ইউরোপকে নিয়ে উপহাস করলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট

শরণার্থী সমস্যার সমাধানের অংশ হিসেবে তুরস্কের সহায়তা চায় ইউরোপীয় ইউনিয়ন৷ বিষয়টি নিয়ে চলতি সপ্তাহে দুই পক্ষের মধ্যে আলোচনা হবে৷

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেচেপ তাইয়িপ এর্দোয়ান সোমবার ব্রাসেলসে প্রথমে ইইউ পার্লামেন্টের প্রেসিডেন্ট মার্টিন শুলৎস ও পরে ইইউ কমিশনের প্রধান জঁ-ক্লোদ ইয়ুংকারের সঙ্গে বৈঠক করবেন৷

বিশ্ব | 05.10.2015

এই বৈঠকের জন্য কিছু প্রস্তাবনা তৈরি করেছে ইইউ৷ জার্মান দৈনিক ‘ফ্রাঙ্কফুর্টার আলগেমাইনে সাইটুং' ও সরকারি টিভি চ্যানেল এআরডি জানিয়েছে, ইইউ ও তুরস্ক একটি ‘অ্যাকশন প্ল্যান' এর বিষয়ে প্রাথমিকভাবে সম্মত হয়েছে৷ তবে বিষয়টি নিয়ে সোমবার দুই পক্ষের মধ্যে আরও বিস্তারিত আলোচনা হবে৷ পরিকল্পনা অনুযায়ী, শরণার্থীদের দেখভাল করতে ইইউ তুরস্ককে ১০০ কোটিরও বেশি ইউরো দিতে পারে৷ শরণার্থীদের জন্য তুরস্কে ছয়টি শিবির তৈরি করা হবে, যেখানে প্রায় ২০ লক্ষ শরণার্থী থাকতে পারবে৷

তবে তুরস্ক ইতিমধ্যে ইইউ-র ১০০ কোটি ইউরোর প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে বলে জানিয়েছে ‘দ্য ইকোনমিস্ট'৷ এক প্রতিবেদনে তার কারণও খোঁজার চেষ্টা করেছে সাপ্তাহিক এই পত্রিকাটি৷

এদিকে, ব্রাসেলসের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হওয়ার আগে ইউরোপকে নিয়ে ‘উপহাস' করেন এর্দোয়ান৷ সিরিয়া ও ইরাক থেকে যাওয়া প্রায় ২০ লক্ষ শরণার্থীকে তুরস্কের আশ্রয় দেয়ার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘‘অথচ ইউরোপ তার চেয়েও কমসংখ্যক শরণার্থী নিয়ে যেন অস্বস্তির মধ্যে রয়েছে৷''

শরণার্থীরা সাধারণত তুরস্ক থেকে সাগর পাড়ি দিয়ে গ্রিসের বিভিন্ন দ্বীপে চলে যায়৷

Karte Flüchtlinge auf griechischen Inseln Englisch

ইইউ-র প্রস্তাব অনুযায়ী, এই সাগরে পাহারা বসানো হবে৷ শরণার্থীরা যাঁরা এই সাগর পাড়ি দেয়ার চেষ্টা করবেন, তাঁদের ধরে তুরস্কে ফেরত পাঠিয়ে দেয়া হবে৷ উদ্দেশ্য, গ্রিসে শরণার্থী সংখ্যা কমানো৷ কেননা শেঙেনভুক্ত দেশ হওয়ায় গ্রিস থেকেই শরণার্থীরা ইউরোপের বিভিন্ন দেশে চলে যাচ্ছে৷ ইতিমধ্যে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে আফ্রিকা ও মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ থেকে অনেক শরণার্থী গ্রিসে প্রবেশ করেছে৷

Infografik Flüchtlingszahlen: Tote und erfolgreich Ankommende im Mittelmeerraum

জেডএইচ/ডিজি (রয়টার্স, ডিপিএ)