বড় বিমান বাঁচলো বড় বিপদ থেকে

জার্মানিতে বৃহস্পতিবার ঝড়ে অন্তত সাত ব্যক্তি মারা গেছেন৷ তীব্র বাতাসে একটি বিমান অবতরণের সময় প্রায় ছিটকে যাচ্ছিল রানওয়ে থেকে৷ সেই ঘটনার ভিডিও এখন ভাইরাল৷

দৈত্যাকার এয়ারবাস ৩৮০ বিমান হিসেবে বেশ নিরাপদ বলেই পরিচিত৷ এমিরেটসসহ নানা এয়ারলাইন্স তাই এই বিমানে দূরপাল্লার যাত্রী বহন করছেন নিরাপদেই৷ কিন্তু সেই বিমান অবতরণ করতে গিয়ে যে এই দশা হবে কে ভেবেছিল?

বিজ্ঞান পরিবেশ | 09.10.2009

ঘটনা বৃহস্পতিবারের৷ জাভিয়ার ঝড়ের কারণে উত্তর জার্মানিতে বেশ কয়েকটি ফ্লাইট বাতিল এবং বিলম্ব হয়৷ আর তার কারণ বুঝতে এ৩৮০'র এই ভিডিওটি যথেষ্ট৷ এতে দেখা যায়, দুবাই থেকে আসা এমিরেটসের একটি ফ্লাইট ড্যুসেলডর্ফ বিমানবন্দরে অবতরণ করছে৷ কিন্তু এটি রানওয়ে স্পর্শ করার মুহূর্তে প্রথমে বামে এবং পরে ডানদিকে বেশ খানিকটা ঘুরে যায়৷ দেখে মনে হচ্ছিল, এই বুঝি বিমানটি রানওয়ে থেকে ছিটকে যাবে৷ কিন্তু ভাগ্য ভালো যে, পাইলট সেটি নিয়ন্ত্রণ করতে পেরেছেন৷

প্লেনস্পটার হিসেবে পরিচিত মার্টিন বজডান এয়ারবাসের এই অবতরণ রেকর্ড করেন৷ গত কয়েকবছর ধরেই বিমানের উড্ডয়ন অবতরণের ভিডিও রেকর্ড করে ইউটিউবে প্রকাশ করছিলেন তিনি৷ তবে গতকালের মতো এমন অবস্থা তিনি আগে দেখেননি বলে জানিয়েছেন৷ পাশাপাশি, বিমানটি নিয়ন্ত্রণে সক্ষম হওয়ায় পাইলটদের প্রশংসাও করেছেন তিনি৷

এআই/এসিবি

ভ্রমণ

জনাকীর্ণ আকাশ

আরো যাত্রী মানে আরো বিমান৷ ২০৩৫ সাল নাগাদ এশিয়ায় যাত্রীবাহী বিমানের সংখ্যা দ্বিগুন বেড়ে ১৭,০০০ হবে৷ উত্তর আমেরিকায় এই সংখ্যা হবে ৯,৮০০ এবং ইউরোপে ৭,৯০০৷

ভ্রমণ

বৈমানিকদের চাহিদা বাড়ছে

আরো বিমান মানে আরো বৈমানিক দরকার৷ বোয়িংয়ের হিসেব অনুযায়ী, ২০৩৫ সাল নাগাদ অন্তত ৬১৭,০০০ নতুন বৈমানিক দরকার হবে, বিশেষ করে এশিয়ায়৷ মোটের উপর, ৬৭৯,০০০ নতুন রক্ষণাবেক্ষণকর্মী এবং ৮১৪,০০০ জন বাড়তি ফ্লাইট অ্যাসিস্ট্যান্টের দরকার হবে৷

ভ্রমণ

সবচেয়ে বড় হাব

বিমানযাত্রীর সংখ্যা বিচারে ইউরোপের সবচেয়ে বড় হাবগুলো হচ্ছে লন্ডনের হিথ্রো, প্যারিসের শার্ল দ্য গল এবং জার্মানির ফ্রাঙ্কফুর্ট বিমানবন্দর৷ ২০১৪ সালে ফ্রাঙ্কফুর্ট বিমানবন্দর থেকে দুই মিলিয়ন টন কার্গো পরিবহণ করা হয়েছে৷ পৃথিবীর সবচেয়ে বড় বিমানবন্দরের অবস্থান যুক্তরাষ্ট্রের আটলান্টায়, সেখানে ২০১৫ সালে ১০০ মিলিয়ন বিমানযাত্রী ছিল৷

ভ্রমণ

বাজেট এয়ারলাইন্সগুলো রক্ষা করছে

জার্মানির বিমান শিল্পে বৃদ্ধি অবশ্য জার্মান বিমানসংস্থাগুলোর কারণে খুব একটা হয়নি৷ বরং বিদেশি বিভিন্ন বিমানসংস্থার অবদান এতে বেশি৷ জার্মানির বিমানসংস্থাগুলোর দূরপাল্লার উড়ালের সংখ্যা গত ছয় বছর ধরে ধারবাহিকভাবে কমছে৷ অন্যদিকে, অতিরিক্ত সুবিধাহীন বাজেট এয়ারলাইন্সগুলোর, যেমন রাইনএয়ার এবং ইজিজেট, উড়ালের সংখ্যা ১৪ শতাংশ বেড়েছে৷

ভ্রমণ

ইতিহাসের সবচেয়ে বড় ধর্মঘট কর্মসূচি

জার্মান পতাকাবাহী বিমানসংস্থা লুফৎহানসা গত বছর এক দশমিক আট বিলিয়ন ইউরো মুনাফা করতে সক্ষম হয়, যা আগের বছরের তুলনায় বেশি, যদিও বিমান সংস্থাটিকে একের পর এক ধর্মঘটের মুখোমুখি হতে হয়েছে৷ পাইলটদের ইউনিয়নের ধর্মঘটের কারণে লুফৎহানসার ২০১৪ সাল থেকে প্রায় আধা বিলিয়ন ইউরোর আর্থিক ক্ষতি হয়েছে৷ ইতোমধ্যে, অবশ্য ম্যানেজমেন্ট এবং পাইলটদের মধ্যে একটি সমঝোতা হয়েছে৷

ভ্রমণ

সবচেয়ে বেশি আয় যাদের

এভিয়েশন সামগ্রিকভাবে একটি লাভজনক ব্যবসা৷ তবে কিছু সংস্থা অন্যদের চেয়ে বেশ এগিয়ে৷ যদিও বিমান সংস্থাগুলো সাধারণত বিনিয়োগকৃত মূলধনের চার শতাংশ মুনাফা করতে পারে৷ জার্মানির বিমান বন্দর অপারেটর এবং বিমান উৎপাদনকারী সংস্থাগুলোর ক্ষেত্রে লাভের পরিমান ৬ থেকে ৭ শতাংশ৷ এছাড়া এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল এবং বুকিং সেবাদাতাদের লাভের পরিমাণ বিশ শতাংশ পর্যন্ত হয়ে থাকে৷

ভ্রমণ

আমাদের জন্য কী আছে?

ক্লান্ত যাত্রীদের জন্য বিছানা, মাসাজ, পায়ের কাছে বেশি জায়গা, চাইল্ডকেয়ার সেবা এবং বারসহ গোসলের ব্যবস্থা৷ হ্যাঁ, বিমানে এসব কিছুই অদূর ভবিষ্যতে পাবেন সাধারণ যাত্রীরা৷