ফেসবুকের কাছে উত্তর চায় জার্মানি

জার্মানির বিচারমন্ত্রী কাটারিনা বার্লে ফেসবুক প্রতিষ্ঠাতা মার্ক সাকারবার্গকে তাঁর অফিসে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন৷ ব্যবহারকারীদের তথ্যের নিরাপত্তা সংক্রান্ত কেলেংকারি বিষয়ে তাঁকে কিছু প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে বলে জানান বার্লে৷

সংবাদপত্র প্রকাশক ফুংকে-মিডিয়েনগ্রুপে’কে দেয়া সাক্ষাৎকারে বার্লে এই কেলেংকারিকে গণতন্ত্রের জন্য হুমকি বলেও মন্তব্য করেন৷

পরে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি জার্মান ফেসবুক ব্যবহারকারীদের অ্যাকাউন্ট ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কিনা এবং এমন ঘটনা যেন ভবিষ্যতে না ঘটে সেজন্য ফেসবুক কী ধরনের পরিকল্পনা গ্রহণ করছে সে তথ্য দিতে ফেসবুকের কাছে দাবি জানান৷

উল্লেখ্য, গত রবিবার ব্রিটেনের অবজারভার ও যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক টাইমস পত্রিকায় প্রকাশিত খবরে জানা যায়, কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা নামে ব্রিটেনের এক কোম্পানি বছর কয়েক আগে ফেসবুকের প্রায় পাঁচ কোটি ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য হাতে পেয়েছিল৷ একটি অ্যাপের সাহায্যে সেটি সম্ভব হয়েছিল৷ অ্যাপটির নাম ছিল ‘দিসইজমাইডিজিটাললাইফ’৷ কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার হয়ে কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞানের শিক্ষক আলেক্সান্ডার কোগান এটি তৈরি করেছিলেন৷ মূলত কুইজের এই অ্যাপ দিয়ে ২০১৫ সালে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের উপর একটি জরিপ চালানো হয়৷

ফেসবুকের কিছু ‘সিক্রেট’

দেখুন কে আপনাকে ফিরিয়ে দিলো

আপনি যদি দেখতে চান কে কে আপনার বন্ধুত্বের আহ্বানে সাড়া দেননি, তাহলে সুসংবাদ (অথবা দুঃসংবাদ, নির্ভর করছে আপনি কতটা জনপ্রিয়)৷ খুব সহজেই করতে পারেন৷ কোনো ব্রাউজারে (অ্যাপে নয়) ফেসবুক খুলুন৷ ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট ট্যাবে ক্লিক করুন, ভিউ অলে চাপ দিন৷ ‘ভিউ সেন্ট রিকোয়েস্ট’-এ যান৷ পেয়ে যাবেন৷

ফেসবুকের কিছু ‘সিক্রেট’

অজানা মানুষের সঙ্গে যুক্ত হোন

আপনার ফেসবুক নিউজফিডে নিশ্চয়ই একের পর এক লাইভ ভিডিও আসতেই থাকে৷ কিন্তু জানেন কি, আপনি ফেসবুক লাইভ ম্যাপ দিয়ে দেখতে পারেন এই মুহূর্তে সারাবিশ্বে কে কে লাইভে আছেন? সহজ উপায়৷ লাইভ ভিডিও আইকনে গিয়ে বাম দিকের নেভিগেশন বারে গিয়ে দেখতে পারেন কে কে এই মুহূর্তে লাইভ ভিডিও করছেন৷ অথবা ইংরেজিতে ফেসবুক ডট কমের পরে স্ল্যাশ দিয়ে লাইভম্যাপস লিখলেও চলে আসবে৷

ফেসবুকের কিছু ‘সিক্রেট’

আপনার ‘অন্য’ ইনবক্স দেখেন কি?

আপনার আদার বা অন্য ইনবক্সটি খেয়াল রাখেন তো? যদি ফেসবুক মনে করে কোনো একটি মেসেজ স্প্যাম, তাহলে সেটি আপনার মেসেজ রিকোয়েস্ট ইনবক্সে চলে যায়৷ একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত সেখানে থাকে৷ এরপর ফিলটার্ড হয়ে যায়৷ ফিলটার্ড মেসেজও আপনি চাইলে দেখতে পারবেন, ক্লিক করুন ‘See Filtered Message’৷

ফেসবুকের কিছু ‘সিক্রেট’

ক’টা ছবি লাইক করলেন এ পর্যন্ত

দেখে নিন এ পর্যন্ত ক’টা ছবি লাইক দিয়েছেন ফেসবুকে৷ আপনার প্রোফাইলে গিয়ে সার্চ বাটনে লিখুন ‘Photos Liked By Me’৷ কে কে এখন পর্যন্ত আপনার ছবি লাইক দিয়েছে তা-ও জেনে নিন৷ লিখুন, ‘Photos Liked by .....’৷ খালি জায়গায় ঐ ব্যক্তির নামটি লিখুন৷ আপনি এছাড়াও বছর ও জায়গা দিয়েও ছবি সাজাতে পারেন৷ করলেন? এবার ছবি দেখে দেখে স্মৃতি রোমন্থন করুন৷

ফেসবুকের কিছু ‘সিক্রেট’

গেমস খেলুন মেসেঞ্জারে

মেসেঞ্জার অ্যাপ যারা আলাদা করে ব্যবহার করেন, তারা নীচে গেমস অপশনে গিয়ে বন্ধুদের সঙ্গে জমিয়ে নানা গেমস খেলতে পারেন৷ চেস, স্কি, বাস্কেটবলসহ অনেক গেমস৷ চাইলে চ্যালেঞ্জও ছুঁড়ে দিতে পারেন বন্ধুদের৷

ফেসবুকের কিছু ‘সিক্রেট’

লগ আউট করতে ভুলে গেছেন?

হয়তো আপনি অন্য কারো কম্পিউটার বা অফিসের কম্পিউটারে বা কোনো সাইবার ক্যাফের কোনো পিসিতে বসে ফেসবুক লগইন করেছিলেন৷ কিন্তু ফেরার সময় লগ আউট করতে ভুলে গেছেন৷ কোনো সমস্যা নেই৷ অন্য কোথাও লগইন করুন৷ সেটিংসের সিকিউরিটি অপশনে যান৷ এরপর যেখানে লগইন করেছেন সেই জায়গায় যান এবং ‘log out’ চাপুন৷ ব্যস হয়ে গেল৷

ফেসবুকের কিছু ‘সিক্রেট’

যারা চোখে দেখতে পান না তাদের জন্য..

দু’বছর আগে ফেসবুক নতুন একটি ভয়েস টুল চালু করে যারা চোখে দেখতে পান না তাদের জন্য৷ সেই টুল বলে দেয় একটি ছবিতে কী কী বস্তু আছে৷ কয়েক মাস আগে তারা ফেস রিকগনিশন টুলটি আপগ্রেড করেছে৷ এখন টুলটি বলে দেয়, একটি ছবিতে কে কে আছেন তাদের পরিচয়, কারা সেখানে লাইক বা রিঅ্যাক্ট করেছে তাদের পরিচয় এবং কমেন্টে কী কী লেখা হয়েছে সেগুলো৷

ফেসবুকের কিছু ‘সিক্রেট’

রক্ত দিন, জীবন বাঁচান

ফেসবুক বাংলাদেশে একটি বিশেষ ফিচার চালু করেছে৷ সেখানে যার রক্ত প্রয়োজন এবং যারা রক্ত দাতা, তারা রেজিস্টার করতে পারবেন৷ তাতে দেশটিতে খুব সহজে রক্তের ঘাটতি পূরণ হবে বলে মনে করে ফেসবুক৷

এর মাধ্যমে কুইজে অংশগ্রহণকারীদের ব্যক্তিত্বের বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করেছিল কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা৷ প্রায় তিন লক্ষ ২০ হাজার ফেসবুক ব্যবহারকারী কুইজে অংশ নিয়েছিলেন বলে জানা যায়৷ অর্থাৎ কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা অ্যাপের মাধ্যমে তিন লক্ষ ২০ হাজার জনের বিস্তারিত তথ্য পেয়েছিল৷ তবে শুধু তাই নয়, ফেসবুকের সেই সময়কার নীতি অনুযায়ী, অ্যাপটির মাধ্যমে ঐ তিন লক্ষ ২০ হাজার জনের বন্ধুদেরও বিস্তারিত তথ্য কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার হাতে চলে এসেছিল৷ সবমিলিয়ে প্রায় পাঁচ কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীর তথ্য পেয়েছিল ঐ গবেষণা সংস্থাটি৷ পরবর্তীতে এই তথ্য সংস্থাটির সেই সময়কার ক্লায়েন্ট ও বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচনি প্রচারণায় ব্যবহার করা হয় বলে অভিযোগ উঠেছে৷ ঐসব তথ্যের ভিত্তিতে বিজ্ঞাপন তৈরি এবং ভোটারদের ব্যক্তিত্ব অনুযায়ী তাঁদের কাছে নির্দিষ্ট বার্তা পৌঁছানোর ব্যবস্থা করা হয়৷

এই প্রক্রিয়া ট্রাম্পকে নির্বাচনে জয়ী হতে ভূমিকা রাখে বলে দাবি করেছিলেন কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার সদ্য বরখাস্ত প্রধান নির্বাহী আলেক্সান্ডার নিক্স৷ ব্রিটেনের চ্যানেল ফোর-এর একদল ছদ্মবেশী সাংবাদিকের কাছে তিনি এমন মন্তব্য করেছিলেন৷ অবশ্য আনুষ্ঠানিকভাবে কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা ট্রাম্পের প্রচারণায় ফেসবুকের তথ্য ব্যবহার করার বিষয়টি অস্বীকার করেছে৷

সাকারবার্গের ক্ষমাপ্রার্থনা

কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার বিষয়টি সামনে আসায় গত কয়েকদিনে ফেসবুকের শেয়ারমূল্যের ব্যাপক দরপতন হয়েছে৷ এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রসহ ব্রিটেন, জার্মানি, ইউরোপীয় পার্লামেন্ট এই ঘটনায় ফেসবুকের সমালোচনা করেছে৷

এমন প্রতিক্রিয়ার জবাবে বুধবার মুখ খোলেন সাকারবার্গ৷ সিএনএনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এই ঘটনায় ‘খুবই দুঃখিত’ বলে জানান৷ সাকারবার্গ বলেন, ‘‘এটি বিশ্বাস ভঙ্গের একটি বড় ঘটনা৷ এমনটা যে ঘটেছে, সেজন্য আমি খুবই দুঃখিত৷ আপনাদের ডাটার নিরাপত্তা দেয়ার দায়িত্ব আমাদের৷ আমরা যদি তা না পারি তাহলে আমরা আপনাদের সেবা দেয়ার দায়িত্ব নিতে পারিনা৷’’ এমন ঘটনা যেন আর না ঘটে তার জন্য ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলেও জানান সাকারবার্গ৷

জেডএইচ/এসবি (এএফপি, রয়টার্স)

আরো প্রতিবেদন...

আমাদের অনুসরণ করুন