মাহমুদুরের মুক্তি চেয়ে সম্পাদকদের বিবৃতির সমালোচনা

দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের মুক্তি চেয়ে বিবৃতি প্রকাশ করায় সমালোচনার মুখে পড়েছেন ১৬ জন সম্পাদক৷ ব্লগ এবং ফেসবুকে এই বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন অনেকে৷

দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদককে গ্রেপ্তার এবং পত্রিকাটির ছাপাখানা বন্ধের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে গত ১৮ মে একটি বিবৃতি প্রকাশ করেন বাংলাদেশের ১৫টি দৈনিক ও একটি অনলাইন পত্রিকার সম্পাদকরা৷ বিবৃতিতে বলা হয়, ‘‘আমরা মনে করি, সরকারের এই ধরনের পদক্ষেপ গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও মতপ্রকাশের অধিকারের ওপর আশঙ্কাজনক হুমকি৷ এই জাতীয় ঘটনা গণতন্ত্রের ভিতকে দুর্বল করবে৷''

ঢাকা অবরোধের নামে হেফাজতের তাণ্ডব

ঢাকা অবরোধের নামে তাণ্ডব

রবিবার (০৫.০৫.১৩) ঢাকা অবরোধের নামে মতিঝিল এলাকায় প্রায় ৮ ঘণ্টা তাণ্ডব চালায় হেফাজতে ইসলামের কর্মীরা৷ এতে মতিঝিল এলাকা ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়৷ হেফাজতের কর্মীরা দোকানপাট, মার্কেট, বাণিজ্যিক ভবন, অফিস, গাড়ি সব কিছুতে আগুন ধরিয়ে দেয়৷

ঢাকা অবরোধের নামে হেফাজতের তাণ্ডব

পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ

হেফাজত যখন তাণ্ডব চালাচ্ছিল তখন পুলিশ বাধা দিতে গেলে তাদের সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়৷ মতিঝিল এলাকা পরিণত যুদ্ধক্ষেত্রে৷ শুধু ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নয়, সেখানকার আবাসিক ভবনগুলোতে এক নারকীয় পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়৷

ঢাকা অবরোধের নামে হেফাজতের তাণ্ডব

রাতে অভিযান

সমাবেশের জন্য বেঁধে দেয়া নির্ধারিত সময় বিকেল ৫টার পরও শাপলা চত্বরে থেকে যাওয়ার ঘোষণা দেয় হেফাজতের কর্মীরা৷ এরপর রাত আড়াইটার দিকে বিজিবি, ব়্যাব ও পুলিশের যৌথ বাহিনী মতিঝিলকে ঘিরে অভিযান শুরু করলে ১০ মিনিটের মধ্যেই হেফাজতের কর্মীরা পিছু হটে যায়৷

ঢাকা অবরোধের নামে হেফাজতের তাণ্ডব

কাঁচপুরে অবস্থান

মতিঝিল থেকে পালিয়ে যাওয়ার পর হেফাজত কর্মীদের বড় একটি অংশ সোমবার (০৬.০৫.১৩) সকালে নারায়ণগঞ্জের কাঁচপুর এবং সিদ্ধিরগঞ্জে অবস্থান নেয়৷ তারা সেখানে পুলিশ ফাঁড়িতে আগুন ও পুলিশের ওপর হামলা চালায়৷ (ফাইল ছবি)

ঢাকা অবরোধের নামে হেফাজতের তাণ্ডব

হামলার শিকার সংবাদমাধ্যম

হেফাজতের হামলা থেকে মুক্তি পায়নি গণমাধ্যমের কর্মীরাও৷ এছাড়া পল্টন এলাকায় অবস্থিত ব়্যাঙ্গস ভবনের ‘সকালের খবর’ পত্রিকা অফিসে আগুন দিয়েছে তারা৷

ঢাকা অবরোধের নামে হেফাজতের তাণ্ডব

ভেঙে দেয়া হলো গণজাগরণ মঞ্চ

রবিবার রাতেই শাহবাগের গণজাগরণ মঞ্চের মঞ্চসহ সব কিছু সরিয়ে ফেলে পুলিশ৷ (ফাইল ফটো)

ঢাকা অবরোধের নামে হেফাজতের তাণ্ডব

ধরপাকড়

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে হেফাজতের কর্মীদের আটক করে পুলিশ৷

ঢাকা অবরোধের নামে হেফাজতের তাণ্ডব

১৩ দফা দাবি

কথিত নাস্তিক ব্লগারদের শাস্তি, ধর্ম অবমাননাকারীদের বিরুদ্ধে মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে আইন পাস করাসহ ১৩ দফা দাবিতে ‘ঢাকা অবরোধ’ কর্মসূচি পালন করে কওমি মাদ্রাসাভিত্তিক সংগঠন হেফাজতে ইসলাম৷

আমার দেশ পত্রিকার সাংবাদিকদের অনিশ্চিত ভবিষ্যতের দিকে ইঙ্গিত করে বিবৃতিতে বলা হয়, ‘‘অনিবার্য পরিণতি হিসেবে অনেক সাংবাদিককে বেকারত্বের কবলে নিক্ষেপ করা কোনো নির্বাচিত ও গণতান্ত্রিক সরকারের ভাবমূর্তির পক্ষে অনুকূল নয়৷'' বাংলাদেশে ডয়চে ভেলের কন্টেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম এই বিবৃতির ভিত্তিতে সংবাদ প্রকাশ করেছে৷

এদিকে, বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় দৈনিক পত্রিকাগুলোর সম্পাদকদের এই বিবৃতি প্রকাশের খবরে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন অনেকে৷ সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি নাসির উদ্দীন ইউসূফ ফেসবুকে এক বিবৃতিতে লিখেছেন, ‘‘আজ (১৮.০৫.১৩) সংবাদপত্রে গণশত্রু মাহমুদুর রহমানের মুক্তি দাবি করে ১৫ সম্পাদকের প্রকাশিত যৌথ বিবৃতিতে আমরা যুগপৎ বিস্মিত, মর্মাহত এবং ক্ষুদ্ধ৷ আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক পবিত্র কাবা শরিফের গিলাপ পরিবর্তন সংক্রান্ত মিথ্যাচার এবং মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত যুদ্ধাপরাধী দেলওয়ার হোসেন সাঈদীকে চাঁদে দৃশ্যমান, এহেন সংবাদ এবং ছবি প্রকাশ করে জনগণকে বিভ্রান্ত করে বাংলাদেশকে সংঘাতময় পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দিয়েছিল৷''

মুক্তিযোদ্ধা নাসির উদ্দীন ইউসূফের ফেসবুক প্রোফাইল থেকে প্রকাশিত এই বিবৃতিতে আরো তিনটি সংগঠনের নাম রয়েছে৷ এতে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘‘...জনমতের প্রতি শ্রদ্ধা, দেশের শান্তি শৃঙ্খলা অক্ষুন্ন রাখা এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখার স্বার্থে মাহমুদুর রহমানকে গ্রেপ্তার করা সরকারের একটি সময়োচিত পদক্ষেপ বলে আমরা মনে করি৷''

ক্যানাডা প্রবাসী সাংবাদিক সওগত আলী সাগর একই বিষয়ে ফেসবুকে লিখেছেন, ‘‘আমার দেশ এর ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহবুবুর রহমানের মুক্তি চেয়ে বিবৃতি দিয়েছেন ঢাকার ১৫টি জাতীয় দৈনিকের সম্পাদক৷ এর মধ্য দিয়ে স্পষ্টতই মাহবুবুর রহমান এতদিন ধরে যে মিথ্যাচার অপপ্রচারের মাধ্যমে সামাজিক অস্থিরতা এবং ধর্মীয় উন্মাদনা তৈরির চেষ্টা করেছেন সেগুলোকেও জায়েজ হিসেবেই মেনে নিলেন তারা৷''

আমাদের অনুসরণ করুন