ঐতিহাসিক জয়ের নায়ক সাকিব, অভিনন্দনের জোয়ারে ভাসছে টাইগাররা

সিরিজের প্রথম টেস্টে অস্ট্রেলিয়াকে ২০ রানে হারিয়ে অভিনন্দনের জোয়ারে ভাসছে টাইগাররা৷ টেস্ট ক্রিকেটে প্রথমবারের মতো অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে ইতিহাস গড়লো টাইগাররা৷ অলরাউন্ড নৈপুণ্যের সুবাদে ম্যাচ সেরা সাকিব আল-হাসান৷

তাইজুলের এলবিডাব্লিউর আবেদন৷ কয়েক মুহূর্তের জন্য স্তব্ধ পুরো স্টেডিয়াম৷ আম্পায়ারের আঙুল উপরে উঠতেই বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস মাঠ আর স্টেডিয়াম জুড়ে৷ ততক্ষণে ইতিহাস গড়ে ফেলেছে টাইগাররা৷ টেস্ট ম্যাচে প্রথমবারের মতো অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়েছে তারা, তাও পাঁচ দিনের ম্যাচের একদিন হাতে রেখে!

প্রথম ইনিংসে ব্যাট হাতে ৮৪ রান এবং বোলিংয়ে দু' ইনিংস মিলিয়ে ১০ উইকেট নিয়ে জয়ের নায়ক সাকিব হলেও তামিমের অবদানও কম নয়৷ নিজের ৫০তম ম্যাচে দুই ইনিংসেই ফিফটি (৭১ ও ৭৮ রান) করে বাংলাদেশকে ভালো সংগ্রহের পথে নিয়ে গিয়েছিলেন বাঁ হাতি এই ওপেনার৷

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস: ২৬০

অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংস: ২১৭

বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংস: ২২১

অস্ট্রেলিয়ার দ্বিতীয় ইনিংস: ২৪৪

উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী:

বুধবার দ্বিতীয় ইনিংসে অস্ট্রেলিয়ার ৯টি উইকেট পতনের পর দর্শকের সারিতে হঠাৎই হাজির হন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা৷ এর আগেও দেশের মাটিতে বেশ কয়েকটি ঐতিহাসিক জয়ের সাক্ষী ছিলেন তিনি৷ প্রধানমন্ত্রী আসার পর পরের ওভারেই গুটিয়ে যায় অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস৷ বাংলাদেশের পতাকা হাতে ক্রিকেটারদের অভিনন্দন জানাতে দেখা যায় তাঁকে৷

জয়ের নায়ক সাকিব যা বললেন:

প্রথম ইনিংসে তাঁর ব্যাট থেকে এসেছে ৮৪ রান৷ পাশাপাশি দুই ইনিংসেই ৫টি করে উইকেট৷ চতুর্থ দিনে যখন হাত থেকে ফসকে যাচ্ছে জয়, তখনই শক্ত হাতে প্রতিরোধ গড়লেন তিনি৷ তার ৫ উইকেটের সুবাদে এলো অবিস্মরণীয় জয়৷ আর স্মরণীয় হয়ে থাকলো সাকিবের ৫০তম টেস্ট৷ পুরস্কার নিতে গিয়ে সাকিব সঞ্চালকের কাছে বাংলায় কিছু বলার অনুমতি চান৷ গ্যালারির দর্শকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, বাংলাদেশের দর্শকদের জন্যই এ জয় সম্ভব হয়েছে৷ পুরো দল উৎসাহ এবং অনুপ্রেরণা পেয়েছে তাদের কাছ থেকে৷ সবশেষে এটাও জানালেন, গতকাল যখন ফোনে স্ত্রী শিশিরকে বলেছিলেন ‘‘মনে হচ্ছে ম্যাচ হাত ফসকে যাচ্ছে৷'' তখন শিশির বলেছিলেন, এই ম্যাচ যদি কেউ জেতাতে পারে, সে সাকিবই৷ আর সাকিব ৫টা উইকেট নিলেই সেটা সম্ভব৷''

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে প্রতিক্রিয়া:

আন্তর্জাতিক অঙ্গণেও সাড়া ফেলেছে টাইগারদের এই ঐতিহাসিক জয়৷ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অভিনন্দন জানিয়েছেন অনেক বিদেশি ক্রিকেটার৷ ভারতের তারকারাও আছেন সেই কাতারে৷

অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটার মাইকেল ক্লার্ক অভিনন্দন জানিয়েছেন বাংলাদেশ দলকে৷ লিখেছেন, ‘‘আমার দলের বিপক্ষে জেতায় হয়ত এই অভিনন্দন জানানো আমার উচিত হচ্ছে না৷ কিন্তু যেহেতু বাহবা তোমাদের প্রাপ্য তাই না দিয়ে পারছি না৷''

ভারতের সাবেক ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকার অবশ্য টুইটারে বাংলাদেশের জয়কে ‘আপসেট' হিসেবে উল্লেখ করেছেন৷ হয়ত অস্ট্রেলিয়ার জন্য অঘটন বোঝাতেই এই শব্দ ব্যবহার করেছেন তিনি৷ তবে টাইগারদের পারফর্ম্যান্সকে ‘উৎসাহব্যঞ্জক' বলে উল্লেখ করেছেন তিনি৷

টাইগারদের বাহবা দিয়েছেন বিরেন্দ্র শেবাগও৷

ভারতের আরেক সাবেক ক্রিকেটার মোহাম্মদ কাইফ এই জয়ের জন্য অভিনন্দন জানিয়েছেন বাংলাদেশ দলকে৷ লিখেছেন, ‘অসাধারণ একটি ম্যাচ৷'

শ্রীলংকার সাবেক অধিনায়ক মাহেলা জয়াবর্ধনে টুইটারে লিখেছেন,

ঐতিহাসিক টেস্ট জয়ের দিনে বাংলাদেশ অসাধারণ খেলেছে৷ দারুণ একটা টেস্ট ম্যাচ৷

ইএসপিএন-এর সাংবাদিক ব্রাইডন কভারডেইল প্রশংসা করেছেন সাকিব আল হাসানের৷ ইতিহাসের একমাত্র ব্যক্তি যিনি টেস্ট ক্রিকেটের একটি ম্যাচে দুইবার এক ইনিংসে ৮০'র বেশি রান করেছেন আর দু' ইনিংস মিলিয়ে নিয়েছেন ১০ উইকেট৷

কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ও অভিনন্দন জানিয়েছেন বাংলাদেশ দলকে৷

ভারতীয় অভিনেতা রাহুল বোস বাংলাদেশের জয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন এভাবে৷

খেলাধুলা

জানুয়ারি ৬-১০, ২০০৫, প্রতিপক্ষ জিম্বাবোয়ে: বাংলাদেশ ২২৬ রানে জয়ী

টাইগাররা প্রথমবারের মতো টেস্ট জয়ের স্বাদ পায় চট্টগ্রামে৷ ২০০৫ সালের জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত সেই ম্যাচে প্রথম ইনিংসে ৪৮৮ রান তোলে স্বাগতিকরা৷ আর দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে ৯ উইকেটে ২০৪ রান করে৷ প্রথম ইনিংসে জিম্বাবোয়ের স্কোর ছিল ৩১২ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ১৫৪ রান৷

খেলাধুলা

জুলাই ৯-১৩, ২০০৯, প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ: বাংলাদেশ ৯৫ রানে জয়ী

দেশের বাইরে বাংলাদেশ প্রথম টেস্ট জয়ের দেখা পায় ২০০৯ সালের ১৩ জুলাই৷ কিংসটাউনে সেই টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৯৫ রানে হারায় টাইগাররা৷

খেলাধুলা

জুলাই ১৭-২০, ২০০৯, প্রতিপক্ষ ওয়েস্টইন্ডিজ: বাংলাদেশ চার উইকেটে জয়ী

সেবার ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর ছিল সাফল্যে ঠাসা৷ দ্বিতীয় টেস্টে সেন্ট জর্জেসে স্বাগতিকদের হারায় টাইগাররা, সেবার জিতেছিল চার উইকেটে৷

খেলাধুলা

এপ্রিল ২৫-২৯, ২০১৩, প্রতিপক্ষ জিম্বাবোয়ে: বাংলাদেশ ১৪৩ রানে জয়ী

জিম্বাবোয়ের হারারেতে স্বাগতিকদের আবার ‘বধ’ করে টাইগাররা৷ প্রথম ইনিংসে ৩৯১ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৯ উইকেটে ২৯১ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশ৷ জবাবে প্রথম ইনিংসে ২৮২ আর দ্বিতীয় ইনিংসে ২৫৭ রানেই গুটিয়ে যায় জিম্বাবোয়ে৷

খেলাধুলা

অক্টোবর ২৫-২৭, ২০১৪, প্রতিপক্ষ জিম্বাবোয়ে: বাংলাদেশ তিন উইকেটে জয়ী

ঢাকায় বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট জয়৷ তিন দিনে শেষ হওয়া সেই টেস্টে শুরুতে ব্যাট করতে গিয়ে প্রথম ইনিংসে ২৪০ রান করে জিম্বাবোয়ে৷ আর দ্বিতীয় ইনিংসে তাদের সংগ্রহ ছিল ১১৪৷ অন্যদিকে, প্রথম ইনিংসে ২৫৪ আর দ্বিতীয় ইনংসে ৭ উইকেটে ১০৭ রান তুলে জিতে যায় স্বাগতিকরা৷

খেলাধুলা

নভেম্বর ৩-৭, ২০১৪, প্রতিপক্ষ জিম্বাবোয়ে: বাংলাদেশ ১৬২ রানে জয়ী

খুলনায় জিম্বাবোয়েকে হারায় বাংলাদেশ৷ সেই টেস্ট পাঁচ দিন পর্যন্ত গড়ালেও শেষমেশ তেমন একটা সুবিধা করতে পারেনি জিম্বাবোয়ে৷ ফলাফল স্বাগতিকদের ১৬২ রানের জয়৷

খেলাধুলা

নভেম্বর ১২-১৬, ২০১৪, প্রতিপক্ষ জিম্বাবোয়ে: বাংলাদেশ ১৮৬ রানে জয়ী

আবারো চট্টগ্রামে জিম্বাবোয়েকে হারায় টাইগাররা৷ সেবার ব্যবধান ছিল ১৮৬ রানের৷

খেলাধুলা

অক্টোবর ২৮-৩০, ২০১৬, প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ড: বাংলাদেশ ১০৮ রানে জয়ী

এখন পর্যন্ত বড় কোনো ক্রিকেট শক্তির বিরুদ্ধে বাংলাদেশের একমাত্র টেস্ট জয় এটি৷ ঢাকায় ইংল্যান্ডকে নাস্তানাবুদ করে টাইগাররা৷

খেলাধুলা

মার্চ ১৫-১৯, ২০১৭, প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা: বাংলাদেশ ৪ উইকেটে জয়ী

একদিকে টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের শততম ম্যাচে জয়, অন্যদিকে প্রথমবারের মত শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে জয়-দুই দিক দিয়েই ঐতিহাসিক বাংলাদেশের এই টেস্ট ম্যাচটি৷ পঞ্চম দিনে ৪ উইকেটে জয় নিশ্চিত করে টাইগাররা৷ ম্যাচ সেরা হয়েছেন তামিম ইকবাল৷

খেলাধুলা

আগস্ট ২৭-৩০, ২০১৭, প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া: বাংলাদেশ ২০ রানে জয়ী

প্রথমবারের মত অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে বাংলাদেশ ইতিহাস গড়ে৷ এটা ছিল সাকিব ও তামিমের ৫০তম টেস্ট। সাকিব মোট ১০ উইকেট নিয়ে এবং তামিম দুই ইনিংসেই অর্ধশত করে স্মরণীয় করে রাখলেন এই টেস্টকে৷ ম্যাচ সেরা সাকিব আল হাসান৷ দ্রষ্টব্য: ইএসপিএন ক্রিকইনফো থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী ছবিঘরটি তৈরি করা হয়েছে৷

ঐতিহাসিক এই জয়ে আপনার প্রতিক্রিয়া জানান আমাদের৷ লিখুন নীচে মন্তব্যের ঘরে৷