একাদশ জাতীয় নির্বাচন যেসব কারণে আলাদা

বাংলাদেশের এবারের জাতীয় নির্বাচনের আলাদা কিছু বৈশিষ্ট্য আছে৷ সেটা ভোটের আগে, ভোটগ্রহণ প্রক্রিয়া এবং ভোটের ফলাফলের মাধ্যমে স্পষ্ট হয়েছে৷ আর এখনো এই নির্বাচনের পরবর্তী প্রতিক্রিয়ায় তা আরো স্পষ্ট হচ্ছে, ক্রমশই৷

নব্বইয়ের গণঅভ্যুত্থানের পর এই প্রথম বাংলাদেশে কোনো দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলো৷ নির্বাচনের ফলাফলে দেখা গেল, বিএনপি তার নির্বাচনের ইতিহাসে সবচয়ে কম মাত্র পাঁচটি আসন পেয়েছে৷ ভোটের শতকরা হারের হিসাব এখনো চূড়ান্ত না হলেও, তা কোনেভাবেই শতকরা ৪-৫ ভাগের বেশি হবে না৷ অন্যদিকে এবার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হিসেবে বিএনপির অনেকেই জামানত হারাবেন৷ বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ভোটের ব্যবধান অবিশ্বাস্য রকমের বেশি৷

আপনি কী ভাবছেন?

এখানে ক্লিক করুন ও আলোচনায় যোগ দিন

সামরিক একনায়ক এরশাদ সরকারের পতনের পর ১৯৯১ সালে পঞ্চম জাতীয় সংসদ নির্বাচন হয় নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে৷ ঐ নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াত জয়ী হয়ে সরকার গঠন করে৷ কিন্তু ১৯৯৬ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের আয়োজন করে তখনকার ক্ষমতাসীন বিএনপি৷ সেই নির্বাচনে আওয়ামী লীগসহ অধিকাংশ রাজনৈতিক দল অংশ নেয়নি৷ ফলে ১৯৯৬ সালের সেই বিতর্কিত নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় আসা বিএনপি টিকে থাকতে পারেনি৷ আন্দোলনের মুখে বিএনপি সরকার পদত্যাগ করে জুন মাসে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে বাধ্য হয়৷ সেই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ জয়ী হয়ে সরকার গঠন করে৷

ওয়ান ইলেভেনের পট পরিবর্তনের পর, ২০০৮ সালের ডিসেম্বর মাসে, সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবারো ক্ষমতায় আসে আওয়ামী লীগ৷ কিন্তু আদালতের রায়ের আলোকে নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক বাদ দিয়ে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন করে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার৷ ঐ নির্বাচনে অংশ নেয়নি বিএনপি-জামাত জোট ও তাদের সমমনা রাজনৈতিক দলগুলি৷ তারা নির্বাচন প্রতিহতের ডাক দিলেও শেষ পর্যন্ত ব্যর্থ হয়৷ নির্বাচনে অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে  ৩০০ আসনের মধ্যে ১৫৩ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন৷ আর আওয়ামী লীগ টানা দ্বিতীয় মেয়াদে সরকার গঠন করে৷

একাদশ জাতীয় নির্বাচন নিয়ে ভোটাররা যা বললেন

আলী হোসেন

সত্তরোর্ধ আলী হোসেন জীবনে অনেক ভোট দেখেছেন, কিন্তু এবারের মতো ভোটের পরিবেশ জীবনে আর দেখেননি৷ জোর করে তাঁর ব্যালটে সিল মেরেছেন বুথের ভেতরে আগে থেকে অবস্থান করা অন্য একজন৷ শেষ বয়সে এসে হেনস্তা হওয়ার ভয়ে কিছুই বলতে পারেননি৷

একাদশ জাতীয় নির্বাচন নিয়ে ভোটাররা যা বললেন

এলিম মিয়া

ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী এলিম মিয়ার কেন্দ্রে ভোট হয়েছে ইভিএম পদ্ধতিতে৷ তিনি ৩০ জানুয়ারি সকালেই ভোট দিতে পেরেছেন৷ সকাল থেকেই কেন্দ্রে ভোটারদের দীর্ঘ সারিতে অপেক্ষমান দেখেছেন তিনি৷ ভোটের পরিবেশও তাঁর কাছে সুষ্ঠু মনে হয়েছে৷

একাদশ জাতীয় নির্বাচন নিয়ে ভোটাররা যা বললেন

জুনায়েদ অমি

জীবনের প্রথম ভোটটি দিতে পেরে খুবই আনন্দিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এই শিক্ষার্থী৷ ভোটের পরিবেশ বেশ ভালো বলে মনে হয়েছে তাঁর৷ তবে ভোট কেন্দ্রের আশপাশে ছাত্রলীগের কর্মীদের লাঠি হাতে উপস্থিতি এবং পুলিশের একপেশে ভূমিকা তাঁর ভালো লাগেনি৷

একাদশ জাতীয় নির্বাচন নিয়ে ভোটাররা যা বললেন

লামিয়া তাসনিম

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী লামিয়া তাসনিম এবারই প্রথম ভোট দিলেন৷ বিষয়টি নিয়ে খুব উত্তেজিত ছিলেন৷ তবে জাতীয় পরিচয়পত্র থাকার পরও নিজের ভোটকেন্দ্র খুঁজে বের করতে তাঁর দুপুর পর্যন্ত সময় লেগেছে৷ কেন্দ্রে গিয়ে দেখেন ফটক বন্ধ৷ জানানো হয়, মধ্যাহ্ণবিরতি চলছে৷ কিন্তু ভোটের সময় তো কেন্দ্রে কোনো বিরতি থাকার কথা নয়৷ তাই অনেক বিতণ্ডা করে শেষ পর্যন্ত ভেতরে ঢুকে নিজের ভোটটি দিতে পেরেছেন৷

একাদশ জাতীয় নির্বাচন নিয়ে ভোটাররা যা বললেন

মোহাম্মদ মামুন

খুব সকাল সকালই ভোট দিতে পেরেছেন তরুণ ভোটার মোহাম্মদ মামুন৷ ভোটের পরিবেশ নিয়েও তিনি বেশ সন্তুষ্ট৷

একাদশ জাতীয় নির্বাচন নিয়ে ভোটাররা যা বললেন

নূরুল্লাহ

বেসরকারি চাকরিজীবী নুরুল্লাহের দাবি, ঢাকার একটি কেন্দ্রে তিনি ভোট দিতে গিয়েছিলেন দুপুর ১২টার দিকে৷ গিয়ে দেখেন তাঁর ভোট এর আগেই দেয়া হয়ে গেছে৷ ফলে ভোট তো দিতে পারেনইনি, উলটে ভোটকেন্দ্রের এজেন্টরা তাঁর সঙ্গে নাকি দুর্ব্যবহার করেছেন৷ ভোট না দিয়েই তাই ফিরে এসেছেন তিনি৷

একাদশ জাতীয় নির্বাচন নিয়ে ভোটাররা যা বললেন

মো. শাহ জালাল

পিরোজপুরের ভোটার মোহাম্মদ শাহ জালাল দশম জাতীয় নির্বাচনে ভোট দিয়েছিলেন নৌকা মার্কায়৷ এবারও ভোট দিতে গিয়েছিলেন, তবে ব্যালটে নিজে সিল মারতে পারেননি৷ জানালেন, নৌকা মার্কার এজেন্টই তাঁর হাত থেকে সিল নিয়ে নৌকা মার্কার ওপরে মেরে দিয়েছেন৷

একাদশ জাতীয় নির্বাচন নিয়ে ভোটাররা যা বললেন

সিরাজুল ইসলাম

সিরাজুল ইসলাম এলাকায় বিএনপির সমর্থক হিসেবে পরিচিত৷ তাই আগে থেকেই নাকি তাঁকে ভোটকেন্দ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছিল৷ তাঁর দাবি, ভয়ে আর তিনি ভোট দিতে যাননি৷

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে হলেও এবার সব রাজনৈতিক দল নির্বাচনে অংশ নেয়৷ আওয়ামী লীগ বিএনপিসহ এবারের নির্বাচনে অংশ নেয়া দলের সংখ্যা ৩৯৷

গত ফেব্রুয়ারি, অর্থাৎ বিএনপির চেয়ারপার্সন খাদো জিয়া দুর্নীতির মামলায় কারাগারে যাওয়ার পর, বিএনপি নির্বাচনে যেতে নির্দলীয় নির্বাচনকালীন সরকার ছাড়াও খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়টি শর্ত হিসেবে যোগ করে৷ এছাড়াও নিজেদের গঠনতন্ত্র পরিবর্তন করে দণ্ডিত ব্যক্তিও যাতে দলের নেতৃত্বে থাকতে পারে – এমন বিধান করে তারা৷ দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান করা হয় লন্ডনে অবস্থানরত একাধিক মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত তারেক রহমানকে৷

বিএনপি অবশ্য তাদের দাবি আদায়ে কার্যকর কোনো আন্দোলন গড়ে তুলতে ব্যর্থ হয়৷ তবে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট বিএনপিকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণে উৎসাহ জোগায়৷ নভেম্বরের প্রথম দিনই ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে নির্বাচন নিয়ে সংলাপে বসেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা৷ ঐ সংলাপে বিএনপির প্রাধান্যে ঐক্যফ্রন্ট নির্দলীয় নির্বাচনকালীন সরকারসহ ৭ দফা দাবি পেশ করে৷ এরপর দ্বিতীয় দফা সংলাপ হলেও কোনো দাবি আদায়ে ব্যর্থ হয় তারা৷ এরপর গণতান্ত্রিক আন্দোলনের অংশ হিসেবে খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখেই নির্বাচনে যায় বিএনপি৷

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনের আগে রাজনৈতিক হিসেব-নিকেষে বিএনপি সরকারের আমলের সাবেক রাষ্ট্রপতি ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরীর দল বিকল্প ধারাকে ফ্রন্টে টানতে ব্যর্থ হয়৷ অবশ্য তারা পায় বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীকে৷ শক্তি বাড়তে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করে ঐক্যফ্রন্ট৷ কিন্তু স্বাধীনতাবিরোধী জামায়াতকে এই ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচনের সুযোগ দেয়ায় সমালোচনার মুখে পড়ে ঐক্যফ্রন্ট এবং ড. কামাল হোসেন৷

এখন লাইভ
01:56 মিনিট
মিডিয়া সেন্টার | 31.12.2018

‘এবার বিরোধীরা অতীতের যে কোনো সময়ের চেয়ে কম আসন পেয়েছে’

ঐক্যফ্রন্ট গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠাকে মূল ‘ফোকাস' হিসেবে নির্বাচনি প্রচারে সামনে নিয়ে আসে৷

অন্যদিকে আওয়ামী লীগ মহাজোট করে নির্বাচনে অংশ নেয়৷ ১৪ দল ছাড়াও এরশাদের জাতীয় পার্টি এবং ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরীর দল বিকল্প ধারা থাকে মহাজোটে৷ এরশাদকে নানা কৌশলে বাগে রাখতে সক্ষম হয় আওয়ামী লীগ৷

এবারের নির্বাচনে সবচেয়ে আলোচিত বিষয় হিসেবে সামনে আসে ‘লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড'৷ ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনের দিন পর্যন্ত লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডের অনুপস্থিতির কথা বলে এসেছে৷ তারা তাদের নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার, প্রার্থীদের ওপর হামলার অভিযোগ করে৷ নির্বাচন কমিশনের নিরপেক্ষতা নিয়েও প্রশ্ন তোলে তারা৷ শুধু তাই নয়, তারা নির্বাচনের আগে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের পদত্যাগও দাবি করে৷

বিএনপির অভিযোগ, নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর, অর্থাৎ শুক্রবার পর্যন্ত তাদের ওপর ২,৮৯৬টি হামলা হয়েছে৷ যাতে ন'জন নিহত হন, আহত হন ১৩ হাজার৷ দাবি করা হয়, অন্তত ১২ জন প্রার্থীর ওপর সরাসরি হামলা হয়েছে৷ এছাড়া ১০ হাজারের বেশি নেতা-কর্মীকে আটক করা হয়, ১৬ জন প্রার্থীকে কারাগারে পাঠানো হয় আর নির্বাচনের আগের দিন, মানে শনিবার রাতে আরো এক হাজার জনকে আটক করা হয় বলে জানা যায়৷

ওদিকে আওয়ামী লীগ দাবি করে যে, তাদের ওপর হামলায় আওয়ামী লীগের ছ'জন নিহত হয়েছেন৷ আহত হয়েছেন ৪৪৫ জন৷ শুধু তাই নয়, তাদের গাড়িবহর ও নির্বাচনি কেন্দ্রে ১৭৮টি হামলার ঘটনা ঘটেছে৷ আর গুলি ও বোমা হামলার ঘটনা ঘটেছে ৫৮টি৷

নির্বাচনের দিন, রবিবার, বিএনপি তথা ঐক্যফ্রন্টের ধানের শীষের ১০০ জন প্রার্থী নির্বাচন বর্জন করেন৷ সহিংসতায় ১৮ জন নিহতও হন৷ আহত হন ২০০ জন৷ ৩০০টি আসনের মধ্যে ২৯৮ আসনে নির্বাচন হয়৷ গাইবন্ধার একটি আসনে নির্বাচনের আগে একজন প্রার্থী মারা যাওয়ায়, ঐ আসনের নির্বাচন হবে আগামী ২৭ জানুয়ারি৷

এখন লাইভ
02:43 মিনিট
মিডিয়া সেন্টার | 31.12.2018

‘এবারে সহিংসা হয়েছে, তবে তার মাত্রা আগের নির্বাচনের চেয়ে কম’

এছাড়া ভোটের দিন অনিয়ম-সহিংসতার কারণে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার একটি আসনের নির্বাচন স্থগিত করা হয়৷ এর মধ্যে ফল পাওয়া গেছে ২৯৮টি আসনের৷ সরকার নিয়ন্ত্রিত সংবাদমাধ্যম বাসস-এর দেয়া খবর অনুযায়ী, এর মধ্যে আওয়ামী লীগ এককভাবে পেয়েছে ২৫৯টি আসন৷ আর তাদের মহাজোটের শরীক এরশাদের জাতীয় পার্টি পেয়েছে ২০টি আসন, মঞ্জুর জাতীয় পার্টি একটি, তরিকত ফেডারেশন একটি, বিকল্প ধারা দু'টি, ১৪ দলের ওয়ার্কার্স পার্টি তিনটি ও জাসদ(ইনু) দু'টি আসন পেয়েছে৷ এছাড়া জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বিএনপি পাঁচটি এবং গণফেরাম দু'টি আসন পেয়েছে৷ আর স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে পাশ করেছেন তিনজন৷

অর্থাৎ দেখা যাচ্ছে, আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে মহাজোট পেয়েছে মোট ২৮৮টি আসন৷ আর বিএনপির প্রাধান্যে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট পেয়েছে সাতটি আসন৷ ১৯৭৩ সালে প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ এককভাবে পেয়েছিল ২৯৩টি আসন৷ তারপর এই প্রথম আওয়ামী লীগ এমন রেকর্ড সংখ্যক আসন পেলো৷

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট এরইমধ্যে এই নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করেছে৷ তারা নির্বাচন বাতিল করে নতুন নির্বাচনের দাবি জানিয়েছে৷ বলাবাহুল্য, সেই নির্বাচন তারা দাবি করেছে নির্দলীয়, নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে৷ ড. কামাল হোসেন অভিযোগ করেছেন যে, নির্বাচনের নামে ভোট ডাকাতি ও জালিয়াতি হয়েছে৷ ২৭২টি কেন্দ্রে তাদের কোনো এজেন্টই দেয়া যায়নি৷ এখানেই শেষ নয়৷ প্রশাসনের সহায়তায় আগে নৌকায় সিল মেরে ব্যালট ঢোকানো হয়েছে৷ মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘‘দলীয় সরকারের অধীনে নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব নয়৷ ২০১৪ সালে আমাদের নির্বাচনে অংশ না নেয়া যে সঠিক ছিল, তা প্রমাণিত হয়েছে৷''

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট যদি সংসদে না যায় বা তাদের জয়ী সাতজন যদি শপথ না নেয়, তাহলে সেই আসনগুলোতে উপনির্বাচন হবে৷ এতে আওয়ামী লীগের পাল্লা আরো ভারী হবে৷ তবে এটা নিশ্চিত যে সংসদে বিরোধী দলের আসনে বসতে চলেছে এরশাদের জাতীয় পার্টি৷ গত সংসদেও তারা বিরোধী দল ছিল৷

এবারের নির্বাচনে জামায়াতে ইসলামী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে অংশ নিলেও কোনো আসন পায়নি৷ ১৯৯১ সাল থেকে যেসব নির্বাচনে জামায়াত অংশ নিয়েছে, তাতে এবারই প্রথম জামায়াত কোনো আসনে জয়ী হতে পারল না৷ তবে এবার, নির্বাচনের দিন এক পর্যায়ে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেয় জামাত৷ ঐক্যফ্রন্ট তথা বিএনপির ১০০ জন প্রার্থী ব্যক্তিগতভাবে ভোটের দিন নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিলেও, ঐক্যফ্রন্ট বা বিএনপি কিন্তু নির্বাচন বর্জন করেনি৷ তারা ঘোষণা দিয়েই শেষ পর্যন্ত নির্বাচনে ছিল৷

একাদশ নির্বাচনের ১১ উক্তি

এখন আনন্দ মিছিলের সময় নয়: শেখ হাসিনা

কোনো জায়গায় কাউকে আনন্দ মিছিল না করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা৷ দেশের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেছেন, ‘‘এখন আনন্দ মিছিল করার সময় নয়, দেশ গঠনের সময়৷’’

একাদশ নির্বাচনের ১১ উক্তি

পুনঃনির্বাচন দাবি করছি: ড. কামাল

কারচুপির অভিযোগ তুলে নির্বাচন বাতিলের দাবি জানিয়েছেন ঐক্যফ্রন্ট নেতা ড. কামাল হোসেন৷ রাতে এক সংবাদ সম্মেলনে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নতুন নির্বাচনের দাবিও জানান তিনি৷

একাদশ নির্বাচনের ১১ উক্তি

শেখ হাসিনায় জনগণ খুশি: ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের মনে করেন, নির্বাচনে জনগণের ‘স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ ও গণজোয়ার’ প্রমাণ করেছে জনগণ প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে ‘খুবই খুশি’ হয়েছে৷ তিনি বলেন, ‘‘সকাল থেকে সারা দেশে নারী, পুরুষ এবং তরুণ ভোটাররা ব্যাপকভাবে ভোটকেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়েছেন৷’’

একাদশ নির্বাচনের ১১ উক্তি

প্রমাণ হলো ২০১৪ সালের সিদ্ধান্ত ভুল ছিল না: ফখরুল

নির্বাচনের নামে ‘নিষ্ঠুর প্রহসন’ করা হয়েছে বলে মনে করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর৷ এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘‘এর মধ্য দিয়ে প্রমাণ হয়েছে পাঁচ বছর আগের নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত ঠিকই ছিল৷’’

একাদশ নির্বাচনের ১১ উক্তি

ধানের শীষের এজেন্ট না এলে কী করা? : সিইসি

বিভিন্ন কেন্দ্রে ধানের শীষের এজেন্ট নেই কেন? এমন প্রশ্নের উত্তরে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা করলেন পালটা প্রশ্ন৷ তিনি বলেছেন, ‘‘ধানের শীষের এজেন্টরা কেন্দ্রে না আসলে কী করার? তাঁরা কেন্দ্রে কেন আসেননি বা কেন কোনো এজেন্ট নেই, সেটা প্রার্থীর নির্ধারিত এজেন্টরাই বলতে পারবেন৷’’

একাদশ নির্বাচনের ১১ উক্তি

বিএনপি এখন মুসলিম লীগের পথে: ইনু

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গড়েও বিএনপির নির্বাচনে ভরাডুবির জন্য কর্মীদের অনাস্থাকে দায়ী করছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু৷ ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে তিনি বলেছেন, ‘‘দলটি এখন মুসলিম লীগের পরিণতির দিকে এগোচ্ছে৷’’

একাদশ নির্বাচনের ১১ উক্তি

আওয়ামী লীগের ২৯৯ আসন গেজেট দিলেই হতো : আলাল

সকালে নির্বাচন শুরু হওয়ার সময়ও বিএনপির নেতা-কর্মীদের মধ্যে প্রত্যাশা ছিল বলে মন্তব্য বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালের৷ তিনি বলেন, ‘‘নির্বাচনের নামে এই অর্থহীন তামাশার কোনো প্রয়োজন ছিল না৷ রাষ্ট্রপতির কাছ থেকে একটা গেজেট জারি করে নিলেই হতো যে, নৌকা ২৯৯ আসন পেয়ে গেছে৷’’

একাদশ নির্বাচনের ১১ উক্তি

জনগণের রায় প্রত্যাখ্যানের অধিকার কারো নেই: নানক

আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর কবির নানক মনে করেন, বিএনপি-জামায়াত-ঐক্যফ্রন্টকে প্রত্যাখ্যান করেছে জনগণ৷ তিনি বলেন, ‘‘জনগণের রায় প্রত্যাখ্যান করার অধিকার কারও নেই৷’’

একাদশ নির্বাচনের ১১ উক্তি

প্রতিশ্রুতি রেখেছি: পর্যবেক্ষকদের গওহর রিজভী

রোববারের নির্বাচনের মধ্য দিয়ে সরকার তার প্রতিশ্রুতি রেখেছে বলে মনে করেন আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা গওহর রিজভী৷ ভোটগ্রহণ শেষে ৩০ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় ঢাকায় বিদেশি পর্যবেক্ষক ও সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন তিনি৷

একাদশ নির্বাচনের ১১ উক্তি

শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট গ্রহণ: ইসি সচিব

সারা দেশে শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে বলে মনে করেন নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ৷ কমিশনের ফলাফল পরিবেশন কেন্দ্রে ফলাফল ঘোষণা উদ্বোধন করে তিনি বলেন, ‘ভোটারদের ব্যাপক অংশগ্রহণের মাধ্যমে’ নির্বাচন হয়েছে৷

একাদশ নির্বাচনের ১১ উক্তি

আওয়ামী লীগও আমার মতো প্রার্থীকে ভয় পায়: হিরো আলম

বগুড়ার এক হোটেলে সংবাদ সম্মেলন করে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আশরাফুল হোসেন ওরফে হিরো আলম৷ সিংহ প্রতীকে নির্বাচনে থাকা এ প্রার্থীর অভিযোগ, বিভিন্ন কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ-ছাত্রলীগের লোকজন ভোটারদের, এজেন্টদের বের করে দিয়েছে, নন্দীগ্রামে তাঁর ওপর হামলা হয়েছে৷ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীও তাঁকে কোনো সহায়তা করেনি৷

এই নির্বাচনকে নির্বাচন কমিশনের সচিব হেলালুদ্দিন আহমেদ ঐতিহাসিক এবং গণতন্ত্রের জন্য উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হিসেবে উল্লেখ করেছেন৷ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘‘স্বাধীনতাবিরোধী ও সাম্প্রদায়িক শক্তির সঙ্গে জোট বাধায় জণগণ বিএনপিকে প্রত্যাখ্যান করেছে৷''

এবারে নির্বাচনে ঐক্যফ্রন্টের গণতন্ত্র এবং মহাজোটের উন্নয়ন মূল ‘ফোকাস' থাকলেও শেষ পর্যন্ত স্বাধীনতার পক্ষ-বিপক্ষ তথা জামায়াতে ইসলামী ইস্যুটিই সামনে চলে আসে৷ বিশেষ করে জামায়াতকে ধানের শীষ প্রতীক দেয়ার পর এই বিতর্ক আরো প্রবল হয়৷

মানবাধিকার কর্মী এবং আইন ও সলিশ কেন্দ্রের সাবেক নির্বাহী পরিচালক নূল খান ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘এবারের নির্বাচনে বিরোধীরা অতীতের যে কোনো সময়ের চেয়ে সবচেয়ে কম আসন পেয়েছে৷ ভোটের ব্যবধানও অবিশ্বাস্য রকমের বেশি৷ এটাই এই নির্বাচনের সবচয়ে বড় ঘটনা৷ নির্বাচনের ছ'মাস আগে থেকে বিরোধী নেতা-কর্মীদের আটক করা হয়েছে, নতুন নতুন মামলা দেয়া হয়েছে৷ নির্বাচনে তারা এজেন্ট পর্যন্ত দিতে পারেনি৷ তাদের ওপর হামলা হয়েছে৷ তাদের বাড়ি-ঘরে হামলা হয়েছে৷ এমনকি বিরোধীদের প্রচার-প্রচারণাও দৃশ্যমান হয়নি৷''

তিনি আরো বলেন, ‘‘নির্বাচনে মাঠে সেনাবাহিনী ছিল৷ সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে বার বার প্রতারকদের ব্যাপারে সতর্ক করা হয়েছে৷ অভিযোগ, সেনাবাহিনীর নাম ভাঙিয়ে প্রার্থীদের কাছ থেকে প্রতারকরা টাকা দাবি করছিল৷''

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. শান্তনু মজুমদার ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘একটি নির্বাচিত সরকারের অধীনে সবদলের অংশগ্রহণই এবারের নির্বাচনের প্রধান চিত্র৷ আমি দলীয় বলছি না৷ কারণ নির্বাচনকালীন সরকার দলীয় হিসেবে বিবেচিত হওয়ার কথা নয়৷ এবারে সহিংসা হয়েছে, তবে তার মাত্রা আগের নির্বাচনের চেয়ে কম৷ তাছাড়া ভোট কারচুপির কথা যে বিএনপি বলছে, তা পুরো সত্য না হলেও আংশিক সত্য৷ কারণ আমরা ভোট বাক্স নিয়ে যেতে দেখেছি৷ নির্বাচনে পর্যবেক্ষক কম ছিল৷ আর তাদের নির্বাচন নিয়ে প্রতিক্রিয়া খুব বেশি ‘ক্রিটিক্যাল' নয়৷ নির্বাচন কমিশন সঠিক মাত্রার দক্ষতা দেখাতে পারেনি৷ তবে এবার নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সংখ্যালঘুদের মধ্যে তেমন কোনো আতঙ্ক ছিল না৷''

তাঁর কথায়, ‘‘আরেকটি বিষয় হলো জামায়াত তার আসল পরিণতির জায়গায় গিয়ে পৌঁছেছে৷ জামায়াতের আসলে তত ভোট নেই, যত বলা হয়৷ তারা নানা কৌশলে ‘ওভার রেটেট' হতো৷ কিন্তু এবার তা হয়নি৷''

প্রতিবেদনটি কেমন লাগলো জানান আমাদের, লিখুন মন্তব্যের ঘরে৷

আমাদের অনুসরণ করুন