ভুয়া খবর প্রকাশ করা সাংবাদিকের মৃত্যু

তাঁর লেখা ভুয়া খবর মার্কিন মুল্লুকে আলোড়ন তুলেছে অনেকবার, ইন্টারনেটে হয়েছে ভাইরাল৷ এবার তিনিই সংবাদ শিরোনামে৷ গত সপ্তাহে ফিনিক্সে মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে তাঁকে৷ মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৩৮৷

ভুয়া খবর প্রকাশ করে ব্যাপক পরিচিতি পাওয়া সাংবাদিক পাউল হর্নার মারা গেছেন৷ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফিনিক্সের কর্তৃপক্ষ বুধবার জানিয়েছে যে, সম্ভবত ঘটনাক্রমে পরিমিতমাত্রার চেয়ে বেশি ঔষধ খেয়েছিলেন তিনি৷ আর তাতেই মৃত্যু ঘটে তাঁর৷

সমাজ

মহাকাশ থেকে ফেসবুক লাইভ

একটি ফেসবুক লাইভে দেখাচ্ছিল আন্তর্জাতিক মহাকাশ কেন্দ্র থেকে নভোচারীদের স্পেসওয়াক করার দৃশ্য৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় তা ভাইরাল হয়ে যায়৷ ইউএনআইএলএডি, ভাইরাল ইউএসএ এবং ইন্টারেসটিনেট- এটি পোস্ট করার পর ফেসবুকে বিপুল পরিমাণ লাইক ও শেয়ার হয়৷ কিন্তু মজার ব্যাপার হলো, ফুটেজের কোথাও নাসা বা ফেসবুকের লাইভ স্ট্রিম কথাটির উল্লেখ ছিল না৷ পরে নাসা’র এক মুখপাত্র জানান, ভিডিওটি ২০১৩ সালে রুশ নভোচারীদের ধারণ করা ভিডিও৷

সমাজ

করোনা বিয়ারের প্রতিষ্ঠাতার উইল

২০১৬ সালের অন্যতম ভাইরাল খবর এটি-করোনা বিয়ার-এর প্রতিষ্ঠাতা আন্তোনিও ফার্নান্দেজ মৃত্যুর আগে তাঁর জন্মভূমি স্পেনের একটি গ্রামের ৮০টি পরিবারের মধ্যে ২০ কোটি ইউরো দান করার উইল করে গেছেন৷ ডেইলি মেইল প্রথমে খবরটি প্রকাশ করে স্থানীয় পত্রিকার বরাত দিয়ে৷ পরে আরটি, দ্য ইন্ডেপেন্ডেন্ট, দ্য মিররসহ বেশ কয়েকটি সংবাদপত্রও তা প্রকাশ করে৷ পরে ফার্নান্দেজের পরিবার প্রতিবাদ জানানোয় তারা খবরটি সরিয়ে ফেলে৷

সমাজ

ধর্ষণের ভুয়া খবর

২০১৬ সালের জানুয়ারিতে বার্লিনে লিজা নামের এক জার্মান কিশোরীকে এক দল অভিবাসীর ধর্ষণ করার খবর ভাইরাল হয়ে যায়৷ বিশেষ করে রুশ মিডিয়ায় খবরটি বিপুল কভারেজ পায়৷ পরে কিশোরীটি জানায়, সে সব কিছু বানিয়ে বলেছে৷

সমাজ

মার্কিন নির্বাচন

মার্কিন নির্বাচনে যে ভুয়া খবরটি সবচেয়ে বেশি ছড়িয়েছিল তাতে ছিল ২০১৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের অপরাধের মাত্রার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনের ফলাফলের তুলনা৷ এছাড়া নির্বাচনের ফলাফলের এমন একটি মানচিত্র ওয়াশিংটন পোস্ট প্রকাশ করেছিল, যেটির দিকে ভালোভাবে তাকালে বোঝা যায় একেবারে ওপরে ২০১২ সালের উল্লেখ রয়েছে৷

সমাজ

ট্রাম্প এবং সিম্পসন

সিম্পসন কার্টুনে বেশ কিছু ভবিষ্যদ্বাণী থাকে৷ আর এ কারণে ট্রাম্প নির্বাচনে জেতার পর একটি ট্রল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়, যেখানে বলা হয় সিম্পসনে আগেই বলা হয়েছিল, ট্রাম্প নির্বাচনে জিতবেন৷ কিন্তু বাস্তবে এমন কিছু হয়নি৷ অথচ টুইটারে বাস্তব আর পুরোনো ভুয়া সিম্পসনের ছবি দেয়ায় নিউজটি ভাইরাল হয়ে যায়৷

সমাজ

শোকার্ত ক্যাঙ্গারু

ডেইলি মেইল এমন একটি ছবি প্রকাশ করে যেখানে দেখানো হয় এক পুরুষ ক্যাঙ্গারু নারী ক্যাঙ্গারুকে দুই হাতে ধরে অশ্রুসজল চোখে তাকিয়ে আছে৷ ইভান সুইৎজারের তোলা ছবিটি এভাবে উপস্থাপনের কারণে ভাইরাল হয়ে যায়৷ তবে ভেটেরিনারি বিশেষজ্ঞরা জানান, নারী ক্যাঙ্গারুর সঙ্গে যৌন মিলনের ইচ্ছে জাগলে পুরুষ ক্যাঙ্গারুর চোখ অশ্রুসজল হয়, তখনই তারা দুই হাত দিয়ে ঝাঁকিয়ে নারী ক্যাঙ্গারুকে উত্তেজিত করার চেষ্টা করে৷

সমাজ

বিখ্যাত গণমাধ্যমের নকল

ভুয়া খবর প্রচারকারীরা জনপ্রিয় এবং বিখ্যাত ওয়েবসাইটগুলোকে নকল করে ৷ ফলে মানুষ খুব ভালোভাবে লক্ষ্য না করলে বুঝতে পারে না, সেগুলো প্রকৃত ওয়েবসাইট, নাকি ভুয়া৷ যেমন, এবিসি নিউজ ডট কম এর সঙ্গে ডট সিও যুক্ত করে (ABCnews.com.co), ব্লুমবার্গের সঙ্গে ডট এমএ যুক্ত করে, ওয়াশিংটন পোস্ট ডট কম- এর সঙ্গে ডট সিও যুক্ত করে কয়েকটি ভুয়া সংবাদ সাইট তৈরি করা হয়েছে৷ এসব ওয়েবসাইটের কাজই ভুয়া সংবাদ পরিবেশন করা৷

স্থানীয় পুলিশের মুখপাত্র মার্ক ক্যাসি জানান, পোস্টমর্টেমের প্রাথমিক ফলাফলে হর্নারের মৃত্যুর পেছনে অস্বাভাবিক কোনো কারণ পাওয়া যায়নি৷ তবে অতীতে তিনি চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী দেয়া ঔষুধের অপব্যবহার করেছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে৷ তিনি বলেন, ‘‘ঘটনাস্থলে পাওয়া তথ্য-প্রমাণ দেখে মনে হচ্ছে, এটা ঘটনাক্রমে মাত্রাতিরিক্ত ঔষধ সেবনের ব্যাপার৷’’

তবে বিষবিদ্যা বিভাগের চূড়ান্ত প্রতিবেদন না পাওয়া অবধি তদন্ত চলবে বলেও জানান তিনি৷

প্রসঙ্গত, ইন্টারনেটে ভুয়া সংবাদ প্রকাশের জন্য পরিচিত ছিলেন হর্নার৷ গতবছর মার্কিন নির্বাচনের সময় তাঁর লেখা এ রকম কিছু সংবাদ ভাইরাল হয়ে যায়৷ ট্রাম্পবিরোধী প্রচারকরা রাস্তায় প্রতিবাদকারী জোগাড় করতে অর্থ খরচ করছে - তাঁর লেখা এমন এক সংবাদ ডোনাল্ড ট্রাম্পের ঘনিষ্টজনরাও শেয়ার করেছেন৷

হর্নার অবশ্য মনে করতেন, তিনিভুল সংবাদ প্রকাশ করছেন না, বরং বিদ্রুপ করছেন৷ এখন কেউ যদি তা গুরুত্বসহকারে নেয় এবং শেয়ার করে, তাদের নিন্দাই জানান তিনি৷

মার্কিন নির্বাচনে ট্রাম্পের জয়ের পেছনে তিনি অবদান রেখেছেন বলেও ওয়াশিংটন পোস্টকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে দাবি করেন পাউল হর্নার৷ তবে তিনি নিজেকে কখনোই ট্রাম্পের সমর্থক হিসেবে দাবি করেননি৷

এআই/এসিবি (এপি, এএফপি)

আরো প্রতিবেদন...