এখনো অনেক কাগজ ব্যবহার করায় জার্মানির সমালোচনা

জার্মানির কেন্দ্রীয় সরকার ও তার অধীনে পরিচালিত সংস্থাগুলোতে ২০১৭ সালে ১২০ কোটির বেশি কাগজ ব্যবহৃত হয়েছে বলে জানা গেছে৷ সরকারের এত কাগজ ব্যবহারের সমালোচনা করেছে অন্যতম বিরোধী দল এফডিপি৷

ব্যবসাবান্ধব বলে পরিচিত মুক্ত গণতন্ত্রী বা এফডিপি দল সরকারের  কাগজ ব্যবহার সংক্রান্ত তথ্য জানতে চেয়েসংসদে প্রশ্ন উত্থাপন করেছিল৷ এর উত্তরে সরকার জানিয়েছে, ২০১৭ সালে কেন্দ্রীয় সরকার ১৪ কোটি ৮০ লক্ষ কাগজ ব্যবহার করেছে৷ আর সরকারের সব সংস্থার হিসেব ধরলে সংখ্যাটি ১২০ কোটি ছাড়িয়ে যাবে৷

সরকারের এখনো এত কাগজ ব্যবহারের সমালোচনা করেছেন এফডিপির রাজনীতিবিদ রোমান ম্যুলার-ব্যোম৷ প্রকাশনা গোষ্ঠী ‘ফুংকে মিডিয়েনগ্রুপে'কে তিনি বলেন, ইতিমধ্যে অনেক দেশে ফাইবার-অপটিক অবকাঠামো গড়ে উঠেছে এবং কাগজহীন সরকার পরিচালিত হচ্ছে৷

২০১৯ সালে এসে এখনো ফ্যাক্স মেশিন ব্যবহার করার জন্যও জার্মান সরকারের সমালোচনা করেছে এফডিপি৷

উল্লেখ্য, ডিজিটাল অবকাঠামো বিবেচনায় জার্মানি এখনো অনেক পিছিয়ে রয়েছে৷ দেশটির অনেক জায়গায় এখনো দ্রুতগতির ইন্টারনেট ও মোবাইল ফোন পৌঁছেনি৷

সমাজ সংস্কৃতি | 04.03.2011

পরিস্থিতির উন্নতি করতে গত বছর আগস্টে সরকার ২ দশমিক ৪ বিলিয়ন ইউরোর একটি প্রাথমিক তহবিল গঠন পরিকল্পনা অনুমোদন করেছে৷ এর মাধ্যমে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের প্রসার ঘটানো হবে৷ এছাড়া স্কুলগুলোতে ডিজিটাল অবকাঠামো উন্নত করার চেষ্টা হবে৷

জেডএইচ/এসিবি (এএফপি, ডিপিএ)

পরিবেশ সচেতনতা নিয়ে কিছু ভুল ধারণা 

দেশীয় ফল ও সবজি

দেশীয় ফল ও সবজি খাওয়ার কথা আজকাল প্রায়ই শোনা যায়৷ কিন্তু নিজের দেশের শাক-সবজি ও ফল তখনই ভালো, যদি সেসব ফ্রিজে রাখা না হয়৷ অর্থাৎ মৌসুমি ফল আর সবজি৷ ফ্রিজে খাবার সংরক্ষণে যে পরিমাণ কার্বন ডাই-অক্সাইড নিঃসরণ হয়, বিদেশ থেকে জাহাজে পণ্য পরিবহণ করতে তার চেয়ে অনেক কম নিঃসরণ হয়৷

পরিবেশ সচেতনতা নিয়ে কিছু ভুল ধারণা 

পানির অপচয় নয়

দাঁত ব্রাশের সময় ট্যাপের পানি ছেড়ে রাখা মানেই পানির অপচয়! তাই পানির খরচ কমাতে প্রায় সকলেই এ ব্যাপারে সচেতন জার্মানিতে৷ কিন্তু পানির বড় বড় পাইপগুলোতে জলবণ্টন বা পানির ফোর্স বাড়ানোর যে বাড়তি জল দেওয়া হয়, তা নিয়ে কেউ ভাবেন না৷ এতে যে জল অপচয় হয়, তা নিয়ে প্রশ্নও করেন না কেউ!

পরিবেশ সচেতনতা নিয়ে কিছু ভুল ধারণা 

বিদ্যুৎ সাশ্রয়

জার্মানিতে অনেকেই এক ঘর থেকে আরেক ঘরে যাওয়ার সময় লাইট অফ করে যান৷ ধারণা, এতে করে বিদ্যুৎ সাশ্রয় হবে৷ কিন্তু সেটা মোটেই ঠিক নয়৷ বরং কিছুক্ষণ পর আবারো নতুন করে লাইট ‘অন’ হতে যে জ্বালানি খরচ হয়, তা কিছুক্ষণ ‘অফ’ থাকার চেয়ে অনেক বেশি৷

পরিবেশ সচেতনতা নিয়ে কিছু ভুল ধারণা 

ওয়াশিং মেশিনের শর্ট প্রোগ্রাম বিদ্যুৎ বাঁচায়?

মেশিনে কাপড় ধোয়ার সময় ‘শর্ট প্রোগাম’ বা দ্রুত কাচার ‘অপশন’-টি বেছে নিলে কম জ্বালানি খরচ হয় বলেই বিশ্বাস করেন কেউ কেউ৷ এটাও কিন্তু সঠিক নয়৷ কারণ অনেকক্ষণ ধরে মেশিন চললে এবং ধীরে ধীরে চললে জ্বালানি খরচ তো কম হয়ই, কাপড়ও ভালো পরিষ্কার হয়৷ হালের মেশিনগুলোতে অবশ্য পরিবেশবান্ধব ‘ইকো প্রোগ্রাম’ রয়েছে, যা জ্বালানি সাশ্রয় করে৷

পরিবেশ সচেতনতা নিয়ে কিছু ভুল ধারণা 

হাত দিয়ে বাসন ধোয়া কি পরিবেশবান্ধব?

মোটেই না৷ কারণ ট্যাপের গরম পানি ছেড়ে রেখে একটি করে বাসন ধুলে, বিদ্যুৎ এবং পানি দু’টোরই বেশি খরচ হয়৷ অন্যদিকে মেশিনে ধোয়ার সময় বিদ্যুৎ ও পানি – দু’টোই কম খরচ হয়৷ তবে সবচেয়ে ভালো হয় যদি ডিশওয়াশারটি বাসন দিয়ে পুরো ভরে নিয়ে তারপর চালানো হয়৷ এতে কম খরচে একসঙ্গে অনেক বাসন ধোয়া হয়ে যায়!