জার্মানিতে নারী সমকামী শরণার্থীদের দুর্দশা

ডিয়ানা নামুসোকা এবং সাক্সেস জনসন সহিংসতা এবং বৈষম্য থেকে বাঁচতে আফ্রিকা থেকে ইউরোপে পাড়ি জমিয়েছেন৷ কিন্তু শরণার্থীদের জন্য প্রযোজ্য জার্মানির জটিল আশ্রয়ব্যবস্থায় সুখের বদলে দুশ্চিন্তা তাদের সাথী হয়েছে৷

‘‘আমি জানিনা তারা কী চায়,'' ডয়চে ভেলেকে বলেন ডিয়ানা নামুসোকা৷ হতাশ কণ্ঠে তিনি বলেন, ‘‘আমি বুঝতে পারছি না তারা কেন আমাদের কথা বিশ্বাস করছে না৷''

বার্লিনের ক্রয়েৎসবার্গের এক গির্জার বৈঠকখানায় ডয়চে ভেলের মুখোমুখি হয়েছিলেন তাঁরা৷ ৪৮ বছর বয়সি নামুসোকা এবং ২৭ বছর বয়সি জনসনের বাড়ি যথাক্রমে উগান্ডা এবং নাইজেরিয়ায়৷ এই  সমকামীরা জার্মানিতে  এসেছিলেন নিরাপদ জীবনযাপনের আশায়৷ নিজেরা যে সমকামী সে-কথা শুরুতেই জার্মান কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন তাঁরা৷ কিন্তু, কর্তৃপক্ষ তাঁদের কথা বিশ্বাস করেনি৷ বরং তাঁদের নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর পক্ষে মত দিয়েছে কর্তৃপক্ষ৷

জার্মানির অভিবাসন এবং শরণার্থী বিষয়ক কার্যালয় বিএএমএফ এবং সংশ্লিষ্ট আদালত আপিল করেছিলেন তাঁরা৷ তবে বিএএমএফ বিশ্বাস করে যে, এই দুই নারী সমকামী৷ বিএমএফ জানিয়েছে, নিজেদের সমকামিতার পক্ষে উপযুক্ত প্রমাণ দিতে পারেননি বলে তাঁদের আশ্রয়ের আবেদন প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

নেদারল্যান্ডস

বিশ্বে সর্বপ্রথম সমকামী বিয়ে বৈধ হয় এই দেশে৷ ২০০০ সালে বৈধতা পাওয়ার পর ২০০১ সালে সমকামী বিয়ে অনুষ্ঠিত হয় দেশটিতে৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

কলম্বিয়া

২০১৬ সালে দেশটিতে সমকামী বিয়ে বৈধতা পায়৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

আয়ারল্যান্ড

২০১৫ সালে গণভোটের মাধ্যমে সমকামী বিয়ে বৈধতা পায় এই দেশে৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

যুক্তরাষ্ট্র

যুক্তরাষ্ট্রে সমকামী বিয়ে বৈধ হয় ২০১৫ সালে৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

স্কটল্যান্ড

২০১৪ সালে দেশটিতে সমকামী বিয়ে বৈধ হয়৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

ফিনল্যান্ড

২০১৫ সালে দেশটিতে সমকামী বিয়ে বৈধ হয়৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

লুক্সেমব্যর্গ

২০১৪ সালে এখানে সমকামী বিয়ে বৈধতা পায়৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

গ্রিনল্যান্ড

২০১৫ সালে এখানে সমকামী বিয়ে বৈধতা পায়৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

ফ্রান্স

২০১৩ সালে এখানে সমকামী বিয়ে বৈধতা পায়৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

ইংল্যান্ড, ওয়ালস

২০১৩ সালে সমকামী বিয়ে বৈধতা পায় এখানে৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

ব্রাজিল

২০১৩ সালে সমকামী বিয়ে বৈধতা পায়৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

উরুগুয়ে

২০১৩ সালে সমকামী বিয়ে বৈধতা পায় এখানে৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

ডেনমার্ক

২০১২ সালে এখানে সমকামী বিয়ে বৈধতা পায়৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

আইসল্যান্ড

২০১০ সালে এখানে সমকামী বিয়ে বৈধতা পায়৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

পর্তুগাল

২০১০ সালে এখানে সমকামী বিয়ে বৈধতা পায়৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

আর্জেন্টিনা

২০১০ সালে এখানে সমকামী বিয়ে বৈধতা পায়৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

সুইডেন

২০০৯ সালে এখানে সমকামী বিয়ে বৈধতা পায়৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

নরওয়ে

২০০৮ সালে এখানে সমকামী বিয়ে বৈধতা পায়৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

দক্ষিণ আফ্রিকা

২০০৬ সালে দেশটিতে সমকামী বিয়ে বৈধতা পায়৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

স্পেন

২০০৫ সালে এখানে সমলিঙ্গের বিয়ে বৈধতা পায়৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

নিউজিল্যান্ড

২০১৩ সালে এখানে সমলিঙ্গের বিয়ে বৈধতা পায়৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

বেলজিয়াম

২০০৩ সালে এখানে সমলিঙ্গের বিয়ে বৈধতা পায়৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

ক্যানাডা

২০০৫ সালে দেশটিতে সমকামী বিয়ে বৈধতা পায়৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

অস্ট্রেলিয়া

অস্ট্রেলিয়ায় সমকামীদের বিয়ে বৈধতা পেয়েছে। ২০১৭ সালের ৭ ডিসেম্বর প্রতিনিধি পরিষদে এ-সংক্রান্ত বিল পাস হয়৷ এই প্রস্তাবের পক্ষে ১৪৬টি এবং বিপক্ষে পড়ে মাত্র ৪টি ভোট৷ এর আগে ১৫ই নভেম্বর অস্ট্রেলিয়ার ব্যুরো অফ স্ট্যাটিসটিকস বা এবিএস ঘোষণা করে যে, দেশটির জনগণ সমকামী বিয়ের পক্ষে ভোট দিয়েছিলেন৷ সমকামী বিয়ে বৈধতা আইনে গণভোটের পক্ষে ভোট দেন ৬১ দশমিক ৬ শতাংশ মানুষ৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

অস্ট্রিয়া

অস্ট্রিয়ায় ২০১৭ সালের নির্বাচনে জয়ী হয়েছে রক্ষণশীল দল৷ কিন্তু জনগণ সমকামিতার পক্ষে মত দিয়েছে৷ ঐ বছরে ওস্টেরাইস পত্রিকা একটি জরিপ করে, যেখানে দেখা গেছে দেশটির ৫৯ ভাগ মানুষ সমকামী বিয়ের পক্ষে, বিপক্ষে ২৫ শতাংশ মানুষ৷ ফলে অস্ট্রিয়াতেও খুব শিগগিরই সমকামী বিয়ে বৈধতা পাচ্ছে বলে আশা করা যায়৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

জার্মানি

২০১৭ সালের ৩০শে জুন জার্মানিতে সমকামী বিয়ে বৈধতা পায়৷ অর্থাৎ ইউরোপের ১৫তম দেশ হিসেবে জার্মানিতে সমকামী বিয়ে বৈধতা পেল৷ জার্মান পার্লামেন্টে এর পক্ষে ৩৯৩টি ভোট পড়ে আর বিপক্ষে পড়ে ২২৬টি ভোট৷ চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের রক্ষণশীল খ্রিষ্টীয় গণতন্ত্রী পার্টি সমকামী বিয়ের বিপক্ষে থাকলেও, সংসদীয় নির্বাচনের ক’মাস আগে হঠাৎ করেই ম্যার্কেল ঘোষণা করেন যে, এ বিষয়ে ভোটাভুটি হবে৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

মাল্টা

২০১৭ সালের জুলাই মাসে মাল্টায় সমকামী বিয়ে বৈধতা পায়, যদিও এর বিরোধিতা করেছিল ক্যাথলিক চার্চ৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

বলিভিয়া

২০০৯ সালে সংবিধান সংশোধন করে সমকামী বিয়ের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল বলিভিয়া৷ কিন্তু ২০১৬ সালে তারা ট্রান্সজেন্ডারদের নানারকম অধিকার দেয়াকে সমর্থন করে৷ ২০১৭ সালের জুনে ট্রান্সজেন্ডারদের মধ্যে বিয়ের বৈধতা দেয় রক্ষণশীল এই দেশটি৷

সমকামী বিয়ে বৈধ যে সব দেশে

তাইওয়ান

এশিয়ার প্রথম দেশ হিসেবে তাইওয়ানের সংসদ শুক্রবার (১৭ মে, ২০১৯) সমকামী বিয়েকে আইনগত বৈধতা দিয়ে একটি বিল পাস করেছে৷ ফলে সে দেশের সমকামীরা এখন তাঁদের বিয়ে নিবন্ধন করতে পারবেন৷

বাভারিয়াতে আশ্রয়ের আবেদন বাতিল হওয়ার পর তাঁদের নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর আদেশ দেয় কর্তৃপক্ষ৷ কিন্তু সেই আদেশ কার্যকর হওয়ার আগেই গতবছরের নভেম্বরে বাভারিয়া থেকে পালিয়ে বার্লিন চলে আসেন আফ্রিকার এই দুই নারী৷ বার্লিনে দু'টি ‘গির্জা সম্প্রদায়' তাঁদের আশ্রয় দিয়েছে৷

নামুসোকা এবং জনসন অল্পবয়সেই বুঝতে পারেন যে, তাঁরা সমকামী৷ তাঁদের পরিবার বিষয়টি না জানা অবধি তেমন একটা সমস্যায় পড়তে হয়নি তাঁদের৷ কিন্তু পরিবারের সদস্যরা জানার পর আর তাঁদের পক্ষে বাড়িতে থাকা সম্ভব হয়নি৷ সমকামিতার জন্য নিজ নিজ দেশে হয়রানির শিকারও হয়েছেন তাঁরা, কেননা, দেশ দুটোতে সমকামিতাকে এখনো স্বাভাবিকভাবে নেয়া হয় না৷

ফলে এক পর্যায়ে ইউরোপে পাড়ি জমান তাঁরা৷ এবং নানা চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে জার্মানিতে পৌঁছান৷ কিন্তু বাভারিয়া কর্তৃপক্ষ তাঁদের রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন বাতিল করায় ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন এই সমকামীরা৷

লুইসা রোলেনহাগেন/এআই

কোলনে ইউরোপের সবচেয়ে বড় সমকামী প্যারেড

সম অধিকারের লড়াই

ইউরোপের সমকামীদের সবচেয়ে বড় বার্ষিক আয়োজন এই কোলন প্রাইড প্যারেড৷ এ বছর ৮৫টি গাড়ির বহর ছাড়াও পায়ে হেঁটে যোগ দিয়েছেন অনেকেই৷ অংশগ্রহণকারীরা সমকামী ও উভকামীদের সমাজে গ্রহণযোগ্যতা এবং সমান অধিকারের দাবি জানান৷

কোলনে ইউরোপের সবচেয়ে বড় সমকামী প্যারেড

কোলনের বার্ষিক আয়োজন

১৯৯১ সাল থেকে প্রতি বছর জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহান্তে কোলনে আয়োজন হচ্ছে এই প্যারেড৷ প্যারেড শুরু হয় ডয়চে সাসপেনশন ব্রিজ থেকে৷ নর্থ রাইন-ওয়েস্টফেলিয়ার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে সবচেয়ে বড় শহর কোলনের কেন্দ্রে গিয়ে শেষ হয় এই প্যারেড৷

কোলনে ইউরোপের সবচেয়ে বড় সমকামী প্যারেড

প্যারেডের চেয়েও বেশি কিছু

অংশগ্রহণকারীদের কাছে এই আয়োজন শুধু প্যারেডেই সীমাবদ্ধ নয়৷ কনসার্ট, পার্টি, সমাবেশ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ একগাদা অনুষ্ঠান থাকে এই আয়োজনকে ঘিরে৷ এবারের বিশেষ আকর্ষণ ছিল ব্রিটিশ ব্যান্ড ইরেশারের পরিবেশনা৷

কোলনে ইউরোপের সবচেয়ে বড় সমকামী প্যারেড

‘আর কখনও নয়’

কোলনের এবারের গে প্রাইডের মূল উপজীব্য ছিল, ‘আর কখনও নয়’৷ যে সকল সমকামী ন্যাশনাল সোশ্যালিজমের সময় নিপীড়নের শিকার হয়েছিলেন, তাদের স্মরণ করা হয় এবারের আয়োজনে৷ কনসেন্ট্রেশন ক্যাম্পে লেসবিয়ানদের কালো রংয়ের ত্রিকোণ ব্যাজ পড়তে বাধ্য করা হতো৷ ছেলেদের বেলায় এর রং ছিল গোলাপি৷

কোলনে ইউরোপের সবচেয়ে বড় সমকামী প্যারেড

সবার জন্য বিয়ের অধিকার

বুন্দেসটাগে ৩০ জুন পাশ হওয়া ‘সবার জন্য বিয়ে’ আইন উদযাপন করার একটা উপলক্ষ্যও ছিল এবারের প্যারেড৷ আয়োজকরা অবশ্য মনে করেন, এখনও অনেকদূর যাওয়া বাকি৷ এখনও সমলিঙ্গের বিয়েতে বাবা ও মায়ের ভূমিকা নির্ধারণসহ আরো কিছু বিষয়ে অস্পষ্টতা রয়ে গেছে৷

কোলনে ইউরোপের সবচেয়ে বড় সমকামী প্যারেড

ব্যবসায়ীদের সমর্থন

এবারের প্যারেড বেশ কিছু কোম্পানির স্পন্সর পেয়েছে৷ এর মধ্যে একটি সাশ্রয়ী এয়ারলাইন ইউরোউইংস৷ সহনশীলতার মতো মানবিক মূল্যবোধের পাশে যে ব্যবসায়ীরাও আছে, এটাকে তারই প্রমাণ হিসেবে দেখছেন অনেকে৷ একই সাথে দশ লক্ষেরও বেশি মানুষের জন্য বিজ্ঞাপনটাও হয়ে গেল৷ ইউরোউইংসের ব্যানারে লেখা ছিল, ‘আমাদের সাথে চলো, রংধনুর আরো কাছে’৷

আমাদের অনুসরণ করুন