‘‘দুই নেতার খেলা কি শেষ? মনে হয় না...''

কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে ভারত-পাকিস্তান সংঘর্ষে কার জয় হলো সে উত্তর খুঁজছেন দুই দেশের মানুষ ও রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা৷ ডয়চে ভেলের অনেক পাঠকও কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে ফেসবুক পাতায় নানা মন্তব্য করেছেন৷

সেলিনা ইয়াসমিন শেলি লিখেছেন, ‘‘বিশ্ব দরবারে জিতেছেন ইমরান খান আর ভারতের ভেতরে হেরেছে মোদী৷'' আর পাঠক মিজানুর রহমান লিখেছেন, ‘‘আমি একজন ভারতীয়, কিন্তু আমার মতে ইমরান খানই জিতেছেন৷''

তবে গোলাম কিবরিয়া একটু বিস্তারিতভাবে তাঁর মতামত জানিয়েছেন৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘জিতেছে কংগ্রেস৷ তাদের যে অবস্থা ছিল, সেখান থেকে আরও সুবিধাজনক অবস্থানে চলে এলো এখন৷ মোদীর মানইজ্জত নিয়ে টানাটানি শুরু হয়ে গেছে৷ যদিও সামগ্রিকভাবে বিজেপির কতটা ক্ষতি হলো, সেটা বলা যাচ্ছে না৷''

নজরুল ইসলামের মতে, ইমরান খানই জয়ী হয়েছেন৷ আলমগীর হোসেন, সাইফ খান, সিরাজুল ইসলাম তালুকদার, শাজাহান কবির, আবুল বাশারসহ আরও অনেকে একই মত প্রকাশ করেছেন৷

কাশ্মীর ইস্যুতে বিস্ফোরক সব মন্তব্য

আলোচনার সময় শেষ: মোদী

পাকিস্তানের সঙ্গে আলোচনার সময় শেষ হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ কাশ্মীরে আক্রমণের পেছনে পাকিস্তানের মদদের ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, জঙ্গি ও তাদের সমর্থকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেয়া মানে তাদের উসাহিত করা৷

কাশ্মীর ইস্যুতে বিস্ফোরক সব মন্তব্য

ভারতকে প্রতিহত করা হবে: ইমরান খান

কোনো প্রমাণ ছাড়াই পুলওয়ামার ঘটনায় পাকিস্তানকে দোষারোপ করা হচ্ছে বলে মনে করেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান৷ ঘটনার তদন্তে পাকিস্তান সহায়তা ও আলোচনা করতে প্রস্তুত বলেও জানিয়েছেন তিনি৷ কিন্তু ভারত কোনোভাবে আক্রমণ করে বসলে, সাথে সাথে তার কড়া জবাব দেয়া হবে বলেও জানান ইমরান খান৷

কাশ্মীর ইস্যুতে বিস্ফোরক সব মন্তব্য

নির্বাচনের আগেই কেন: মমতা

লোকসভা নির্বাচনের ঠিক আগে আগে কেন এতো বড় হামলার ঘটনা ঘটলো, এ নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি৷ এর আগে ‘তদন্ত না করে’ পাকিস্তানের ওপর ‘দোষ চাপানো’ উচিত নয় মন্তব্য করেও বিতর্কের জন্ম দেন মমতা৷

কাশ্মীর ইস্যুতে বিস্ফোরক সব মন্তব্য

পাকিস্তানের ধ্বংস জরুরি: কঙ্গনা রানাউত

বলিউডের একসময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শাবানা আজমিকে ‘রাষ্ট্রদ্রোহী’ বলে আখ্যা দিয়েছেন বলিউডের বর্তমান জনপ্রিয় অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত৷ পাশাপাশি আহ্বান জানিয়েছেন চূড়ান্ত ব্যবস্থা নেয়ার৷ বলছেন, শুধু পাকিস্তানের শিল্পীদের ভারতে নিষিদ্ধ করলেই হবে না, পাকিস্তানকেই ধ্বংস করতে হবে৷

কাশ্মীর ইস্যুতে বিস্ফোরক সব মন্তব্য

বন্দুক হাতে থাকলেই হত্যা: লে. জে. ঢিলন

কাশ্মীরে কেউ বন্দুক হাতে নিলেই তাকে হত্যা করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ভারতের চিনার কর্পসের কমান্ডার লেফট্যানেন্ট জেনারেল কে জে এস ঢিলন৷ বন্দুক হাতে নিলে তা কেবল আত্মসমর্পণের উদ্দেশ্যে হতে পারে বলেও মন্তব্য করেন তিনি৷

কাশ্মীর ইস্যুতে বিস্ফোরক সব মন্তব্য

কাশ্মীরকে বর্জন করুন: তথাগত রায়

‘কাশ্মীরে যাবেন না, কাশ্মীরী পণ্য কিনবেন না’, সামাজিক যোগোযোগ মাধ্যমে চলা এমন বক্তব্যের সাথে একমত পোষণ করেছেন মেঘালয় রাজ্যের গভর্নর তথাগত রায়৷ কিন্তু অনেকেই অবশ্য এর প্রতিবাদ জানাচ্ছেন, বলছেন, কাশ্মীর ভারতের অংশ, কাশ্মীরীরা ভারতের নাগরিক৷ ফলে নিজের দেশের একটা অঞ্চলের সব মানুষকে শত্রু বানিয়ে দেয়া উচিত নয়৷

কাশ্মীর ইস্যুতে বিস্ফোরক সব মন্তব্য

পুরো দেশকে দোষ দেয়া যায় না: নভজ্যোত সিং সিধু

‘কিছু হাতে গোণা মানুষের জন্য পুরো দেশকে দায় দেয়া উচিত নয়’ বলে মন্তব্য করে তোপের মুখে পড়েছেন সাবেক ক্রিকেট খেলোয়াড় খেলোয়াড় ও পাঞ্জাবের পর্যটনমন্ত্রী নভজ্যোত সিং সিধু৷ এমন মন্তব্যের কারণে তাঁকে জনপ্রিয় টেলিভিশন অনুষ্ঠান ‘দ্য কপিল শর্মা শো’ থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে৷

কাশ্মীর ইস্যুতে বিস্ফোরক সব মন্তব্য

বিশ্বকাপে পাকিস্তানকে বর্জন করুন: হরভজন সিং

আসন্ন ক্রিকেট বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ না খেলতে ভারতের ক্রিকেট দলকে আহ্বান জানিয়েছেন সাবেক ভারতীয় অফস্পিনার হরভজন সিং৷ প্রয়োজনে ম্যাচটি ওয়াকওভার দিয়ে দেয়ার আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি৷ হরভজন মনে করেন, ভারতের যে শক্তি, তাতে একটি ম্যাচ না খেললেও তারা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার শক্তি রাখে৷

তবে ভিন্নমত জকির হোসেনের৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘জিতেছে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু৷ তাঁর দেশের অস্ত্র বিক্রি আর মুসলিমদের উপর তাঁর আক্রোশ কার্যকরি করতে তিনিই মোদীকে যুদ্ধ করার জন্য উঠে পড়ে লেগেছিলেন৷'' পাঠক জাকির হোসেনের সাথে একমত পোষণ করেন পাঠক এস আর সোহাগও৷

এমএ হাসান বলছেন, ‘‘যুদ্ধবাজ ভারত শান্তির প্রধান অন্তরায়, সাথে পাকিস্তানের উগ্রবাদী গোষ্ঠীগুলোও দায়ী৷  কাশ্মীরের স্বাধীনতার সংগ্রাম সফল হবে, শান্তি আসবে কাশ্মীরে৷ এটাই শান্তিকামী প্রতিটি নাগরিকের প্রত্যাশা৷''

‘‘দুই নেতার খেলা কি শেষ? মনে হয়না!'' এই মন্তব্য পাঠক মো. রাজীবের৷

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: জাহিদুল হক

আমাদের অনুসরণ করুন