বন শহরের কাছেই তরুণী খুন, কেনীয় জার্মান গ্রেপ্তার

জার্মানির প্রাক্তন রাজধানী বনের কাছের সাঙ্কট আগুস্টিনে নিখোঁজ এক তরুণীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ৷ হত্যার অভিযোগে ইতোমধ্যে এক তরুণকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷

সতেরো বছর বয়সি তরুণীর মরদেহ রবিবার সাঙ্কট আগুস্টিনের একশরণার্থী ও গৃহহীনদেরআশ্রয় শিবির থেকে উদ্ধার করা হয়েছে৷ শুক্রবার তাঁর নিখোঁজ হওয়ার খবর পুলিশকে জানানো হয়৷ পুলিশ প্রথমে স্থানীয়দের সহায়তায় শরণার্থী শিবিরের কাছে একটি লেকের পাশ থেকে নিহত তরুণীর পোশাক ও ব্যাগ উদ্ধার করে৷ এরপর রবিবার তরুণীর মরদেহ সেই লেকে আছে সন্দেহ করে বেশ কয়েকজন উদ্ধারকর্মী সেখানে তল্লাশি শুরু করে৷ এই কাজে পানির নীচে উদ্ধার অভিযান চালাতে সক্ষম ড্রোন এবং অন্যান্য আধুনিক সরঞ্জামও ব্যবহার করা হয়৷

তবে লেকে নয়, রবিবার মরদেহ মেলে আশ্রয়কেন্দ্রের ভেতরেই৷ পুলিশ জানিয়েছে, ১৯ বছর বয়সি এক তরুণ হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করেছেন৷ কেনিয়াতে জন্ম নেয়া এই তরুণ ছোটবেলা থেকেই জার্মানিতে আছেন৷ ইতোমধ্যে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷

এদিকে স্থানীয় গণমাধ্যম পুলিশ এবং অন্যান্য সূত্রের বরাতে জানিয়েছে, শুক্রবার সন্ধ্যায় এক বারে সেই তরুণের সঙ্গে তরুণীকে দেখা গেছে৷ পরবর্তীতে তিনি সেই তরুণের সঙ্গেই আশ্রয়কেন্দ্রে যান৷ তবে সেই তরুণী তাঁর বাবা-মাকে বনে এক বান্ধবীর বাড়িতে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছিলেন৷

স্থানীয় গণমাধ্যম আরো জানিয়েছে, শুক্রবার রাতে তরুণীর সঙ্গে তরুণের বচসা হয় এবং এক পর্যায়ে তরুণটি সহিংস হয়ে উঠলে তরুণী মারা যায়৷ তবে তাঁকে হত্যায় কোনো ধরনের আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করা হয়নি বলেও প্রাথমিক তদন্তের বরাতে গণমাধ্যম জানিয়েছে৷

জার্মানিতে যেসব সন্ত্রাসী হামলার চেষ্টা হয়েছিল

লাইপসিশ, অক্টোবর ২০১৬

লাইপসিসের পুলিশ দু’দিন ধরে তল্লাশি চালানোর পর ২২ বছর বয়সে সিরীয় শরণার্থী জাবের আল-বাকেরকে গ্রেপ্তারে সক্ষম হয়৷ চেমনিৎসে তার অ্যাপার্টমেন্টে বিস্ফোরক এবং বোমা তৈরিত সরঞ্জাম পাওয়ার পর তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ৷ সন্দেহ করা হয় যে, বার্লিন বিমানবন্দরে সন্ত্রাসী হামলার পরিকল্পনা করছিল সে৷ গ্রেপ্তারের দুই দিন পর অবশ্য কারাগারে আত্মহত্যা করে এই সিরীয় শরণার্থী৷

জার্মানিতে যেসব সন্ত্রাসী হামলার চেষ্টা হয়েছিল

আন্সবাখ, জুলাই ২০১৬

গত জুলাই মাসে জার্মানিতে দু’টি হামলার দায় স্বীকার করে জঙ্গি গোষ্ঠী ‘ইসলামিক স্টেট’ বা আইএস৷ দু’টি হামলাই শরণার্থীরা ঘটিয়েছিল৷ এর মধ্যে বাভারিয়ার আন্সবাখ শহরে একটি মিউজিক ফেস্টিভ্যালের প্রবেশ মুখে এক সিরীয় শরণার্থী বিস্ফোরণ ঘটালে ১৫ ব্যক্তি আহত হন৷ হামলায় হামলাকারী অবশ্য নিজেও প্রাণ হারায়৷

জার্মানিতে যেসব সন্ত্রাসী হামলার চেষ্টা হয়েছিল

ভ্যুয়র্ত্সবুর্গ, জুলাই ২০১৬

১৭ বছর বয়সি এক শরণার্থী ভ্যুয়র্ত্সবুর্গে একটি ট্রেনের মধ্যে কুড়াল ও ছুরি নিয়ে যাত্রীদের উপর হামলা চালায়৷ এতে হংকং থেকে আসা এক পর্যটক পরিবারের চার সদস্য এবং অন্য একজন আহত হন৷ পুলিশ হামলাকারীকে গুলি করে হত্যা করে৷ পুলিশ জানায়, হামলাকারী তথাকথিত ইসলামিক স্টেট-এর সদস্য না হলেও এই জঙ্গি গোষ্ঠীর আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে হামলা চালিয়েছিল৷

জার্মানিতে যেসব সন্ত্রাসী হামলার চেষ্টা হয়েছিল

ড্যুসেলডর্ফ, মে ২০১৬

ইসলামিক স্টেট-এর তিন সন্দেহভাজন সদস্যকে নর্থ রাইনওয়েস্টফেলিয়া, ব্রান্ডেনবুর্গ এবং বাডেন ভ্যুর্টেনবের্গ থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ৷ কর্তৃপক্ষ জানায়, গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে দু’জন ড্যুসেলডর্ফের শহরতলীতে আত্মঘাতী হামলার পরিকল্পনা করেছিল৷ অপরজন এবং ফ্রান্সে গ্রেপ্তারকৃত চতুর্থ জিহাদি বন্দুক ও বিস্ফোরক নিয়ে পথচারীদের হামলার পরিকল্পনা করছিল বলে খবর৷

জার্মানিতে যেসব সন্ত্রাসী হামলার চেষ্টা হয়েছিল

এসেন, এপ্রিল ২০১৬

এসেনে একটি শিখ মন্দিরে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ৷ বিস্ফোরণে তিন ব্যক্তি আহতও হন৷ সিসিটিভি ফুটেজ প্রচারের পর ১৬ বছর বয়সি এক সন্দেহভাজন নিজেই পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করে৷ আর অন্য তরুণ সন্দেহভাজনকে বাড়ি থেকে আটক করে স্পেশাল পুলিশ৷

জার্মানিতে যেসব সন্ত্রাসী হামলার চেষ্টা হয়েছিল

হানোফার, ফেব্রুয়ারি ২০১৬

১৬ বছর বয়সি জার্মান-মরোক্কান তরুণী সোফিয়া এস. হানোফার ট্রেন স্টেশনে এক পুলিশ কর্মকর্তাকে ছুরিকাঘাত করে৷ ধারণা করা হয়, ইসলামিক স্টেট-এর সদস্যরা তাকে এই হামলায় প্ররোচিত করেছিল৷

জার্মানিতে যেসব সন্ত্রাসী হামলার চেষ্টা হয়েছিল

বার্লিন, ফেব্রুয়ারি ২০১৬

বার্লিনে সন্ত্রাসী হামলার পরিকল্পনার অভিযোগে ইসলামিক স্টেট-এর সন্দেহভাজন তিন আলজেরীয় সদস্যকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ৷ বার্লিনের প্রসিকিউটরের দপ্তরের তথ্য আনুযায়ী, রাজধানীতে হামলা করার জন্য তাদের সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা সম্পর্কে অবগত ছিল কর্তৃপক্ষ৷

জার্মানিতে যেসব সন্ত্রাসী হামলার চেষ্টা হয়েছিল

ওবারউরসেল, এপ্রিল ২০১৫

এশবর্ন-ফ্রাংকফুর্ট সিটি লুপ বাইক রেস বাতিল করে পুলিশ, কেননা তারা সন্দেহ করছিল যে সেই রেসে ইসলামিক স্টেট হামলা চালাতে পারে৷ হামলা পরিকল্পনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ ৩৫ বছর বয়সি এক তুর্কি বংশোদ্ভূত জার্মান এবং তাঁর ৩৪ বছর বয়সি স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করে৷ বাইক রুটের কাছে তাদের বাড়ি থেকে বোমা তৈরির উপকরণও উদ্ধার করে পুলিশ৷

প্রসঙ্গত, এমন এক সময়ে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে, যখন জার্মানিতে শরণার্থীদের নিয়ে নানা বিতর্ক চলছে৷ গত দুই-তিন বছরে অনেক শরণার্থীকে গ্রহণ করে জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল উদারতার পরিচয় দিলেও তাঁর প্রতি জনসমর্থন ক্রমশ কমে যাচ্ছে৷ অবস্থা এমন যে, নিজ দল থেকে পদত্যাগের আগাম ঘোষণা দিয়ে দিয়েছেন তিনি৷

সাঙ্কট আগুস্টিনের এই ঘটনা নিয়েও জার্মানির গণমাধ্যমে নানামুখী আলোচনা শুরু হয়েছে৷ আলোচিত তরুণ এর আগেও অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত ছিলেন এবং পুলিশের কাছে তিনি পরিচিত ছিলেন বলে জানিয়েছে গণমাধ্যম৷ বন শহরের আদালতের প্রধান কৌঁসুলি রবিন ফাসবেন্ডার ওই তরুণকে গ্রেপ্তারের খবর নিশ্চিত করে বলেছেন, ‘‘জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃত তরুণ নিহত তরুণীর সঙ্গে সহিংস আচরণ করার কথা স্বীকার করেছেন৷ ফলে আমরা এটিকে একটি ইচ্ছাকৃত নরহত্যা বলে ধারণা করছি৷''  

নিকোল গোয়েবেল, এলিজাবেথ সুমাখার/এআই

আমাদের অনুসরণ করুন