জার্মানি থেকে শরণার্থীদের ফেরত পাঠানো বাড়ছে

জার্মানিতে আশ্রয়ের আবেদন বাতিল হওয়া শরণার্থীদের নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর হার দ্রুতগতিতে বাড়ছে৷ নতুন এক প্রতিবেদন জানাচ্ছে, টিউনিশিয়া, মরক্কো এবং আলজেরিয়াতে গতবছর অনেক শরণার্থীদের ফেরত পাঠানো হয়েছে৷

মাগরেব দেশ হিসেবে পরিচিত মরক্কো, আলজেরিয়া এবং টিউনিশিয়ায় গতবছর আগের বছরের তুলনায় ৩৫ শতাংশ বেশি শরণার্থীকে ফেরত পাঠিয়েছে জার্মানি৷ উত্তর আফ্রিকার দেশগুলোতে গতবছর ১,৮৭৩ শরণার্থীকে ফেরত পাঠিয়েছে জার্মানি, ২০১৭ সালে এই সংখ্যা ছিল ১,৩৮৯৷ সংশ্লিষ্ট অঞ্চলে গতবছর ২০১৫ সালের তুলনায় ১৪ গুণ বেশি শরণার্থীকে ফেরত পাঠানো হয়েছে

উত্তর আফ্রিকার দেশগুলোর মধ্যে মরক্কোতে সবচেয়ে বেশি হারে শরণার্থীদের ফেরত পাঠানো হচ্ছে৷ গতবছর সেদেশের ৮২৬ আশ্রয়প্রার্থীকে আবেদন বাতিল হওয়ার পর নিজ দেশে ফেরত পাঠিয়েছে জার্মানি৷

জার্মানির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, আফ্রিকার অন্যান্য দেশ, বিশেষ করে ঘানা এবং গাম্বিয়াতেও অনেক শরণার্থীকে ফেরত পাঠানো হয়েছে৷ এমনকি রাশিয়াতেও ফেরত পাঠানো হয়েছে ৪২২ শরণার্থীকে৷ ২০১৭ সালে এই সংখ্যা ছিল ১৮৪৷ দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে ভারতে গতবছর ফেরত পাঠানো হয়েছে ২১২ শরণার্থীকে৷ আগের বছর এই সংখ্যা ছিল মাত্র ৩২৷

প্রসঙ্গত, আশ্রয়ের আবেদন বাতিল হওয়া আফগান শরণার্থীদের নিজ দেশে ফেরত পাঠানো নিয়ে জার্মানিতে গতবছর ব্যাপক বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছিল৷ তাসত্ত্বেও ২৮৪ শরণার্থীকে আফগানিস্তানে ফেরত পাঠাতে সক্ষম হয়েছে ইউরোপের দেশটি৷

এদিকে, টিউনিশিয়া, মরক্কো এবং আলজেরিয়াতে আরো শরণার্থীকে ফেরত পাঠাতে দেশগুলোকে ‘নিরাপদ দেশের' তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করতে চায় জার্মানি৷ এতে করে অনেক শরণার্থীকে সেসব দেশে ফেরত পাঠানো সহজ হবে বলে মনে করে বার্লিন৷ তবে এই প্রক্রিয়ায় বাধ সেধেছে জার্মান সংসদের উচ্চকক্ষ বুন্ডেসরাট৷ গতসপ্তাহে দেশ তিনটি এবং জর্জিয়াকে নিরাপদ রাষ্ট্র ঘোষণার এক খসড়া আইন অনুমোদন দেয়নি উচ্চকক্ষ৷

এআই/জেডএইচ (এএফপি, ডিপিএ)

আমাদের অনুসরণ করুন