নগরবাসীদের ভয় কিসে ও কেন?

সমাজ-সংস্কৃতি

সন্ত্রাসী আক্রমণ

ইউরোপ কিংবা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে শহরবাসীদের সবচেয়ে বড় ভয় হল কোনো আচম্বিত ও অপ্রত্যাশিত সন্ত্রাসী আক্রমণ – অথচ কাবুল কিংবা আলেপ্পোর তুলনায় পশ্চিমে খুব কম মানুষই সন্ত্রাসের শিকার হন৷

সমাজ-সংস্কৃতি

জলবায়ু পরিবর্তন

পিউ রিসার্চ সেন্টারের জরিপ অনুযায়ী পশ্চিমে শহরবাসীদের কাছে দ্বিতীয় বৃহত্তম আশঙ্কার উৎস হলো জলবায়ু পরিবর্তন৷ বিশ্বের অধিকাংশ শহরই হয় সমুদ্রের উপকূলে, নয়ত নদীতীরে অবস্থিত (ছবিতে হিউস্টন); কাজেই সাগরের পানির উচ্চতা বাড়লে শহরগুলির বিপদ ঘটবে বৈকি৷ অপরদিকে তথাকথিত হটহাউস গ্যাসগুলির ৭৫ শতাংশ আসে শহরগুলি থেকে৷

সমাজ-সংস্কৃতি

আবহাওয়ার চরম...

জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে আবহাওয়া যে চরমে উঠথে, সে বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই৷ এ বছর ‘ইর্মা’ কিংবা ‘হার্ভে’-র মতো ঘূর্ণিঝড় বা (ছবিতে) মুম্বইতে বর্ষার প্লাবন – এ সবই লক্ষ লক্ষ মানুষের, বিশেষ করে দরিদ্র মানুষের জীবন ও জীবিকার বিপদ ঘটাচ্ছে৷

সমাজ-সংস্কৃতি

প্রাকৃতিক বিপর্যয় ঘটলে ফাঁদে

ভূমিকম্প বা সুনামির মতো প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে শহরবাসীরা সবচেয়ে বেশি বিপদে পড়েন, কেননা তাদের পালাবার পথ নেই৷ অপরদিকে অতি স্বল্পসময়ের মধ্যে হাসপাতাল, পথঘাট এবং সেতু, বিদ্যুৎ ও পানি সরবরাহ ভেঙে পড়তে পারে৷

সমাজ-সংস্কৃতি

সাইবার আক্রমণ

নগরসভ্যতায় আজ পানি কি বিদ্যুৎ সরবরাহ, পরিবহণ কিংবা হাসপাতাল – সবই চলে কম্পিউটারে৷ তাই এই সব কম্পিউটার প্রণালীর উপর হ্যাকারদের সাইবার আক্রমণের সম্ভাবনা নগরবাসীদের তৃতীয় বৃহত্তম আশঙ্কা – বলছে পিউ রিসার্চ সেন্টারের জরিপ৷

সমাজ-সংস্কৃতি

যানজট ও পরিবহণে অচলাবস্থা

শহরে বাসস্থান থেকে কর্মস্থান, সব কিছু কাছে হওয়ার কথা৷ কিন্তু শহরের কেন্দ্রীয় এলাকাগুলিতে বাড়িভাড়া আকাশছোঁয়া হওয়ার ফলে বহু মানুষ অনিচ্ছাসত্ত্বেও ‘ডেইলি প্যাসেঞ্জার’ হয়ে পড়েছেন, অনেক সময় নিজের গাড়িতে৷ জার্মানিতে শ্রমিক-কর্মচারীদের ৬০ শতাংশই কাজে আসেন দূরদূরান্ত থেকে; কাজেই পথে যানজট, শহরে যানজট ও সেই পরিমাণে বায়ুদূষণ৷

সমাজ-সংস্কৃতি

অপরাধবৃত্তি

শহর-নগর অপরাধের কেন্দ্রস্থল: চোরডাকাতি, ধর্ষণ, সহিংসতা৷ বিশ্বের সবচেয়ে বিপজ্জনক শহরগুলি হলো মধ্য ও দক্ষিণ অ্যামেরিকায়: ভেনেজুয়েলার কারাকাসে প্রতি এক লাখ বাসিন্দার অনুপাতে বছরে ১৩০ জন মানুষ খুন হন; মেক্সিকোর আকাপুলকোয় এই সংখ্যা হলো ১১৩; হন্ডুরাসের সান পেদ্রো সুলায় বছরে প্রতি এক লাখ মানুষ প্রতি খুন হন ১১২ জন মানুষ৷ একমাত্র যুদ্ধের এলাকায় এর চেয়ে বেশি মানুষ প্রাণ হারান৷

সমাজ-সংস্কৃতি

ধনি-দরিদ্র

বড় বড় শহরগুলিতে ধনি-দরিদ্রের ব্যবধান বিশেষ করে চোখে পড়ে: একদিকে বিপুল সম্পদ ও সেই পরিমাণে সম্ভোগ; অন্যদিকে বস্তি ও হাভেলা, অভাব-অনটন ও সহিংসতা৷

সমাজ-সংস্কৃতি

তবুও মানুষ শহরের খোঁজে

লক্ষ লক্ষ উদ্বাস্তু শহরে আসেন গ্রাসাচ্ছাদন, নিরাপত্তা ও সুন্দর জীবনের খোঁজে৷ (ছবিতে বার্লিনের) সরকারি কার্যালয়ে নাম লেখানোর জন্য ছেলে কোলে দাঁড়ানো উদ্বাস্তু মায়ের কাছে শহর, এমনকি বিদেশি শহরও ভয়ভীতি নয়, আশার প্রতীক, সম্ভাবনাময় ভবিষ্যতের প্রতীক৷

শহরগুলি চুম্বকের মতো মানুষজনকে টানে৷ শহরে আছে অবকাঠামো, শিক্ষা, চাকুরি ও সামাজিক মেলামেশা....কিন্তু শহরগুলির আয়তন ও জনসংখ্যাই তাদের সমস্যা হয়ে দাঁড়াচ্ছে৷

হেলে ইয়েপেসেন/এসি