবে, তরুণ উদ্বাস্তুদের বয়স নির্ধারণের জন্য নিয়মিতভাবে মেডিকেল টেস্ট ব্যবহার করা হবে কিনা৷ এক আফগান উদ্বাস্তু শুধু চোখের দেখায় তাঁকে প্রাপ্তবয়স্ক বলে নির্ধারণ করার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন৷

ফেডারাল আইন অনুযায়ী, জার্মানিতে আগত অভিভাবকহীন অপ্রাপ্তবয়স্ক উদ্বাস্তুদের দেখাশোনা করে স্থানীয় যুবকল্যাণ অধিকার৷ যুবকল্যাণ কার্যালয়গুলি সংশ্লিষ্ট উদ্বাস্তুর বয়স নির্ধারণ ও নিশ্চিত করার জন্য দু'জন বিশেষজ্ঞকে নিয়োগ করে, যারা চোখে দেখে উদ্বাস্তুদের বয়স আন্দাজ করার চেষ্টা করেন৷ বয়স নিয়ে সন্দেহ দেখা দিলে যুবকল্যাণ কার্যালয় মেডিকেল টেস্ট করার নির্দেশ দিতে পারে৷

মামলায় যে প্রশ্নটি তোলা হয়েছে, সেটি হলো: তথাকথিত ‘‘চাক্ষুষ পরীক্ষা''একমাত্র সেই সব ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য কিনা, যাদের দেখে স্পষ্টভাবে বোঝা যায় যে, তারা প্রাপ্ত- কিংবা অপ্রাপ্তবয়স্ক৷

জার্মানিতে আসার আগে আপনার যা জানা প্রয়োজন

কাজের অনুমতি ছাড়া কাজ নয়

মধ্যপ্রাচ্য এবং আফ্রিকায় এটা বৈধ হলেও জার্মানিতে কাজের অনুমতি ছাড়া কাজ করা আইনের দৃষ্টিতে অবৈধ৷ কেউ যদি অবৈধভাবে কাজ করা অবস্থায় ধরা পড়ে, তাহলে তার জরিমানা, এমনকি জেলও হতে পারে৷

জার্মানিতে আসার আগে আপনার যা জানা প্রয়োজন

কর অবশ্যই প্রদান করতে হবে

জার্মানিতে কর প্রদানের নিয়মকানুন বেশ জটিল৷ তাসত্ত্বেও কর প্রদান না করা এখানে অবৈধ৷ আইন অনুযায়ী, এটা সমাজের বিপরীতে এক ধরনের চুরি৷ কর প্রদান এক ধরনের দায়িত্ব, যেমনটা ট্যাক্স প্রদান৷

জার্মানিতে আসার আগে আপনার যা জানা প্রয়োজন

শিশুদের প্রতি জোর খাটানো যাবে না

শিশুদের আঘাত করা জার্মানিতে শাস্তিযোগ্য অপরাধ৷ বাড়ি কিংবা স্কুল কোথাও শারীরিক শাস্তি গ্রহণযোগ্য নয়৷

জার্মানিতে আসার আগে আপনার যা জানা প্রয়োজন

শিশুদের অবশ্যই স্কুলে যেতে হবে

স্কুল বয়সি শিশুরা শুধু বাসায় বসে থাকতে পারবে না, পারবে না কাজে যেতে৷ তাদের যেতে হবে স্কুলে৷ শিশুর বয়স ছয় বছর হলে তাকে অবশ্যই কোনো না কোনো স্কুলে নিবন্ধিত হতে হবে এবং নিয়মিত ক্লাসে যেতে হবে৷

জার্মানিতে আসার আগে আপনার যা জানা প্রয়োজন

বেশি শব্দ করা যাবে না!

এমনকি নিজের ঘরের মধ্যেও বেশি শব্দ করা যাবে না, যা আপনার প্রতিবেশীদের বিরক্ত করতে পারে৷ বিশেষ করে রাতের বেলা জার্মানিতে এদিকে বিশেষ খেয়াল রাখতে হয়৷

জার্মানিতে আসার আগে আপনার যা জানা প্রয়োজন

সুপারমার্কেটে দরকষার সুযোগ নেই

বাজারে দরকষাকষি বিশ্বের অনেক দেশেই গ্রহণযোগ্য এবং মানুষ তা উপভোগও করে৷ তবে জার্মানিতে সুপারমার্কেট কিংবা অধিকাংশ দোকানপাটে দরদামের সুযোগ নেই৷ দরাদরি করতে চাইলে অনলাইনে চেষ্টা করতে পারেন৷

জার্মানিতে আসার আগে আপনার যা জানা প্রয়োজন

পশুপ্রাণিকে খেতে দেবেন না!

জার্মানিতে অধিকাংশ প্রাণির মালিক রয়েছে কিংবা তারা বিশেষ আইনের আওতায় পরিচালিত৷ তাই প্রতিবেশির বেড়ালকে তাঁর অনুমিত ছাড়া খাওয়ানো খুব একটা বুদ্ধিমানের কাজ হবে না৷ আর বেড়ালটা যদি মালিকের চেয়ে আপনার প্রতি বেশি অনুগত হয়ে যায় তাহলে মালিক আপনার বিরুদ্ধে মামলাও ঠুকতে পারে!

জার্মানিতে আসার আগে আপনার যা জানা প্রয়োজন

সময়নিষ্ঠা – জার্মানিতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ

কোনো অ্যাপয়েনমেন্ট থাকলে সেখানে সময়মত যাওয়া এবং সর্বোপরি সময়ের প্রতি সচেতনতা জার্মানিতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ৷ দেরি করে কোথাও যাওয়া ঠিক নয়৷ আর যদি একান্ত দেরি হয় তাহলে যার সঙ্গে সাক্ষাতের কথা তাঁকে তা জানানোই নিয়ম৷

জার্মানিতে আসার আগে আপনার যা জানা প্রয়োজন

নিজের দূরত্ব বজায় রাখুন

অনেক সংস্কৃতিতে অন্যের বাচ্চাকে জড়িয়ে ধরা, চুমু দেয়া কিংবা উপহার দেয়া স্বাভাবিক ব্যাপার৷ তবে জার্মানিতে বিষয়টি তেমন নয়৷ বাচ্চার অভিভাবকের উপর এটা নির্ভর করে৷ তাই শিশুটা যদি বন্ধুত্বপূর্ণ আচরণও করে তবুও নিজের দূরত্ব বজায় রেখে তার সঙ্গে কথা বলুন৷

জার্মানিতে আসার আগে আপনার যা জানা প্রয়োজন

রাস্তায় গাড়ি পরিষ্কার নয়

অবশ্যই বাড়ির কাছে গাড়ি পরিষ্কার করাটা সাশ্রয়ী৷ তবে জার্মানিতে এটা নিষিদ্ধ৷ কারণ এতে পরিবেশের ক্ষতি হয়৷ তাই গাড়ি পরিষ্কার করতে চাইলে সেটি নির্দিষ্ট স্থানে নিয়ে যান৷ কিছু জায়গায় নিজ হাতে পরিষ্কারের সুযোগ আছে, কোথাও আছে স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থা৷ তাই পছন্দ আপনার৷

অন্যভাবে বলতে গেলে, যুবকল্যাণ দপ্তরের কর্মী আর উদ্বাস্তুরা যদি বয়স সম্পর্কে একমত হতে পারেন, একমাত্র সেক্ষেত্রেই মেডিকেল টেস্ট ব্যবহার করা হবে না৷ অন্য সব ক্ষেত্রে ফেডারাল সরকারের অনুমোদিত একটি মেডিকেল টেস্ট করা হবে৷

ফ্রাইবুর্গে এক ১৯ বছর বয়সের মেডিকেল ছাত্রী ও কান্ডেল গ্রামে এক ১৫ বছর বয়সের কিশোরীর হত্যাকাণ্ডের পর জার্মানিতে উদ্বাস্তুদের সঠিক বয়স একটি বিপুল বিতর্কিত বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে৷ উভয় ক্ষেত্রেই হত্যাকারী উদ্বাস্তুকে অপ্রাপ্তবয়স্ক বলে বিবেচনা করা হয় – যার কিছু কিছু আইনগত ও অন্যান্য সুবিধা আছে৷ অপ্রাপ্তবয়স্ক উদ্বাস্তুদের সাধারণ উদ্বাস্তু আবাসে না রেখে, যুব নিবাসে রাখা হয়; তারা শিক্ষা ও মানসিক চিকিৎসার বিশেষ সুযোগ পায়; তাদের পরিবারবর্গের জার্মানিতে আসা সহজ হয় এবং তাদের বহিষ্কার করা হয় না৷

মেডিকেল টেস্টের সমস্যা

মেডিকেল টেস্টও কিন্তু গাছের গুঁড়িতে কাঠের উপর বৃত্তাকার দাগগুলিকে গুনে গাছের বয়স নির্ধরাণ করার মতো সহজ-সরল নয়৷ অপরদিকে এ-ও সত্য যে, সংশ্লিষ্ট সুযোগসুবিধার আঁচ পেয়ে ইতিমধ্যে বহু তরুণ উদ্বাস্তু নিজেদের অপ্রাপ্তবয়স্ক বলে পাচার করার চেষ্টা করছেন৷ বলতে কি, উদ্বাস্তুদের বয়স নির্ধারণের ব্যাপারে এ যাবৎ খুবই গা ঢালা দিয়ে চলা হয়েছে, বলে একাধিক সরকারি কর্মকর্তার অভিমত৷

গত জানুয়ারি মাসে জার্মানির দক্ষিণপন্থি পপুলিস্ট রাজনৈতিক দল এএফডি সংসদে প্রস্তাব আনে যে, উদ্বাস্তুরা বয়স ভাঁড়ালে তাদের কারাদণ্ড দেওয়া উচিত৷ এছাড়া সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির বয়স সম্পর্কে সরকারি নথিপত্র পেশ না করতে পারলে, বাধ্যতামূলক মেডিকেল টেস্টের দাবি জানায় এএফডি৷

বয়স নিয়ে সন্দেহ দেখা দিলে চেহারা, শারীরিক বিকাশ, দাড়ি-গোঁফ ইত্যাদি দেখে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় – তবে যৌনাঙ্গ পরিদর্শন করা হয় না৷ এছাড়া দাঁত, হাড়গোড়, হাতের কবজি ও শ্রোণির এক্স-রে করে বয়স নির্ধারণ করা যেতে পারে৷ তা সত্ত্বেও মেডিকেল টেস্টে বয়স নির্ধারণে দু' থেকে তিন বছরের ভুল হতে পারে৷ অপরদিকে চিকিৎসার প্রয়োজনে ছাড়া কোনো ব্যক্তিকে এক্স-রে করা নিয়ে নৈতিক প্রশ্ন উঠতে পারে৷ সবচেয়ে বড় কথা, বয়স নির্ধারণ নিয়ে ক্রমেই আরো বেশি প্রযুক্তি সৃষ্টি হচ্ছে: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে হ্যান্ড স্ক্যানার ও জিন টেস্টের উদ্ভাবন করা হয়েছে, কিন্তু সে দু'টি সর্বাধুনিক পরীক্ষাও নাকি কোনো ব্যক্তির বয়স ১৮ বছর বা তার কম কিনা, তা নির্ভুলভাবে প্রমাণ করতে অক্ষম৷

নিকোলাস মার্টিন/এসি

অভিবাসীদের যৌন শিক্ষা দিচ্ছে জার্মানি

যৌনতা এক ‘নিষিদ্ধ’ বিষয়

আরবি, তুর্কি, ইংরেজি, জার্মানসহ মোট ১২টি ভাষায় যৌনতা বিষয়ক বিভিন্ন তথ্য এবং চিত্রলিপি প্রকাশ করেছে জার্মান সরকার৷ অভিবাসীদের নারী, পুরুষের দেহ সম্পর্কে স্বচ্ছ ধারণা দিতেই এই উদ্যোগ৷ কেননা, সরকার মনে করছে, তারা এমন অনেক দেশ থেকে এসেছে, যেখানে যৌনতা নিষিদ্ধ এক বিষয়৷ চলুন দেখে নেই সাইটটিতে ঠিক কী আছে৷

অভিবাসীদের যৌন শিক্ষা দিচ্ছে জার্মানি

বিভিন্ন যৌন সমস্যার সমাধান

মোট ছয়টি বিভাগে যৌনতা, যৌন মিলন, সম্ভোগের রকমফের, যৌনতা বিষয়ক অধিকারের কথা তুলে ধরা হয়েছে সাইটটিতে৷ তবে সবচেয়ে বেশি আলোচিত হচ্ছে ‘সেক্স’ বিভাগটি নিয়ে৷ এতে প্রথমবার সেক্স, কুমারিত্ব, যৌনাসন এবং বিভিন্ন যৌন সমস্যার সমাধান চিত্রলিপির মাধ্যমে ব্যাখা করা হয়েছে৷

অভিবাসীদের যৌন শিক্ষা দিচ্ছে জার্মানি

আকার গুরুত্বপূর্ণ নয়, যৌনাঙ্গচ্ছেদ নিষিদ্ধ

ওয়েবসাইটটির ‘বডি’ অংশে নারী-পুরুষের দেহের ধরন, যৌনাঙ্গ, বীর্য ইত্যাদি বিষয়ে বিস্তারিত ধারণা দেয়া হয়েছে৷ পুরুষাঙ্গের আকার বা গড়ন যে যৌন সুখের জন্য গুরুত্বপূর্ণ নয়, তা বিশেষভাবে উল্লেখ করা হয়েছে এই বিভাগে৷ রয়েছে নারীর যৌনাঙ্গচ্ছেদ যে ইউরোপে পুরোপুরি নিষিদ্ধ, সেই কথাও৷

অভিবাসীদের যৌন শিক্ষা দিচ্ছে জার্মানি

গর্ভধারণ ও যৌন মিলন

সন্তান জন্মদানের পুরো প্রক্রিয়া এই বিভাগে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হয়েছে৷ সাথে গর্ভধারণের পর কতদিন এবং কিভাবে যৌন সম্পর্ক অব্যাহত রাখা যায়, তা-ও জানানো হয়েছে৷ বলা হয়েছে, কেউ যদি ভুল করে গর্ভধারণ করেন, তাহলে চাইলে গর্ভপাত না করে বাচ্চাটি জন্মের পর দত্তক দেয়া যেতে পারে৷ তবে গর্ভপাতে কোনো বাধা নেই৷

অভিবাসীদের যৌন শিক্ষা দিচ্ছে জার্মানি

কনডম যেভাবে পরবেন

কখনো জানতে চেয়েছেন কনডম কী? ওয়েবসাইটটির এই বিভাগে কনডম ব্যবহারের উপায় চিত্রলিপিতে পরিষ্কারভাবে দেখানো হয়েছে৷ পাশাপাশি অনিরাপদ যৌন জীবনের ফলে নারী ও পুরুষের কী কী রোগ হতে পারে এবং কী করলে তা থেকে মুক্তি সম্ভব, সে কথাও জানানো হয়েছে৷

অভিবাসীদের যৌন শিক্ষা দিচ্ছে জার্মানি

সঙ্গীকে দোষ না দিয়ে কথা বলুন

হোক সে যৌন জীবন কিংবা যৌথ সম্পর্কের অন্য কোনো দিক, যে কোনো বিষয়ে সঙ্গীর সঙ্গে সময় নিয়ে খোলামেলা আলোচনার পরামর্শ দেয়া হয়েছে ওয়েবসাইটে৷ তবে আলোচনায় একে-অপরকে দোষ না দিয়ে বরং কার কী প্রত্যাশা সেদিকে গুরুত্ব দিতে বলা হয়েছে৷ প্রয়োজনে সমস্যা সমাধানে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেয়ার উপায়ও জানানো হয়েছে সাইটটিতে৷

অভিবাসীদের যৌন শিক্ষা দিচ্ছে জার্মানি

যৌনসম্মতির বয়স ১৮ বছর

জার্মানিতে ১৪ বা ১৫ বছরের একটি ছেলে বা মেয়ে একই বয়সের সঙ্গীর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক করতে পারে৷ কিন্তু সেই বয়সের একটি ছেলে বা মেয়ের সঙ্গে ১৬ বা তার বেশি বয়সের কেউ যৌন সম্পর্কে জড়ালে সেটা অপরাধ৷ এমনকি কম বয়সি সঙ্গী সম্মতি দিলেও৷ যৌন মিলনের জন্য নিরাপদ বয়স কমপক্ষে আঠারো৷

অভিবাসীদের যৌন শিক্ষা দিচ্ছে জার্মানি

অভিবাসীদের কি যৌন শিক্ষার দরকার আছে?

এই প্রশ্নটা অনেকেই করছেন সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে৷ এর মানে কি অভিবাসীরা যৌন মিলন সম্পর্কে অজ্ঞাত? এ সব প্রশ্নের জবাবে নির্মাতার জানিয়েছেন, বিশ্বের অনেক দেশে যৌনতা নিয়ে আলোচনা এক ‘নিষিদ্ধ বিষয়’৷ তাই দরকার এমন একটা সাইট৷ বাংলা ভাষাতেও এ রকম একটি সাইটের দরকার বলে ফেসবুকে লিখেছেন একাধিক বাংলা ব্লগার৷

অভিবাসীদের যৌন শিক্ষা দিচ্ছে জার্মানি

চিত্রলিপির ‘কৃষ্ণাঙ্গ পুরুষ, শেতাঙ্গ নারী’

ওয়েবসাইটটিতে প্রদর্শিত যৌন মিলনের কিছু চিত্রলিপিতে পুরুষকে কৃষ্ণবর্ণে এবং নারীকে শ্বেতবর্ণে দেখানো হয়েছে৷ আর এটা নিয়েও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে আপত্তি করেছেন অনেকে৷ কারো কারো মতে, শরণার্থী বা অভিবাসীদের যৌনশিক্ষা, যেমন কনডম পরানো শেখানোর মাধ্যমে আসলে বোঝানো হয়েছে যে, তারা কিছুই জানে না, যা একধরনের ‘বৈষম্যমূলক মনোভাব’৷

অভিবাসীদের যৌন শিক্ষা দিচ্ছে জার্মানি

যারা তৈরি করেছেন

বেলজিয়ামের একটি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার সহযোগিতা নিয়ে জার্মানির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যশিক্ষা কেন্দ্র ‘জানজু ডটডিই’ ওয়েবসাইটটি তৈরি করেছে৷ এ জন্য সময় লেগেছে তিন বছর৷ মূলত অভিবাসীদের বিভিন্ন প্রশ্ন এবং প্রয়োজনীয়তা যাচাই করে সাইটটি তৈরি করা হয়৷ তিন সপ্তাহ আগে প্রকাশের পর থেকে প্রতিদিন গড়ে ২০ হাজার মানুষ এটি ‘ভিজিট’ করছেন৷

আমাদের অনুসরণ করুন