উদ্বাস্তু সংকট নিয়ে একযোগে কাজ করবে ইইউ-তুরস্ক

উদ্বাস্তু সংকট নিরসনে তুরস্কের সঙ্গে কাজ করবে ইইউ৷ ব্রাসেলসে অনুষ্ঠিত এক সভায় সংকট মোকাবেলায় তুরস্ককে সহায়তা করার সিদ্ধান্তও নিয়েছে ইইউ৷ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমেও তাই এখন ব্রাসেলসে অনুষ্ঠিত গুরুত্বপূর্ণ এ বৈঠকের খবর৷

সব খবরের শিরোনামেই এসেছে শরণার্থী সংকট নিরসনে ইইউ-তুরস্কের দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করতে সম্মত হওয়ার কথা৷

ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টুস্ক জানিয়েছেন, ব্রাসেলসে গৃহীত সিদ্ধান্ত ইউরোপে অভিবাসী সংকট নিরসনে ভূমিকা রাখবে বলে তিনি ‘সতর্কভাবে আশাবাদী'৷

এ মুহূর্তে অন্তত ২০ লক্ষ শরণার্থী রয়েছে তুরস্কে৷ তাদের অনেকেই ইউরোপের আসার জন্য মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছেন৷ অভিবাসনপ্রত্যাশীদের ঢল নামায় ইউরোপে ইতিমধ্যে সংকটের আভাস দেখা দিয়েছে৷ এ অবস্থায় তুর্কিদের জন্য ইউরোপে আসার ভিসা পাওয়া আরো সহজ করার পাশাপাশি সে দেশে অবস্থানরত শরণার্থীদের জন্য তিন বিলিয়ন ইউরো পর্যন্ত বরাদ্দ করতে পারে ইইউ, কূটনীতিকরা জানিয়েছেন৷ তবে ডোনাল্ড টুস্ক এ-ও বলেছেন, ‘‘শরণার্থীর স্রোত কার্যকরভাবে নিয়ন্ত্রণ করা গেলই কেবল তুরস্কের সঙ্গে চুক্তিকে অর্থবহ বলা যাবে৷''

এদিকে শরণার্থী সংকট মোকাবিলায় ইইউ-র এই পদক্ষেপের দিনেই বুলগেরিয়ার সীমান্তে সেনাবাহিনীর গুলিতে নিহত হয়েছেন তুরস্ক থেকে আসা এক অভিবাসন প্রত্যাশী৷ বিবিসির খবর অনুযায়ী, সেনাবাহিনীর গুলিতে অভিবাসনপ্রত্যাশীর নিহত হওয়ার এই সংবাদ শোনার পরই ব্রাসেলসের বৈঠকস্থল ত্যাগ করেন বুলগেরিয়ার প্রধানমন্ত্রী বোয়কো বরিসভ৷

ইইউ-র বৈঠকে তুরস্ক থেকে ভিসা প্রাপ্তি সহজতর করার সিদ্ধান্তের দিনেই এক অভিবাসনপ্রত্যাশীর এভাবে নিহত হওয়ার ব্যাপারটি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমেও আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়েছে৷ কেউ কেউ মনে করছেন, এই ঘটনাই প্রমাণ করে ইইউ নিজেদের এলাকাকে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের যে খুব নিরাপদ বলে দাবি করে সেই দাবি হাস্যকর

সবচেয়ে কম শরণার্থী নেবে মাল্টা, সবচেয়ে বেশি জার্মানি

জার্মানির স্বস্তি

অনেক শরণার্থী এসেছে জার্মানিতে৷ অথচ ইউরোপীয় ইউনিয়নের বেশির ভাগ দেশ শরণার্থী নিতে নারাজ৷ এ অবস্থায় ইইউ-র সব সদস্য দেশকে কোটা অনুযায়ী শরণার্থী নিতে হবে – এমন দাবি জানিয়েছিল জার্মানি৷ মঙ্গলবারের বৈঠকে দাবি পূরণ হয়েছে৷ সংখ্যাগরিষ্ঠের ভোটে সিদ্ধান্ত হয়েছে ১ লাখ ২০ হাজার শরণার্থীকে ভাগ করে দেয়া হবে৷ জার্মানি নেবে ৩১ হাজার ৪৪৩ জন৷ বছর শেষে জার্মানিতে আগত মোট শরণার্থী ৮ লাখে হয়ে যেতে পারে৷

সবচেয়ে কম শরণার্থী নেবে মাল্টা, সবচেয়ে বেশি জার্মানি

জার্মানির পরই ফ্রান্স

কোটা অনুযায়ী শরণার্থী বণ্টনের দাবিতে ফ্রান্সও ছিল জার্মানির সঙ্গে৷ মঙ্গলবারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শরণার্থীর চাপটা তাদের ওপরও খুব কম পড়বে না৷ এই দফায় ২৪ হাজার ৩১ জন শরণার্থী নেবে ফ্রান্স৷ছবিতে হাঙ্গেরি সীমান্তের এক শরণার্থী শিশু৷

সবচেয়ে কম শরণার্থী নেবে মাল্টা, সবচেয়ে বেশি জার্মানি

চারটি দেশের ঘোর আপত্তি

পূর্ব ইউরোপের দেশগুলো শুরু থেকেই শরণার্থী নেয়ার বিপক্ষে৷ মঙ্গলবার হাঙ্গেরি, রোমানিয়া, চেক প্রজাতন্ত্র ও স্লোভাকিয়া শরণার্থী নেয়ার বিপক্ষে ভোট দেয়৷ ভোটের পর চেক প্রজাতন্ত্রের প্রধানমন্ত্রী বহুস্লাভ সবটকা বলেন, ‘‘এটা খুবই খারাপ সিদ্ধান্ত৷’’ সরাসরি আপত্তি জানালেও এখন রোমানিয়া ৪ হাজার ৬৪৬ জন, চেক প্রজাতন্ত্র ২ হাজার ৯৭৮ জন এবং স্লোভাকিয়া ১ হাজার ৫০২ জন শরণার্থী নেবে৷

সবচেয়ে কম শরণার্থী নেবে মাল্টা, সবচেয়ে বেশি জার্মানি

দায়িত্ব মনে করে শরণার্থী নেবে লুক্সেমবুর্গ

৫ লক্ষ ৬২ হাজার জনসংখ্যার দেশ লুক্সেমবুর্গও শরণার্থী নেবে৷ ছোট দেশ তাই মাত্র ৪৪০ জন নেবে তারা৷ তবে দেশটির সরকার মনে করে ইউরোপীয় ইউনিয়নের ঐক্য ধরে রাখতে সব সদস্য দেশের শরণার্থী নেয়াটা এখন কর্তব্যের পর্যায়ে পড়ে৷ এমনিতে ইউরোপীয় ইউনিয়নে ছোট দেশটির এখন বড় ভূমিকা পালন করাই স্বাভাবিক, কেননা, এ মুহূর্তে ইইউর সভাপতি দেশও লুক্সেমবুর্গ৷

সবচেয়ে কম শরণার্থী নেবে মাল্টা, সবচেয়ে বেশি জার্মানি

সবচেয়ে কম শরণার্থী নেবে মাল্টা

ইইউ অঞ্চলের আরেক ছোট দেশ মাল্টা৷ আয়তন মাত্র ৩১৬ বর্গ কিলোমিটার আর জনসংখ্যা ৪৪ হাজারের একটু বেশি৷ এমন ছোট দেশটিও ১৩৩ জন শরণার্থী নেবে৷

সবচেয়ে কম শরণার্থী নেবে মাল্টা, সবচেয়ে বেশি জার্মানি

আর যেসব দেশ শরণার্থী নেবে

ইইউ-র আরো কয়েকটি দেশও শরণার্থী নেবে৷ স্পেন নেবে ১৪ হাজার ৯৩১ জন, পোল্যান্ড ৯ হাজার ২৮৭ জন, নেদারল্যান্ডস ৭ হাজার ২১৪ জন, বেলজিয়াম ৪ হাজার ৫৬৪ জন, সুইডেন ৪ হাজার ৪৬৮ জন, অস্ট্রিয়া ৩ হাজার ৬৪০ জন, পর্তুগাল ৩ হাজার ৭৪ জন, ফিনল্যান্ড ২ হাজার ৩৮৮ জন, বুলগেরিয়া ১৬০০ জন, ক্রোয়েশিয়া ১ হাজার ৬৪ জন, লিথুয়ানিয়া ৭৮০ জন, স্লোভেনিয়া ৬৩১ জন, লাটভিয়া ৫২৬ জন, এস্তোনিয়া ৩৭৩ এবং সাইপ্রাস নেবে ২৭৪ জন শরণার্থী৷

সংকলন: আশীষ চক্রবর্ত্তী

সম্পাদনা: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

আমাদের অনুসরণ করুন