মেক্সিকোতে মানুষ হত্যার নতুন রেকর্ড

গত দুই দশক ধরে মেক্সিকোতে দেশজুড়ে হত্যার ঘটনা বাড়ছে৷ কিন্তু গত বছর তা সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে৷ দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ২০১৮ সালে ৩৩ হাজারেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছে৷

মাদকজনিত অপরাধ এবং ‘গ্যাং' সহিংসতায় মেক্সিকোজুড়ে ২০১৮ সালে ৩৩ হাজার ৩৪১ হত্যার ঘটনা তদন্ত করছেন গোয়েন্দারা৷ নিহতদের মধ্যে ৮৬১ জন নারীও রয়েছেন৷ মেক্সিকোতে ১৯৯৭ সাল থেকে এ ধরনের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা রেকর্ড করা হচ্ছে, গত বছর তা পূর্বের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে৷

২০১৭ সালের তুলনায় গত বছর হত্যার ঘটনা বেড়েছে ১৫ দশমিক ৫ শতাংশ৷ ২০১৭ সালে ২৮ হাজার ৮৬৬ মানুষকে হত্যা করা হয়েছিল৷ মেক্সিকোর মোট জনসংখ্যা ১৩ কোটি৷

মেক্সিকোতে মাদক দৌরাত্ম্য বহুদিন ধরে চলে আসছে এবং কর্তৃপক্ষ এসব অপরাধ নিয়ন্ত্রণে বারবার ব্যর্থ হয়েছে৷ লাতিন অ্যামেরিকার এই দেশটির নিরাপত্তাবাহিনী সাধারণত যারা যুক্তরাষ্ট্রে  মাদক চোরাচালান করে, এমন চক্রগুলিকে নজরে রাখার চেষ্টা করে৷ তবে এসব ক্ষেত্রে মাদকচক্রের হোতারা বড় অংকের অর্থ ঘুষ দিয়ে পার পেয়ে যায়৷ ২০০৬ সাল থেকে সরকার মাদক পাচারকারীদের নিয়ন্ত্রণে সেনাবাহিনী মোতায়েন করে৷ সেই বছর থেকে এখন পর্যন্ত চোরাকারবারিদের সাথে সেনাবাহিনীর সংঘর্ষে দুই লাখেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছে৷ এদের মধ্যে রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক, এমনকি আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীর কর্মকর্তাও রয়েছেন৷  সহিংস অপরাধের শতাকরা ৯০ ভাগ ঘটনারই কোনো সাজা হয় না মেক্সিকোতে৷

যেসব দেশে গাঁজা বৈধ

আর্জেন্টিনা

গাঁজা সেবন অনেক দেশেই আইনতভাবে অপরাধ নয়৷ এমনই একটি দেশ ল্যাটিন অ্যামেরিকার আর্জেন্টিনা৷ সেখানে চিকিৎসার জন্য গাঁজা আগে থেকেই বৈধ হলেও ব্যক্তিগত পছন্দে সেবনের জন্য গাঁজাকে ২০০৯ সাল থেকে বৈধতা দেওয়া হয়েছে৷

যেসব দেশে গাঁজা বৈধ

অস্ট্রেলিয়া

চিকিৎসার উদ্দেশ্যে গাঁজার সেবন ও চাষ অস্ট্রেলিয়ায় বৈধ৷ সেই দেশের আদিবাসীদের মধ্যে গাঁজা সেবনের মাত্রা শহরাঞ্চলে কিছুটা কম বলে জানা যায়৷

যেসব দেশে গাঁজা বৈধ

বেলজিয়াম

প্রাপ্তবয়স্করা সেবনের জন্য তিন গ্রাম ওজন পর্যন্ত গাঁজা সঙ্গে রাখতে পারবেন ইউরোপের দেশ বেলজিয়ামে৷ ২০০৩ সাল থেকে কার্যকরী এই আইনে মাথাপিছু একটি গাঁজা গাছ লাগানোকেও বৈধতা দেওয়া হয়েছে৷

যেসব দেশে গাঁজা বৈধ

বলিভিয়া

মাথাপিছু ৫০ গ্রাম গাঁজা কেনা বলিভিয়ায় বৈধ৷

যেসব দেশে গাঁজা বৈধ

ক্যানাডা

সারা বিশ্বে আলোড়ন তুলে সব রকমের গাঁজা সেবন ও চাষের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেছে ক্যানাডা সরকার৷ এ বছরের অক্টোবর মাসে নতুন আইন এনে গাঁজা সার্বিকভাবে বৈধ ঘোষণা করা হয়৷

যেসব দেশে গাঁজা বৈধ

চিলি

ল্যাটিন অ্যামেরিকার আরেক দেশ চিলিতেও ২০০৫ সাল থেকে বৈধ হয়েছে গাঁজা বা মারিহুয়ানার সেবন ও বিক্রি৷

যেসব দেশে গাঁজা বৈধ

নেদারল্যান্ডস

সেই ১৯৭৬ সাল থেকেই ইউরোপের নেদারল্যান্ডসে গাঁজা বৈধ৷ সেই দেশের বিখ্যাত ‘কফিশপ’-গুলিতে গাঁজা বিক্রি ও সেবন বৈধ হলেও পাঁচ গ্রামের বেশি গাঁজা রাখতে পারবেন না কেউ৷

যেসব দেশে গাঁজা বৈধ

দক্ষিণ আফ্রিকা

আফ্রিকার প্রথম দেশ হিসাবে দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১৮ সালে গাঁজা সেবন ও গাঁজা চাষকে বৈধতা দেয়৷ প্রসঙ্গত, এই দেশের ডাক্তারেরা চিকিৎসার প্রয়োজনে গাঁজা সেবনের পরামর্শ দিতে পারেন ঠিকই, কিন্তু কোনো বিশেষ দোকান বা হাসপাতালে তা বিক্রির পরিষেবা এই মুহূর্তে নেই৷

যেসব দেশে গাঁজা বৈধ

উরুগুয়ে

২০১৩ সাল থেকে উরুগুয়েতে সম্পূর্ণরূপে বৈধ হয়েছে গাঁজা সেবন ও বিক্রি৷ শুধু তাই নয়, নিষেধাজ্ঞা উঠেছে গাঁজা চাষের ওপর থেকেও৷

যেসব দেশে গাঁজা বৈধ

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র

অঞ্চল অনুসারে ভিন্ন আইন থাকায় গাঁজা বা অন্যান্য মাদক বিষয়ক আইনও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ভিন্ন৷ কিছু রাজ্যে ব্যক্তিগত সেবন বৈধ হলেও দেখা যায় যে, সেখানে গাঁজার চাষে রয়েছে নিষেধাজ্ঞা৷ কিন্তু ডাক্তারি পরামর্শে গাঁজা সেবন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অনেক অংশেই বৈধ বলে জানা যায়৷

রাষ্ট্রীয় সুরক্ষার মধ্যে সাংবাদিককে হত্যা

সোমবার সেক্সিকোর কর্মকর্তারা চলতি বছরে প্রথম সাংবাদিক হত্যার ঘটনা নিশ্চিত করেছেন৷ স্থানীয় রেডিও স্টেশন এর পরিচালক রাফায়েল মারুয়া বেশ কিছুদিন ধরেই প্রাণনাশের হুমকি পেয়ে আসছিলেন৷ সোমবার তাঁর মৃতদেহ পাওয়া যায় একটি খাদে৷ ৩৪ বছরের এই সাংবাদিকের নিরাপত্তায় রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছিল৷ স্থানীয় মেয়র তাঁকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছিলেন বলে জানা গেছে৷

জাতীয় নিরাপত্তারক্ষী চান নতুন প্রেসিডেন্ট

মেক্সিকোর নতুন প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেস মানুয়েল লোপেজ  মাদক অপরাধের বিরুদ্ধেলড়তে নতুন কৌশল খোঁজার চেষ্টা করছেন৷ তিনি ‘ন্যাশনাল গার্ড' বা জাতীয় নিরাপত্তারক্ষী দল গড়ে তুলতে চান, যারা দেশব্যাপী বেসামরিক পুলিশের দায়িত্ব পালন করবে৷ তবে অনেকের আশংকা, এর ফলে সাধারণ মানুষের হয়রানি বেড়ে যাবে৷ গত সপ্তাহে প্রস্তাবটি মেক্সিকোর পার্লামেন্টে উপস্থাপন করা হয়৷ এটি পাশ হতে সেনেটের দুই তৃতীয়াংশ সাংসদদের সমর্থন প্রয়োজন৷

এপিবি/এসিবি (এএফপি, রয়টার্স)

কোন মাদকের কারণে শরীরে কী ক্ষতি হয়?

ইয়াবা

বাংলাদেশে বর্তমানে মাদক হিসেবে এটিই সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হচ্ছে৷ এর ফলে কিডনি, লিভার ও ফুসফস ক্ষতিগ্রস্ত হয়৷ সাময়িক যৌন উত্তেজনা বাড়লেও দীর্ঘমেয়াদে যৌন ক্ষমতা নষ্ট করে দেয়৷ এছাড়া ইয়াবার কারণে রক্তচাপ বেড়ে যাওয়া, সন্তান উৎপাদন ক্ষমতা নষ্ট হয়ে যাওয়া ইত্যাদি সমস্যা হতে পারে৷

কোন মাদকের কারণে শরীরে কী ক্ষতি হয়?

ফেনসিডিল

একসময় এটিই প্রধান মাদক ছিল৷ ইয়াবা আসার পর ফেনসিডিলের ব্যবহার কিছুটা কমেছে৷ এটি খাওয়ার কারণে ক্ষুধা নষ্ট হয়ে যায়৷ ফলে খাবার না খাওয়ায় শরীর পর্যাপ্ত পুষ্টি পায় না৷ এতে স্বাস্থ্য নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা থাকে৷ ইয়াবার মতো ফেনসিডিলও যৌন ক্ষমতা নষ্ট করে দেয়৷ এছাড়া শরীরের অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গও ক্ষতিগ্রস্ত হয়৷

কোন মাদকের কারণে শরীরে কী ক্ষতি হয়?

গাঁজা

রক্তবাহী শিরার ক্ষতি করে, ফলে রক্ত পরিবহনে সমস্যা হয়৷ মস্তিষ্কের উপর প্রভাবের কারণে স্মৃতিশক্তির ক্ষেত্রে সমস্যা দেখা দেয়৷ তাছাড়া মস্তিষ্কের স্থায়ী ক্ষতি হওয়ারও সম্ভাবনা থাকে৷ পুরুষের ক্ষেত্রে টেস্টিকুলার ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি থাকে৷ অনেকের ধারণা গাঁজা খেলে সৃজনশীলতা বাড়ে৷ তবে এটি ভুল বলে সাম্প্রতিক এক গবেষণায় জানা গেছে৷ গাঁজা খেলে স্নায়ুতন্ত্রের ক্ষতি হয়, চোখের দৃষ্টি কমে যায়৷

কোন মাদকের কারণে শরীরে কী ক্ষতি হয়?

হেরোইন

যারা অধিক পরিমাণে হেরোইন সেবন করেন তারা নানারকম স্বাস্থ্য ঝুঁকির মধ্যে পড়েন৷ যেমন লিভার সমস্যা, ফুসফুসে সংক্রমণ, তীব্র কোষ্ঠকাঠিন্য, কিডনি রোগ, হার্ট ও ত্বকে সমস্যা, হেপাটাইটিস, নারীদের সন্তান জন্মদানে অক্ষমতা, গর্ভপাত ইত্যাদি৷

কোন মাদকের কারণে শরীরে কী ক্ষতি হয়?

আফিম

আফিম খেলে শ্বাসকষ্ট হতে পারে, যা থেকে অবচেতন হয়ে পড়া এবং বেশি পরিমাণে খেলে মৃত্যুও হতে পারে৷ এছাড়া মুখ ও নাক শুকিয়ে যাওয়া, বমি বমি ভাব, কোষ্ঠকাঠিন্য ইত্যাদি হতে পারে৷

কোন মাদকের কারণে শরীরে কী ক্ষতি হয়?

অ্যালকোহল

জার্মানির সেন্ট্রাল ইন্সটিটিউট ফর মেন্টাল হেল্থ-এর ফাল্ক কিফার বলেন, অতিরিক্ত মদ্যপানের কারণে প্রতিবন্ধী ও অসুস্থ হয়ে জীবনের মূল্যবান বছরগুলি হারিয়ে যায়৷ লিভার সিরোসিস থেকে শুরু করে কর্মক্ষমতাও হারিয়ে ফেলেন অনেকে৷ ডাব্লিউএইচও-র রিপোর্ট বলছে, ২০১২ সালে বিশ্বব্যাপী মাত্রাতিরিক্ত মদ্যপানের কারণে ৩.৩ মিলিয়ন মানুষ মৃত্যুবরণ করেন৷ এছাড়া ২০০টি নানা ধরনের অসুখ-বিসুখ হতে পারে অতিরিক্ত অ্যালকোহলের কারণে৷

সংশ্লিষ্ট বিষয়

আমাদের অনুসরণ করুন