খুন হয়েছিলেন সালমান শাহ!

হত্যা না আত্মহত্যা? ২১ বছর পরও সালমান শাহ ভক্তদের মেলেনি উত্তর৷ কিন্তু অবশেষে কি এই রহস্য উন্মোচন হতে যাচ্ছে? নায়কের তখনকার বিউটিশিয়ান রুবি সুলতানা দাবি করছেন, খুন হয়েছেন সালমান শাহ৷

আসল নাম শাহরিয়ার চৌধুরী ইমন, ভক্তদের কাছে তিনি সালমান শাহ নামে পরিচিত৷ মাত্র পাঁচ বছরে ২৭টি ছবি, এবং এর প্রায় সবই সুপারডুপার হিট৷

অথচ ২১ বছর পরেও উদঘাটন করা যাচ্ছে না সেই জননন্দিত, দর্শকপ্রিয় অভিনেতার মৃত্যু রহস্য৷ ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর ঢাকার ইস্কাটনের বাড়িতে তাঁর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়৷

ময়নাতদন্তে আত্মহত্যা বলা হলেও তা মানতে চায়নি সালমান শাহের পরিবার৷ অভিযোগের আঙুল ওঠে স্ত্রী সামিরা হক ও তাঁর পরিবারের দিকে৷ পুলিশ একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করলেও তাতে রাজি হননি সালমান শাহের বাবা কমরুদ্দিন আহমেদ এবং মা নীলা চৌধুরী৷ সামিরা হক, ব্যবসায়ী ও চলচ্চিত্র প্রযোজক আজিজ মোহাম্মদ ভাইসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে আদালতে আবেদন করা হয়৷

তবে বারবার তদন্তে জট না খুললেও এবার এই ঘটনা নিয়েছে নতুন মোড়৷ রাবেয়া সুলতানা রুবি নামের যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী এক নারী ফেসবুকে দাবি করছেন, ‘সালমান শাহ আত্মহত্যা করেননি, খুব হয়েছেন৷' তাঁর দাবি, এ সংক্রান্ত প্রমাণও তার কাছে রয়েছে৷

রুবি ছিলেন নায়ক সালমান শাহের ব্যক্তিগত বিউটিশিয়ান৷ যে ১১ জনের বিরুদ্ধে সালমান শাহের পরিবার হত্যার অভিযোগ এনেছিলেন, তাঁদের একজন এই রুবি৷ তবে বাংলাদেশে থাকা অবস্থায় তিনি বরাবরই সব অভিযোগ অস্বীকার করে এসেছিলেন৷

ফেসবুক ভিডিওতে তিনি বলছেন, ‘‘আমার হাজবেন্ড এটা করাইসে আমার ভাইরে দিয়ে৷ এটা সামিরার ফ্যামিলি করাইসে৷ সবাই চাইনিজ মানুষ৷ সালমান শাহ আত্মহত্যা করে নাই, সালমান শাহ খুন হয়েছে৷''

প্রাণভয়ে তাকে পালিয়ে আছেন বলেও ভিডিওতে দাবি করেন রুবি৷ মামলায় সাক্ষ্য দিতে আগ্রহও প্রকাশ করেন তিনি৷ ‘‘আমাকেও খুন করার চেষ্টা করা হচ্ছে, আমি ভালো নাই৷

ভিডিওতে তাঁকে বলতে শোনা যায়, ‘‘এর মধ্যে আমার খালু মমতাজ হাসান আছে, খালাতো ভাই জুম্মা থাকতে পারে, আমার হাজবেন্ড চ্যান লিং চ্যাং, জন চ্যান নামে বাংলাদেশে পরিচিত ছিল, সাংহাই চাইনিজ রেস্টুরেন্টের মালিক ছিলো ধানমন্ডি ২৭ নাম্বার রোডে৷ দয়া করে কাউকে জানান....আমি লাস্ট মানুষ যে কিনা জানে, এটা খুন৷''

রুবি সালমানভক্ত ও সালমানের মা নীলা হককে উদ্দেশ্য করে ভিডিওতে বলেন, তিনি দেশে ফিরে সব খুলে বলতে আগ্রহী৷ তাঁকে যাতে খুন হতে না হয়, এ জন্য সবাইকে ‘কিছু' করারও আহ্বান জানিয়েছেন সুলতানা রুবি৷

ফেসবুক পোস্টে দেয়া এই ভিডিও খুব দ্রুতই ছড়িয়ে পড়ছে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে৷ অনেকেই ফেসবুক থেকে ডাউনলোড করে তা ইউটিউবসহ অন্যান্য অনলাইন মাধ্যমে ছড়িয়ে দিচ্ছেন৷

মূলধারার সব গণমাধ্যমে এসেছে এই খবর যাতে ‘তদন্তে সহায়ক হবে' বলে পুলিশকে উদ্ধৃত করে জানানো হয়েছে৷

প্রয়োজনে আইনি বা অন্য যে কোনো ধরনের সহায়তা করার জন্য প্রস্তুত সালমান শাহের ভক্তরা৷ রুবি সুলতানার ভিডিও পোস্টের কমেন্টে অনেকেই দিচ্ছেন নানা ধরনের প্রস্তাব৷ কেউ কেউ আবার এতদিন পর এমন তথ্য প্রকাশের অন্য উদ্দেশ্য আছে কিনা, তাও ভেবে দেখতে বলছেন৷

এডিকে/ডিজি