প্রকৃতিই যখন মঞ্চসজ্জার প্রেক্ষাপট

মঞ্চসজ্জা নাটক বা জলসার আকর্ষণ আরও বাড়িয়ে তুলতে পারে৷ কিন্তু সেই মঞ্চ প্রকৃতির কোলে একটি হ্রদের উপর হলে প্রকৃতি ও নিসর্গও মঞ্চসজ্জার অংশ হয়ে উঠতে পারে৷ এক শিল্পী অস্ট্রিয়ায় এমনই এক জাদুময় পরিবেশ সৃষ্টি করছেন৷

নারীর বিশাল দু'টি হাত উড়ন্ত তাস দিয়ে যুক্ত৷ কারমেনের মুক্তির সংগ্রামের এটাই প্রতীক৷ জর্জ বিসে-র অপেরায় ঊনবিংশ শতাব্দীর সেভিল শহরের এই দৃশ্য অস্ট্রিয়ার ব্রেগেনৎস শহরে ভাসমান মঞ্চে জীবন্ত হয়ে উঠছে৷

সমাজ-সংস্কৃতি | 04.08.2017

ব্রিটিশ মঞ্চশিল্পী এস ডেভলিন অনেককাল ধরে সঠিক মঞ্চসজ্জা নিয়ে ভাবনাচিন্তা করেছেন৷ তারপর কনস্টানৎস হ্রদে তিনি এক বিশাল ভাস্কর্য সৃষ্টি করেন৷ তিনি বলেন, ‘‘এই হ্রদের প্রেক্ষাপটে ২০ বছর ধরে কাজ করা বিশাল দায়িত্বের কাজ৷ চারটি দৃশ্যের জন্য একটি আইডিয়া আঁকড়ে ধরে কাজ করতে হয়৷ চারটি ভিন্ন আইডিয়ার অডিশন করে একটি বেছে নিয়েছি৷ অনেক উৎকণ্ঠা ও বিনিদ্র রাত কেটেছে৷''

কারমেন এমন এক চরিত্র, সব পুরুষ যাকে ভালোবাসে৷ নিজের স্বাধীনতা বজায় রাখতে শেষ পর্যন্ত সে অবশ্য নিঃসঙ্গ থেকে যায়৷ ৫৯টি বিশালাকার তাস সেই মুহূর্তের প্রতীক তুলে ধরে, যখন কারমেন তার ভবিষ্যৎ দেখতে চায়৷ এস ডেভলিন বলেন, ‘‘এই মঞ্চে কারমেনই সঠিক নাটক, কারণ স্বাধীনতা বা বাতাস, নিয়তি ও পানির একটা টান অনুভব করা য়ায়৷ তাই আমাদের মনে হলো, এই সব তাস উপর ও নীচের টানের মধ্যে ভারসাম্য বজায় রাখতে পারে৷''

মঞ্চসজ্জায় হ্রদের পারিপার্শ্বিক পরিবেশকে শামিল করা তাঁর জন্য অত্যন্ত জরুরি ছিল৷ এস ডেভলিন মনে করেন, ‘‘নাটকের প্রথম পর্ব প্রকৃতির৷ সূর্যাস্ত বা পানি যা করছে, পাখি ও হাস যা করছে – সেই পর্ব তারই অংশ৷ বৃহত্তর এই মঞ্চ থেকে দর্শকদের মনোযোগ আকর্ষণ করাই আমাদের কাজ৷ নাটক শুরু হওয়ার ২৫, ২৬, ২৭ মিনিট পর আকাশ ধীরে ধীরে অন্ধকার হয়ে ওঠে৷ তখন মঞ্চের প্রতি মনোযোগ অনেক বেড়ে যায়৷ তারপর পুরো অন্ধকার হয়ে যায়৷ প্রকৃতি থেকে শিল্পের কাছে হস্তান্তর ঘটে৷ সমসাময়িক পপ গায়ক হোক আর ঊনবিংশ শতাব্দীর অপেরা শিল্পীর লেখা গানই হোক, প্রক্রিয়াটা একই থাকে৷ গানের কথা পড়তে হয়, নিজের বোধশক্তি কাজে লাগিয়ে সেই গানের গল্প বলতে একটা পরিবেশ স্থির করতে হয়৷''

হ্রদের ধারে অপেরায় কাজ করে ব্যস্ত এই মঞ্চসজ্জা শিল্পী নতুন এক জগত আবিষ্কার করেছেন৷ এস ডেভলিন বলেন, ‘‘এতে সত্যি সবচেয়ে আনন্দ পাই৷ আমি এখানে পাকাপাকিভাবে থাকতে চলে আসবো৷ সেটাই ইচ্ছা৷ পাহাড়ের উপর বাড়ি তৈরি করবো, টিম এখানে নিয়ে আসবো৷''

‘কারমেন' ব্রেগেনৎস শহরে এস ডেভলিন-এর শেষ কাজ নয়৷ ২০শে আগস্ট পর্যন্ত বর্তমান মৌসুম চলবে৷ তারপর আবার পরের বছরের গ্রীষ্মে এই উৎসব ফিরে আসবে৷

সংস্কৃতি

এল্বফিলাহার্মোনি হামব্যুর্গ, জার্মানি

১১ জানুয়ারি জার্মানির এই বৃহত্তর কনসার্ট হলটির উদ্বোধন হয়৷ এমনভাবে এটি তৈরি, যে সমুদ্রবন্দরের একফোটা শব্দ এর ভেতরে প্রবেশ করে না৷ একটি মালগুদামের উপর কাচের এই বাড়িটি যেন জলের ওপর ভাসছে৷ এটি নির্মাণ করতে সময় লেগেছে একদশক৷

সংস্কৃতি

গুয়াংসৌ অপেরা হাউজ, চীন

পার্ল নদীর উপর এই ভবনটি নির্মাণ করা হয়েছে৷ বিশাল আকৃতির একটি প্রস্তরখণ্ডের মত দেখতে এটি৷

সংস্কৃতি

অপেরা সিডনি, অস্ট্রেলিয়া

অসাধারণ এই স্থাপত্যের নির্মাতা ডেনিশ স্থপতি ইয়র্ন উৎসন৷ এটির নির্মাণ শেষ হওয়ার আগেই যিনি পদত্যাগ করেছিলেন৷ এর পেছনে খরচ হয়েছিল প্রচুর অর্থ, ছড়িয়ে পড়েছিল অনেক গুজব৷ ১৪ বছর লেগেছিল এটির নির্মাণ কাজ শেষ হতে৷ চালু হয়েছিল ১৯৭৩ সালে৷ ২০০৭ সালে জাতিসংঘের বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকায় স্থান পায় এটি৷ ছ’বছরের সংস্কার শেষে চলতি বছরের মে মাসে আবারও এটি চালু হবে৷

সংস্কৃতি

ন্যাশনাল সেন্টার ফর দ্য পারফর্মিং আর্টস, চীন

বেইজিং-এ তিয়েনানমেন স্কয়ার থেকে খুব বেশি দূরে নয়, কিছুটা পথ গেলেই কৃত্রিম লেকের উপর ‘বিশাল একটি ডিম’ বা ‘পানির ফোটা’-র মতো এই ভবনটির দেখা পাবেন৷ ফরাসি স্থপতি পল অ্যান্ড্রু ১৯৯৯ সালে এটি নির্মাণ করেন৷

সংস্কৃতি

পালাউ দে লেজার্ত রেইনা সোফিয়া, স্পেন

নিজের জন্মস্থান ভ্যালেন্সিয়ায় শিল্প ও বিজ্ঞানের অপূর্ব সংমিশ্রণে একটি পুরো শহর নির্মাণ করেছেন বিশ্বখ্যাত স্থপতি সান্তিয়াগো কালাত্রাভা৷ ‘কুইন সোফিয়া প্যালেস অফ দ্য আর্টস’-এর অনন্য নিদর্শন ৷ এটি দেখে কী মনে হয়? ভবন বা স্থাপত্য? নাকি কোনো বিশালাকৃতির রাজহাঁস বা একটি তিমি?

সংস্কৃতি

ওয়াল্ট ডিজনি কনসার্ট হল, লস অ্যাঞ্জেলেস, যুক্তরাষ্ট্র

লস অ্যাঞ্জেলেসের ফিলহার্মোনিক অর্কেস্ট্রার হোম ভেন্যু এটি, বর্তমানে যেটির পরিচালক গুস্তাভো দ্যুদামেল৷ বিশাল একটি ফুলের মতো দেখতে এই স্থাপনাটির নামকরণ করা হয়েছে ওয়াল্ট ডিজনির নামে৷

সংস্কৃতি

এসপ্লানাডে থিয়েটার্স অন দ্য বে, সিঙ্গাপুর

দু’টি গোলাকৃতির কাঠামো এবং ৭ হাজার ত্রিকোণাকৃতির কাচ দিয়ে স্থাপনাটি নির্মিত৷ স্থানীয় মৌসুমী ফলের নামে স্থানীয়রা এটির নাম দিয়েছেন ‘ডুরিয়ান’৷ সিঙ্গাপুরের সিম্ফোনি অর্কেস্ট্রা এই কনসার্ট হলে প্রায়ই অনুষ্ঠান করে৷ এখানে আসন সংখ্যা ১৬০০৷ এছাড়া নাটক ও অন্যান্য পারফর্মেন্সের জন্য আলাদা ২০০০ আসন রয়েছে৷

সংস্কৃতি

হার্পা মিউজিক হল, রাইকজাভিক, আইসল্যান্ড

আংশিক রং করা কাচের বিল্ডিং ব্লকগুলোকে মৌমাছির চাকের মতো বসিয়ে আলোর জাদু সৃষ্টি করেছেন শিল্পী ওলাফুর এলিয়াসন৷ দিনের বেলায় বাইরে থেকে কাচের ওপর আলো পড়ে বর্ণালীর সৃষ্টি হয়, রাতে ভবনটির ভেতরের আলো জ্বললে পুরো ভবনটি রঙ বদলায় বহুরূপীর মতো৷

সংস্কৃতি

সেজ গেটসহেড, ইংল্যান্ড

গেটসহেড আর নিউক্যাসলের মধ্যে টাইন নদীর ওপর সাতটা সেতু৷ তার মধ্যে মিলেনিয়াম ব্রিজটি সেজ গেটসহেড কনসার্ট হলের ওপর দিয়ে চলে গেছে৷ পুরো ভবনেই আলো জ্বলে৷ এর নকশা করেছেন প্রখ্যাত স্থপতি স্যার নর্মান ফস্টার৷ উদ্বোধন করা হয় ২০০৪ সালে৷ কনসার্ট হলটি প্রতিদিন ১৬ ঘণ্টা করে বছরে ৩৬৪ দিন খোলা থাকে৷

সংস্কৃতি

কালচারাল সেন্টার হেডার আলিয়েভ, আজারবাইজান

এই সাংস্কৃতিক কেন্দ্রটি বাকু শহরে কাসপিয়ান সমুদ্রের ওপর নির্মিত৷ বর্তমান প্রেসিডেন্টের নামে নামকরণ করা হয়েছে এটির৷ ২০০৭ সালে এটির নকশা করেন স্থপতি জাহা হাদিদ৷

গেয়ারহার্ড সনলাইটনার/এসবি

আরো প্রতিবেদন...