শরণার্থীদের প্রতি সংবেদনশীল থাকুন: গাউক

ইসলাম ও অভিবাসন বিরোধী আন্দোলন জার্মানিতে এখন আলোচিত একটি বিষয়৷ প্রেসিডেন্ট ইওয়াখিম গাউকের বড়দিনের বার্তায় তাই স্বাভাবিকভাবেই বিষয়টি উঠে এসেছে৷ জার্মানদের মুক্তমনা হয়ে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি৷

জার্মান প্রেসিডেন্ট গাউক বলেন, মুক্তমন নিয়ে শরণার্থীদের গ্রহণ করার অর্থই হলো মানবতা৷ তাই জার্মানির মানুষকে শরণার্থীদের প্রতি সমবেদনার মনোভাব রাখার আহ্বান জানিয়েছেন ইওয়াখিম গাউক৷ বলেছেন প্রয়োজনে শরণার্থীদের সাহায্য করার কথাও৷ ‘‘এমনটা করলে অন্যের দুঃখ লাঘব করে শান্তি বজায় রাখার মাধ্যমে সুন্দর ভবিষ্যত গড়ে তোলা যায়৷ সেজন্য যার যতটুকু সামর্থ, তা করা উচিত,'' বলেন তিনি৷ বহু জার্মানকে তিনি সেটা করতে দেখেছেন বলেও জানান গাউক৷

চারপাশের বিশ্ব দেখে ‘ভয় না পেতে' জার্মানদের আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, বরং অন্যের চাহিদা অনুভব করে সেটা পূরণে সমাজের দায়িত্ব সম্পর্কে সচেতন হতে হবে৷

গত সোমবার জার্মানির কয়েকটি শহরে ইসলাম বিরোধী সমাবেশের আয়োজন করে ‘পেগিডা', ইংরেজিতে যার নাম ‘পেট্রিয়টিক ইউরোপিয়ানস এগেনস্ট দ্য ইসলামাইজেশন অফ অক্সিডেন্ট'৷ নামটিতে শুধু ইসলামের বিষয়টি থাকলেও, তারা মূলত অভিবাসনের বিরোধিতা করে আন্দোলন শুরু করেছিল৷ উল্লেখ্য, ইউরোপের মধ্যে বর্তমানে জার্মানিতে আসতেই সবচেয়ে বেশি আগ্রহী রাজনৈতিক আশ্রয়প্রার্থীরা৷ এঁদের বেশিরভাগই আসেন মুসলিম দেশ যেমন সিরিয়া, ইরাক, আফগানিস্তান থেকে৷ এছাড়া আফ্রিকা ও বলকান দেশগুলো থেকেও আশ্রয়প্রার্থীরা জার্মানিতে পাড়ি দিতে আগ্রহী৷

বিভিন্ন শহরে পেগিডা সমর্থকরা যখন বিক্ষোভ করছিল, তখন তাদের (পেগিডা) বিরোধিতা করেও বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়েছে৷

পোপ ফ্রান্সিস

পোপের বার্তাতেও উঠে এলো শরণার্থীরা

বড়দিনের প্রাক্কালে ভ্যাটিকানে জড়ো হওয়া অনুসারীদের উদ্দেশ্যে দেয়া এক বার্তায় পোপ ফ্রান্সিস আশেপাশের মানুষদের সমস্যা সমাধানে কোমল ভাব নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন৷

এর আগে তিনি ইরাকে একটি শিবিরে আশ্রয় নেয়া খ্রিষ্টান শরণার্থীদের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেন৷ জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট বা আইএস-এর কারণে নিজের ঘর ছেড়ে শিবিরে আশ্রয় নিয়েছেন তাঁরা৷ পোপ তাঁদের যিশুর সঙ্গে তুলনা করে বলেন, যিশুর মতো তাঁদেরও আশ্রয় না থাকায় পালিয়ে যেতে হয়েছে৷ ‘‘আজ রাতে আপনারা যিশুর মতো, আমি আপনাদের আশীর্বাদ করছি, আমি আপনাদের কাছেই আছি,'' শরণার্থীদের বলেন পোপ৷ ইটালির ক্যাথলিক গণমাধ্যমে টেলিফোন কলটি সরাসরি প্রচার করা হয়েছে৷

নিজের টুইটার পেজেও বড়দিনের বার্তা পোস্ট করেছেন পোপ ফ্রান্সিস৷

জেডএইচ/ডিজি (ডিপিএ, এএফপি)

আমাদের অনুসরণ করুন