বছরের সেরা ‘#মি টু’: টাইম ম্যাগাজিন

যৌন হয়রানির বিরুদ্ধে সচেতনতা গড়ে তুলতে সারা বিশ্বে আলোড়ন তোলা ‘#মি টু’ ক্যাম্পেইন এবারের টাইম ম্যাগাজিনের ২০১৭ সালের সবচেয়ে প্রভাব বিস্তারকারীর খেতাব জিতেছে৷

বুধবার টাইম ম্যাগাজিনের পক্ষ থেকে এ ঘোষণা দেয়া হয়৷ এডিটর-ইন-চিফ এডওয়ার্ড ফেলসেনথাল যৌন হয়রানির বিরুদ্ধে এ প্রচারণায় অংশগ্রহণকারীদের ‘দ্য সাইলেন্স ব্রেকারস’ উল্লেখ করে বলেন, ‘‘কয়েক দশকের মধ্যে সামাজিক পরিবর্তনের ক্ষেত্রে এটিই সবচেয়ে দ্রুত বিস্তার লাভ করেছে এবং এর শুরু শত শত নারী, কিছু ক্ষেত্রে পুরুষও যখন সাহস করে এগিয়ে এসে তাদের ব্যক্তিগত গল্প বলা শুরু করেছে৷’’ 

সমাজ

ইভ টিজিং আজও এক বড় সমস্যা

বাংলাদেশে নারীদের জন্য ইভ টিজিং একটি বড় সমস্যা৷ পথ চলতে নারীরা হরহামেশাই ইভ টিজিং-এর শিকার হন৷ ইভ টিজিং-এর কারণে অনেক নারী শিক্ষার্থীর স্কুল-কলেজে যাওয়া বন্ধ হয়েছে৷ এমনকি এর বঞ্চনা সইতে না পেরে অনেকে আত্মহননের পথও বেছে নিয়েছেন৷ (প্রতিকী ছবি)

সমাজ

আত্মরক্ষার পাশাপাশি শারীরিক সুস্থতা

তাই এবার আত্মরক্ষার জন্য মার্শাল আর্ট বা কারাতে (বানানভেদে ক্যারাটে) প্রশিক্ষণের দিকে ঝুঁকছেন বাংলাদেশের নারীরা৷ তবে শুধু আত্মরক্ষা নয়, পাশাপাশি শারীরিক সুস্থতার জন্যও অনেকে আজকাল এই প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন৷ যেমন ঢাকার রামপুরার বনশ্রী এলাকার একটি স্কুলে কারাতে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে৷

সমাজ

নারীদের কারাতে শিখতে উৎসাহ দেওয়া

ঢাকার বনশ্রী এলাকায় ওসমানী স্পোর্টস স্কুলে নানা রকম খেলাধুলার সঙ্গে কারাতে প্রশিক্ষণ দেন প্রশিক্ষক আশেক ওসমানী৷ তাঁর মতে, নারীদের মধ্যে কারাতে প্রশিক্ষণের প্রতি উৎসাহ দিনে দিনই বাড়ছে৷

সমাজ

নারীদের জন্য বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ

মাত্র দু’জন শিক্ষর্থীকে নিয়ে শুরু করা এ স্কুলে এ মুহূর্তে কারাতে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন দেড়শ’ জনেরও বেশি প্রশিক্ষণার্থী৷ তাছাড়া ওসমানী স্পোর্টস স্কুলে অর্থিকভাবে অসচ্ছল নারীদের বিনামূল্যে প্রশিক্ষণেরও ব্যবস্থা আছে৷

সমাজ

শিক্ষার্থীদের অধিকাংশই নারী অথবা শিশু

ওসমানী স্পোর্টস স্কুলে প্রশিক্ষণ নিতে আসাদের মধ্যে অধিকাংশই নারী৷ তবে মোটের ওপর বাংলাদেশে কারাতে প্রশিক্ষণ কেন্দ্রগুলোতে শিশু শিক্ষার্থীর হার সবচেয়ে বেশি৷

সমাজ

যৌন হয়রানি বেড়ে যাওয়ায় কারাতে শেখা

আইরিন পেশায় ডাক্তার৷ ছোটবেলা থেকেই কারাতের প্রতি তাঁর ঝোঁক ছিল৷ কিন্তু সে সময় বাসার আশেপাশে কারাতে শেখার তেমন কোনো জায়গা না থাকায় শেখার সুযোগ হয়নি তাঁর৷ তবে দেশে ইভ টিজিং এবং যৌন হয়রানি বেড়ে যাওয়ায় এখন কারাতে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন তিনি৷

সমাজ

আত্মরক্ষার জন্য প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন মুমতাহিন

মুমতাহিন জাহান পড়েন ঢাকা ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউটে৷ পড়ালেখার কারণে অনেক সময়ই তাঁকে রাত-বিরেতে চলতে হয়৷ তাই নিজের আত্মরক্ষার কথা ভেবেই তিনি কারাতে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন৷

সমাজ

সমাজের অমূলক ভ্রান্ত ধারণা ভাঙতে কারাতে

ইশরাত জাহান গৃহিনী৷ স্কুল পড়ুয়া একমাত্র কন্যাকে তিনি কারাতে স্কুলে নিয়ে আসেন নিয়মত৷ নিজে স্কুলে পড়ার সময়ে একবার কারাতে প্রশিক্ষণে ভর্তি হলেও পরিবার ও মানুষের চাপে তিনি সেটা করতে পারেননি৷ মেয়েদের কারাতে শেখা ঠিক নয় – এই ধরনের অমূলক ভ্রান্ত ধারণা ভাঙতেই তাই আজ নিজের মেয়েকে কারাতে শেখাচ্ছেন ইশরাত৷ তাঁর মতে, বাংলাদেশের মেয়েদের আত্মরক্ষার কৌশল জানা খুবই জরুরি৷

সমাজ

মফস্বলের নারীদের জন্যও চাই আত্মরক্ষার কৌশল

কারাতে প্রশিক্ষক আশেক ওসমানী শহরের বাইরে থেকে আসা নারীদের জন্য একটি নতুন প্রকল্প শুরুর কথা ভাবছেন৷ তাঁর মতে, শহরের চেয়ে গ্রামে ইভ টিজিং-এর হার কোনো অংশে কম নয়৷ তাই মফস্বল এলাকার কিছু স্কুলের পাঁচজন করে শিক্ষার্থীকে আত্মরক্ষার কৌশল শেখাতে চান তিনি৷ উদ্দেশ্য – তাঁর কাছে শেখা শিক্ষার্থীরাই আবার স্কুলের বাকি শিক্ষার্থীদের আত্মরক্ষার কৌশল শেখাবে৷ এতে করে মফস্বলের নারীরাও আত্মরক্ষার কৌশল শিখতে পারবেন৷

কৃষ্ণাঙ্গ নারী তারানা বুর্কে ২০০৬ সালে যৌন নির্যাতনবিরোধী ‘মি টু’ আন্দোলন শুরু করেছিলেন৷ এরপর হলিউডের প্রযোজক হার্ভে উইনস্টেইনের যৌন কেলেঙ্কারির খবর ফাঁসের সূত্র ধরে মার্কিন অভিনেত্রী অ্যালিসা মিলানো ‘মি টু’ হ্যাশট্যগের এই প্রচারণা শুরু করেন আবারো৷ যৌন নিপীড়ন ও হয়রানির ঘটনা প্রকাশ করতে নারীদের উৎসাহিত করতে এ প্রচারণা দ্রুত জনপ্রিয় হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে৷ একসময় যৌন নিপীড়নবিরোধী এই প্রচারণায় নারীদের পাশাপাশি যোগ দেয় পুরুষেরাও৷ সামাজিক মাধ্যমে ভাগাভাগি করেন তাঁদের যৌন হয়রানির কথাও৷ তারানা বুর্কে বলেন, ‘‘আমি কখনোই ভাবিনি যে, সারা পৃথিবীকে বদলে দেবার মতো কিছু করছি৷ আমি শুরু আমার নিজের সমাজকে পাল্টাতে চাইছিলাম৷ এটা কেবল একটা মুহুর্ত নয়, এটা একটা আন্দোলন৷ এখন সত্যিকার অর্থেই কাজ শুরু হয়েছে৷’’

এর আগে ২০১৭ সালের ‘পার্সন অব দ্য ইয়ার’-এর জন্য মনোনীত ব্যক্তিদের মধ্য থেকে ১০ জনের একটি সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রকাশ করে টাইম ম্যাগাজিন৷ এবার রানার আপ নির্বাচিত হয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প৷ তার পরপরই নাম আছে চীনের প্রেসিডেন্ট শি চিনপিং৷ এছাড়াও সেরাদের তালিকায় আছেন উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উন, ওয়ান্ডার ওম্যানের নির্মাতা প্যাটি জেনকিনস ও বর্ণবাদের বিরুদ্ধের সোচ্চার কর্মী ফুটবল খেলোয়ার কলিন কপারনিক৷

টাইম ম্যাগাজিন ১৯২৭ সাল থেকেই ‘পার্সন অব দ্য ইয়ার’ ঘোষণা দিয়ে আসছে৷ বছরজুড়ে সংবাদমাধ্যমে সবচেয়ে প্রভাবশালী, ভালো বা মন্দ, ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান বা আন্দোলনকে নির্বাচন করে সংবাদমাধ্যমটি৷

ডিজিটাল বিশ্ব | 18.10.2017

এলিজাবেথ শুমাখার/ আরএন

পামেলা অ্যান্ডারসন

‘বে ওয়াচ’ আর ‘প্লেবয়’ পত্রিকার অতি জনপ্রিয় নাম পামেলা অ্যান্ডারসন৷ ১০ বছর বয়সে তাঁর বেবি সিটার পামেলাকে যৌন নির্যাতন করে৷ এরপর মাত্র ১২ বছর বয়সে পামেলার বান্ধবীর এক বড় ভাই-ও তাঁকে ধর্ষণ করেছিল৷

মেরিলিন মনরো

হলিউড অভিনেত্রী মেরিলিন মনরোর শৈশব কেটেছে একটি এতিমখানায়৷ আর সেখানেই বহুবার যৌন হয়রানির শিকার হতে হয়েছিল তাঁকে৷

লেডি গাগা

জনপ্রিয় পপ সংগীত শিল্পী লেডি গাগা জানিয়েছেন, ১৯ বছর বয়সে ধর্ষণের শিকার হয়েছিলেন তিনি৷ এই ঘটনাকে নিজের গান ‘সোয়াইন’-এ তুলে ধরেছেন তিনি৷ তার চেয়ে ২০ বছরের বড় সেই ধর্ষণকারী একজন প্রখ্যাত সংগীত পরিচালক, যাকে পরবর্তীতে দেখলে গাগা একেবারে স্তব্ধ হয়ে যেতেন৷ অনেক থেরাপি নেয়ার পর এই সমস্যা থেকে মুক্তি পান লেডি গাগা৷

অনুরাগ কাশ্যপ

না কেবল নারী তারকারাই নন, পুরুষ তারকারাও ছেলেবেলায় যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন৷ এমনই একজন বলিউডের বিখ্যাত চিত্র-পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপ৷ ১১ বছর ধরে টানা তাঁর উপর যৌন নির্যাতন চলেছিল বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন তিনি৷ তবে সেই দুঃস্বপ্নকে পেছনে ফেলে অচিরেই সামনে এগিয়ে গেছেন অনুরাগ৷

ম্যাডোনা

বিশ্বখ্যাত পপ শিল্পী ম্যাডোনা ১৯ বছর বয়সে ধর্ষণের শিকার হয়েছিলেন৷ প্রথমবারের মতো নিউ ইয়র্কে এসে তিনি যে অ্যাপার্টমেন্টটি ভাড়া নিয়েছিলেন, সেখানেই এক ব্যক্তি তাংর মুখের সামনে ছুরি ধরে তাঁকে ধর্ষণ করে৷ সেই দুঃসহ স্মৃ্তি আজও ভুলতে পারেন না তিনি৷

অপরাহ উইনফ্রে

টিভি সেলিব্রেটি অপরাহ উইনফ্রে মাত্র ন’বছর বয়সে পরিবারের অতি ঘনিষ্ঠ এক ব্যক্তির দ্বারা ধর্ষিতা হয়েছিলেন৷ উইনফ্রেকে তাঁর ১০ থেকে ১৪ বছর পর্যন্ত টানা ধর্ষণ করেছে ঐ ব্যক্তি৷

সোফিয়া হায়াত

অভিনেত্রী সোফিয়া হায়াতের শৈশবও খুব একটা সুখকর ছিল না৷ তিনিও যৌন হয়রানির শিকার হয়েছিলেন সেই শৈশবে৷ মাত্র ১০ বছর বয়সে তাঁর এক চাচা তাঁকে যৌন নির্যাতন করেছিল৷

আনুষ্কা শংকর

প্রখ্যাত সেতার বাদক রবি শংকরের কন্যা আনুষ্কা শংকর সেতার বাজিয়ে আজ নিজেও বিশ্বনন্দিত৷ পরিবারের অতি ঘনিষ্ঠ এক ব্যক্তির দ্বারা সেই অনুষ্কাও যৌন হয়রানির শিকার হন৷ কিন্তু পরিবারের অতি বিশ্বস্ত হওয়ায় সেই ব্যক্তির বিরুদ্ধে পরিবারকে কিছু জানাতে পারেননি৷ এতে তাঁর শৈশবের দিনগুলো ছিল ভীষণ পীড়াদায়ক৷ এছাড়া তারকা হওয়ার কারণে অনেক খ্যাতিমান ব্যক্তিত্বই তাঁর স্পর্শকাতর অঙ্গ স্পর্শ করেছে বলে জানিয়েছেন আনুষ্কা৷

কাল্কি কোচেলিন

এনডিটিভি-র এক অনুষ্ঠানে অনেক তারকা যখন নিজেদের ছোটবেলার মধুর স্মৃতি রোমন্থন করছিলেন, কাল্কি কোচেলিন তখন তুলে ধরেছিলেন নিজের জীবনের এক কষ্টদায়ক অভিজ্ঞতার কথা৷ ছোটবেলায় যৌন হয়রানির ভয়ঙ্কর স্মৃতি তাঁকে এখনো তাড়িয়ে বেড়ায় বলে জানিয়েছিলেন বলিউডের এই অভিনেত্রী৷ নারী অধিকার নিয়ে সর্বদা সোচ্চার কাল্কির অবশ্য স্পর্শকাতর বিষয় নিয়ে খোলাখুলি কথা বলতে কোনোদিনই কোনো সংকোচ ছিল না, আজও নেই৷